ঢাকা, বুধবার, ১১ শ্রাবণ ১৪২৪, ২৬ জুলাই ২০১৭
Risingbd
সর্বশেষ:

দারিদ্র্যহার কমে ২০ দশমিক ২ শতাংশ

নঈমুদ্দীন : রাইজিংবিডি ডট কম
প্রকাশ: ২০১৭-০১-০৮ ৫:৩৩:০১ পিএম     ||     আপডেট: ২০১৭-০১-০৮ ৫:৩৩:০১ পিএম

জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক : বাংলাদেশে দারিদ্র্য হ্রাসে উল্লেখযোগ্য অগ্রগতি হয়েছে। দারিদ্র্যের হার ২০০০ সালে ছিল ৪৮ দশমিক ৯ শতাংশ। ২০১০ সালে তা ৩১ দশমিক ৫ শতাংশে নেমে আসে। ২০১৬ সালে তা কমে হয়েছে ২০ দশমিক ২ শতাংশ।

 

রোববার দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা অধিদপ্তরে মাঠ কর্মকর্তাদের ২৬টি গাড়ি ও ৪৮৯টি উপজেলা প্রকল্প কর্মকর্তার কার্যালয়ে ল্যাপটপসহ আইটি সরঞ্জাম সরবরাহ অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তৃতায় দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণমন্ত্রী মোফাজ্জল হোসেন চৌধুরী মায়া এসব তথ্য জানান।

 

মন্ত্রী বলেন, বিগত দশকে বাংলাদেশ দারিদ্র্য হ্রাসকরণে উল্লেখযোগ্য অগ্রগতি হয়েছে। সামাজিক নিরাপত্তা বেষ্টনী কর্মসূচি দারিদ্র্য হ্রাসকরণের পাশাপাশি শিক্ষা, স্বাস্থ্য, পুষ্টি, কর্মসংস্থান সৃষ্টি এবং দুর্যোগে সাড়াদানে সক্ষমতা বৃদ্ধিতে ভূমিকা রাখছে।

 

‘সুফলভোগী হিসেবে বৃদ্ধ, মহিলা, শিশু এবং প্রতিবন্ধীদের অগ্রাধিকার প্রদান করা হচ্ছে। এসব কর্মসূচি দরিদ্রবান্ধব হলেও আধুনিকায়নের মাধ্যমে এক্ষেত্রে সম্পদের অপচয় রোধ ও সুষ্ঠু বণ্টন, সুশাসন প্রতিষ্ঠা এবং সুফলভোগী নির্বাচনে আরো উন্নতির সুযোগ রয়েছে।’

 

তিনি বলেন, দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ মন্ত্রণালয়ের অফিসগুলোর সক্ষমতা বৃদ্ধি শীর্ষক প্রকল্পের আওতায় এসব গাড়ি ও আইটি সরঞ্জাম সরবরাহ করা হয়। বিশ্বব্যাংক এ প্রকল্পের আর্থিক সহযোগিতা প্রদান করছে। এ প্রকল্পের আওতায় সব জেলা ও উপজেলা অফিসকে তথ্যপ্রযুক্তিগতভাবে আধুনিকায়ন করা হবে।

 

সমাজের দরিদ্রতম পরিবারগুলোর কল্যাণসাধনের লক্ষ্যে প্রধান প্রধান সামাজিক নিরাপত্তা কর্মসূচিগুলো মাঠপর্যায়ে বাস্তবায়নকালে ভৌগোলিক অঞ্চল ও জেন্ডারভিত্তিক সমতা আনয়ন এবং সক্ষমতা ও স্বচ্ছতা বৃদ্ধি এ প্রকল্পের মূল উদ্দেশ্য।

 

দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা অধিদপ্তরের মহাপরিচালক রিয়াজ আহমেদের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ সচিব মো. শাহ্ কামাল এবং প্রকল্প পরিচালক সত্যেন্দ্র কুমার সরকার বক্তব্য রাখেন। দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা অধিদপ্তরের জেলা ও উপজেলা কর্মকর্তারা এ সময় উপস্থিত ছিলেন।

 

 

রাইজিংবিডি/ঢাকা/৮ জানুয়ারি ২০১৭/নঈমুদ্দীন/হাসান/মুশফিক

Walton Laptop