ঢাকা, মঙ্গলবার, ৭ ভাদ্র ১৪২৪, ২২ আগস্ট ২০১৭
Risingbd
শোকাবহ অগাস্ট
সর্বশেষ:

খালেদার আত্মপক্ষ শুনানি ২৬ জানুয়ারি

মামুন খান : রাইজিংবিডি ডট কম
প্রকাশ: ২০১৭-০১-১২ ২:৪৫:৩৬ পিএম     ||     আপডেট: ২০১৭-০১-১৩ ৮:২০:১৩ এএম
ফাইল ফটো

নিজস্ব প্রতিবেদক : জিয়া চ্যারিটেবল ট্রাষ্ট দুর্নীতির মামলায় বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার আত্মপক্ষ শুনানিতে অসমাপ্ত বক্তব্যের জন্য আগামি ২৬ জানুয়ারি ধার্য করেছেন আদালত।

বৃহস্পতিবার পুরান ঢাকার বকশিবাজার  কারা অধিদপ্তরের প্যারেড মাঠে স্থাপিত অস্থায়ী ঢাকার তিন নম্বর বিশেষ জজ আবু আহমেদ জমাদারের আদালত আসামিপক্ষের সময়ের আবেদন মঞ্জুর করে এদিন ঠিক করেন।

সময়ের আবেদনের শুনানিতে ব্যারিস্টার জমীরউদ্দিন সরকার বলেন, মামলাটিতে সাক্ষ্য দেওয়া ৩২ সাক্ষীর পুনরায় সাক্ষ্য গ্রহণের জন্য হাইকোর্টে একটি আবেদন করা হয়েছে যা বিচারাধীন রয়েছে এবং এটি একটি বেঞ্চে কার্যতালিকায় শীর্ষে আছে, সে জন্য বিষয়টি নিষ্পত্তি না হওয়া পর্যন্ত সময় দেওয়া হোক।

তবে দুদকের আইনজীবী মোশাররফ হোসেন কাজল এর বিরোধিতা করেন।

উভয়পক্ষের শুনানি শেষে প্রথমে বিচারক প্রথমে ১৯ জানুয়ারি পরবর্তী দিন ধার্য করেন।

কিন্তু খালেদা জিয়ার আইনজীবীরা বলেন, ১৯ জানুয়ারি বিএনপির প্রতিষ্ঠাতা জিয়াউর রহমানের জন্মবার্ষিকী। ওইদিন খালেদা জিয়া ও আইনজীবীরা বিভিন্ন কর্মসূচিতে ব্যস্ত থাকবেন। এজন্য সময় বাড়ানোর আবেদন করেন আইনজীবীরা। এরপর বিচারক অসমাপ্ত বক্তব্যের জন্য ২৬ জানুয়ারি দিন ধার্য করেন। এ সময় আদালতে উপস্থিত ছিলেন।

এ মামলায় গত ১ ডিসেম্বর খালেদা জিয়া আত্মপক্ষ শুনানি করেন। আত্মপক্ষ শুনানিতে তিনি নিজেকে সম্পূর্ণভাবে নির্দোষ দাবি করে একটি সমাপ্ত বক্তব্য দেন। তবে তার বক্তব্য শেষ হয়নি। ওইদিন তিনি আদালতকে জানিয়েছিলেন তিনি তার পক্ষে সাফাই সাক্ষী  দিবেন। তবে আজ তার আইনজীবী আব্দুর রেজ্জাক খান আদালতকে জানিয়েছেন খালেদা জিয়া সাফাই সাক্ষী দিবেন না।

আসামি মনিরুল ইসলাম খান খালেদা জিয়াকেসহ নিজেকে নির্দোষ প্রমাণে ২৭১ জন সাফাই সাক্ষীর নামের তালিকা আদালতে দাখিল করেছেন। ওই সাক্ষীদের সাক্ষ্যেই খালেদা জিয়ার নির্দোষের বিষয়টি এসে যাবে বলেও জানান তিনি।

অপ্রয়োজনীয় সাক্ষীর নাম দিয়ে সাক্ষী তালিকা লম্বা করায় এ তালিকা নিয়ে অসন্তোষ প্রকাশ করেন আদালত। তা সংশোধন করে নতুন তালিকা আদালতে দাখিল করবেন বলে জানিয়েছেন আসামিপক্ষের আইনজীবীরা।

প্রসঙ্গত, ২০১১ সালের ৮ আগস্ট খালেদা জিয়াসহ ৪ জনের বিরুদ্ধে ৩ কোটি ১৫ লাখ ৪৩ হাজার টাকা আত্মসাতের অভিযোগে জিয়া চ্যারিটেবল ট্রাস্ট মামলাটি দায়ের করে দুদক। এ মামলায় ২০১২ সালের ১৬ জানুয়ারি আদালতে অভিযোগপত্র দাখিল করে দুদক।

মামলাটিতে বিএনপি নেতা সচিব হারিছ চৌধুরী এবং তার তৎকালীন একান্ত সচিব বর্তমানে বিআইডব্লিউটিএ এর নৌ-নিরাপত্তা ও ট্রাফিক বিভাগের ভারপ্রাপ্ত পরিচালক জিয়াউল ইসলাম মুন্না ও ঢাকা সিটি করপোরেশনের সাবেক মেয়র সাদেক হোসেন খোকার একান্ত সচিব মনিরুল ইসলাম খান আসামি।

মামলাটিতে খালেদা জিয়াসহ অপর আসামিদের বিরুদ্ধে ২০১৪ সালের ১৯ মার্চ তৎকালীন বিচারক বাসুদেব রায় অভিযোগ গঠন করেন।

 

 

রাইজিংবিডি/ঢাকা/১২ জানুয়ারি ২০১৭/এমএ খান/সাইফ

Walton Laptop