ঢাকা, বুধবার, ৮ ফাল্গুন ১৪২৫, ২০ ফেব্রুয়ারি ২০১৯
Risingbd
সর্বশেষ:

অনাস্থা ভোটে টিকে গেলেন থেরেসা মে

এনএ : রাইজিংবিডি ডট কম
 
     
প্রকাশ: ২০১৯-০১-১৭ ১:১২:৩২ পিএম     ||     আপডেট: ২০১৯-০১-১৭ ১০:৫৪:২০ পিএম

রাইজিংবিডি ডেস্ক :  ব্রেক্সিট চুক্তি নিয়ে ভোটাভুটিতে প্রত্যাখ্যাত হলেও অনাস্থা ভোটে কোনোরকমে টিকে গেছেন যুক্তরাজ্যের প্রধানমন্ত্রী থেরেসা মে।

বিবিসি জানিয়েছে, বুধবার যুক্তরাজ্যের পার্লামেন্টের নিম্নকক্ষ হাউজ অব কমন্সে দীর্ঘ আলোচনার পর ভোটাভুটিতে থেরেসা মের সরকারের প্রতি সমর্থন জানান ৩২৫ এমপি।

বিপরীতে তার প্রতি অনাস্থা জানিয়েছেন ৩০৬ জন। অর্থাৎ মাত্র ১৯ ভোটের ব্যবধানে রক্ষা পেয়েছে মের সরকার।

এর আগে মঙ্গলবার দীর্ঘ আলোচনার পর এক ভোটাভুটিতে ২৩০ ভোটের রেকর্ড ব্যবধানে ব্রেক্সিট চুক্তি প্রত্যাখ্যান করেন এমপিরা। ব্রিটেনের পার্লামেন্টের ইতিহাসে এর আগে ক্ষমতাসীন দলকে এত বড় হার মেনে নিতে হয়নি।

এ হারের ফলে অনাস্থা ভোটের মুখে পড়েন প্রধানমন্ত্রী থেরেসা মে। ভোটের পরপরই লেবার পার্টির নেতা জেরেমি করবিন রক্ষণশীল দলের সরকারের প্রতি অনাস্থা প্রস্তাব আনেন।
 


ভোটে টিকে যাওয়ার পর থেরেসা মে, ইউরোপীয় ইউনিয়ন থেকে ব্রিটেনের বেরিয়ে যাওয়ার প্রক্রিয়াকে এগিয়ে নিতে সব এমপিকে নিজ নিজ স্বার্থ পরিহার করে একসঙ্গে গঠনমূলক কাজ করার আহবান জানান।

তিনি ব্রেক্সিট চুক্তির নতুন খসড়া তৈরিতে পার্লামেন্টের সব দলের সঙ্গে আলোচনার প্রস্তাবও রেখেছেন।

এদিকে ভোটে নিজেদের হারের পর জেরেমি করবিন বলেছেন, কোনো চুক্তি ছাড়াই ইইউ ছাড়ার মতো ঘটনা যেন না ঘটে, থেরেসা মেকে তা নিশ্চিত করতে হবে।

প্রসঙ্গত, ২০১৬ সালের ২৩ জুন যুক্তরাজ্যে এক গণভোটে ইইউ থেকে বেরিয়ে যাওয়ার পক্ষে রায় দেন ভোটাররা। ফলে সংস্থা থেকে ব্রিটেনের চার দশকের সম্পর্কোচ্ছেদের প্রক্রিয়া শুরু হয়।

আর গণভোটে হারের পর রক্ষণশীল দলের তৎকালীন প্রধানমন্ত্রী ডেভিড ক্যামেরন পদত্যাগ করেন। তখন প্রধানমন্ত্রী হন থেরেসা মে এবং ইইউ থেকে বিচ্ছিন্ন হওয়ার পথরেখা তৈরির প্রক্রিয়া শুরু করেন তিনি।



রাইজিংবিডি/ঢাকা/১৭ জানুয়ারি ২০১৯/এনএ

Walton Laptop
 
     
Marcel
Walton AC