ঢাকা, শনিবার, ১১ ফাল্গুন ১৪২৫, ২৩ ফেব্রুয়ারি ২০১৯
Risingbd
সর্বশেষ:

গুলশান হামলায় অস্ত্র সরবরাহকারী ৫ দিনের রিমান্ডে

মামুন খান : রাইজিংবিডি ডট কম
 
     
প্রকাশ: ২০১৯-০১-২০ ৩:৪৯:২০ পিএম     ||     আপডেট: ২০১৯-০১-২১ ৮:১০:১১ এএম

নিজস্ব প্রতিবেদক : গুলশানের হোলি আর্টিজান রেস্টুরেন্ট অ্যান্ড বেকারিতে জঙ্গি হামলার মামলায় গ্রেপ্তারকৃত চার্জশিটভুক্ত আসামি মোহাম্মাদ মামুনুর রশিদ ওরফে রিপন ওরফে রেজাউল করিম ওরফে রেজার অন্য একটি মামলায় ৫ দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেছেন আদালত।

১০ দিনের রিমান্ড আবেদনের শুনানি শেষে রোববার ঢাকা মহানগর হাকিম কনক বড়ুয়া এ রিমান্ড মঞ্জুর করেন।

সন্ত্রাসবিরোধী আইনের ওই মামলার তদন্ত কর্মকর্তা পুলিশের সহকারী কমিশনার (এএসপি) মো. কফিলউদ্দিন এ আসামিকে আদালতে হাজির করে রিমান্ড চেয়ে আবেদন করেন।

এর আগে গত শনিবার রাতে গাজীপুরের বোটবাজারের একটি বাস থেকে হলি আর্টিজান হামলা মামলার চার্জশিটভুক্ত পলাতক আসামিকে গ্রেপ্তার করে র্যািব।

সবুজবাগ থানায় গত এপ্রিল মাসে দায়ের করা ওই মামলায় রিমান্ড আবেদনের শুনানিকালে আসামিপক্ষে কোনো আইনজীবী ছিল না। মামলাটিতে মোট ছয়জন এজাহারনামীয় আসামি এবং ২/৩ জন অজ্ঞাতনামা আসামি রয়েছেন। তাদের মধ্যে মামুনুর এজাহারনামীয় ৫ নম্বর আসামি।

রিমান্ড আবেদনে বলা হয়, এ আসামি নিষিদ্ধ ঘোষিত সংগঠন জেএমবির অন্যতম সংগঠক, দলটির সেকেন্ড ইন কমান্ড এবং বর্তমান শুরা সদস্য। সে এ মামলার ঘটনার সঙ্গে জড়িত এবং সে সংগঠনের ছদ্মনাম ব্যবহার করে বিভিন্ন জায়গায় বিভিন্নভাবে পরিচয় প্রদান করে থাকে। সে দেশের ইতিহাসের চাঞ্চল্যকর হলি আর্টিজান জঙ্গি হামলা মামলার অন্যতম আসামি। এছাড়া, তার প্রত্যক্ষ তত্ত্বাবধানে উত্তরাঞ্চলে বেশ কয়েকটি জঙ্গি হামলা সংগঠিত হয়েছে। সে বর্তমানে নেতৃত্বহীন জঙ্গিদের নিয়ে এ মামলার এজাহারনামীয় আসামি রিফাত হায়াত স্বাধীনসহ আরো কতিপয় জঙ্গি সদস্যকে নিয়ে নতুন জঙ্গি হামলার পরিকল্পনার উদ্দেশ্যে অত্র মামলার ঘটনাস্থলে সমাবেত হয়েছিল। আসামিকে গ্রেপ্তারের সময় তার নিকট থেকে রাজধানীর গুরুত্বপূর্ণ স্থাপনার মানচিত্র ও নগদ ১ লাখ ৪৭ হাজার ৭৫৫ টাকা উদ্ধার করা হয়। যা নাশকতামূলক কর্মকাণ্ড সংঘটনের লক্ষ্যে ব্যয় হতো মর্মে প্রতীয়মান হচ্ছে। তাই উক্ত বিষয়ে তাকে রিমান্ডে নিয়ে জিজ্ঞাসাবাদ করা প্রয়োজন।

সবুজবাগ থানার ওই মামলার অভিযোগে বলা হয়, ২০১৮ সালের ৩ এপ্রিল র্যা ব-৩ সবুজবাগ থানাধীন বাসাবো বালুর মাঠ এলাকায় একটি ব্যাগসহ রিফাত হায়াত স্বাধীন নামে একজনকে গ্রেপ্তার করে। ওই সময় তার সঙ্গে থাকা সংগঠনের ছদ্মনামীয় আবু রুহান, ডন, জীবন ইসলাম, আবু মুজাহির ও গ্রীনবার্ডসহ অজ্ঞাত ২/৩ জন পালিয়ে যায়। ওই সময় ব্যাগ হতে জঙ্গি তৎপরতার বিভিন্ন উদ্ধাপন জব্দ করা হয়। ওই ঘটনায় ওয়ারেন্ট অফিসার মো. আবু বকর সিদ্দিকী একটি মামলা করেন।

উল্লেখ্য, হলি আর্টিজান মামলায় মামুনুর রশিদ চার্জশিটভুক্ত ৮ নং আসামি । মামলাটির অন্য আসামিদের স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দিতে এ আসামির জড়িত থাকার বিষয়ে নাম প্রকাশ পাওয়ায় তাকে চার্জশিটভুক্ত করা হয়। মামলাটি বর্তমানে সাক্ষ্য গ্রহণের পর্যায়ে রয়েছে। এর মধ্যে মামলায় ১২ জনের সাক্ষ্য গ্রহণ সম্পন্ন হয়েছে।



রাইজিংবিডি/ঢাকা/২০ জানুয়ারি ২০১৮/মামুন খান/রফিক

Walton Laptop
 
     
Marcel
Walton AC