ঢাকা, বুধবার, ৮ ভাদ্র ১৪২৪, ২৩ আগস্ট ২০১৭
Risingbd
শোকাবহ অগাস্ট
সর্বশেষ:
মহাসমাবেশ আজ

শক্তি প্রদর্শন করতে চান এরশাদ

মোহাম্মদ নঈমুদ্দীন : রাইজিংবিডি ডট কম
প্রকাশ: ২০১৭-০১-০১ ৯:০৮:২৪ এএম     ||     আপডেট: ২০১৭-০১-০১ ৯:০৮:২৪ এএম

মোহাম্মদ নঈমুদ্দীন : আজ ১ জানুয়ারি জাতীয় পার্টির প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী। ১৯৮৬ সালের এ দিনে জাতীয় পার্টি নামে রাজনৈতিক দল প্রতিষ্ঠা করেন তৎকালীন সামরিক রাষ্ট্রপতি হুসেইন ‍মুহম্মদ এরশাদ।

 

চড়াই-উৎরাই পেরিয়ে এরশাদের নেতৃত্বে প্রতিষ্ঠার ৩১ বছরে পা রাখছে দলটি। জন্মদিন উপলক্ষে আজ রাজধানীর সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে কোটি টাকার মহাসমাবেশ ডেকেছেন এরশাদ। দেড় থেকে দুই লাখ লোকসমাগমের টার্গেট নিয়ে বছরের প্রথম দিনেই স্মরণকালের বৃহত্তম সমাবেশ করে শক্তি প্রদর্শন করতে চান প্রাক্তন এ রাষ্ট্রপতি।

 

দলটির শীর্ষনেতারা জানান, সামনে জাতীয় নির্বাচন। সেই নির্বাচনে ক্ষমতায় যাওয়া জাতীয় পার্টির একমাত্র লক্ষ্য। কিন্তু এককভাবে নির্বাচন করে ক্ষমতায় যাওয়ার মতো এ মুহূর্তে সাংগঠনিক শক্তি দলটির নেই। তাই ক্ষমতায় যেতে না পারলেও অন্তত যাতে আগামীতে যেকারো সঙ্গে ক্ষমতার ভাগাভাগি করতে পারে। আর এ কাজটি করতে হলে জাতীয় পার্টিকে প্রমাণ করতে হবে সারা দেশে তাদের লোকবল ও জনসমর্থন রয়েছে। এমন সব হিসাব-নিকাশ করেই বছরের শুরুতে কোটি টাকার মহাসমাবেশ ডেকে রাজধানীতে শক্তি প্রদর্শনের আয়োজন করেছে জাতীয় পার্টি।

 

দলটির প্রভাবশালী এক প্রেসিডিয়াম সদস্য বলেন, ‘আগামীতে দরকষাকষি ঠিক মতো করতে না পারলে শেষ বয়সে এসে পার্টির চেয়ারম্যানের আম-ছালা দুটোই যাবে।’

 

মূলত আওয়ামী লীগ ও বিএনপিসহ রাজনৈতিক মহলে এবং দেশের মানুষের কাছে জাতীয় পার্টিকে নিয়ে যাতে আগ্রহ সৃষ্টি হয় সেজন্যই এই শক্তি প্রদর্শন বলে মনে করেন দলটির নেতারা।

 

খবর নিয়ে জানা গেছে, বছরের শুরুতে জাতীয় পার্টির ব্যানারে শক্তি প্রদর্শন করতে এক মাস ধরে রাতদিন সর্বোচ্চ পরিশ্রম করেছেন দলটির চেয়ারম্যান হুসেইন মুহম্মদ এরশাদ থেকে শুরু করে দলের সিনিয়র কো-চেয়ারম্যান রওশন এরশাদ, কো-চেয়ারম্যান জি এম কাদের, মহাসচিব এ বি এম রুহুল আমীন হাওলাদারসহ প্রায় সর্বস্তরের নেতারা। পার্টির চেয়ারম্যান নিজেই মহাসমাবেশ তদারকি করছেন। কর্মসূচি সফল করতে নেতাদের সঙ্গে করেছেন দফায় দফায় বৈঠক। স্ত্রী রওশন এরশাদ, ছোট ভাই জি এম কাদেরকে নিয়ে বারবার ছুটে গেছেন সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে। সমাবেশস্থল ও মঞ্চের প্রস্তুতি ঠিক মতো হচ্ছে কি না নিজেই তদারকি করেন।

 

জানা গেছে, এই মহাসমাবেশে চোখে পড়ার মতো লোকসমাগমের জন্য ইতিমধ্যে কয়েক কোটি টাকা খরচ হয়ে গেছে। আর সমাবেশ সফল করার জন্য প্রচারণার অংশ হিসেবে লিফলেট, বিলবোর্ড, তোরণ, পোস্টার, ব্যানার, ফেস্টুন তৈরি এবং মহাসমাবেশের প্যান্ডেল ও মঞ্চ তৈরিতে খরচ হয়ে গেছে আরো প্রায় কোটি টাকার উপরে। সব মিলিয়ে ৫ কোটি টাকার উপরে খরচ হচ্ছে মহাসমাবেশে।

 

দলের নেতারা জানান, জাতীয় পার্টির প্রত্যেক এমপি, প্রভাবশালী প্রেসিডিয়ামসহ নেতাদেরকে আলাদাভাবে লোকজন নিয়ে আসতে বলা হয়েছে। একই নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে দলের অঙ্গ ও সহযোগী সংগঠনগুলোকে। তা ছাড়া প্রত্যেক জেলাকে কমপক্ষে একটি বাস ভর্তি লোক নিয়ে সমাবেশে আসতে বলা হয়েছে। অন্যথায় জেলা কমিটি বাতিল, প্রেসিডিয়াম, উপদেষ্টা কিংবা অন্য শীর্ষ পযায়ের পদ কেড়ে নেওয়ার হুমকি দেওয়া আছে। পদ হারানোর ভয়ে নেতারা প্রায় ১৫ দিন ধরে এলাকায় নেতা-কর্মী সংগ্রহে ব্যস্ত সময় পার করেছেন। পথেঘাটে সর্বত্র সমাবেশের পক্ষে লিফলেট বিলি করে প্রচার চালিয়েছেন। সব মিলিয়ে লোকসমাগম করে বড় ধরনের শোডাউনের জন্য প্রস্তুত এরশাদের জাতীয় পার্টি।

 

জানা গেছে, জাতীয় পার্টির আজকের মহাসমাবেশে দলের মহাসচিব এ বি এম রুহুল আমীন হাওলাদারের বরিশাল জেলা থেকে সবচেয়ে বেশি লোক নিয়ে আসা হচ্ছে। ৩০ থেকে ৪০ হাজার লোক সমাবেশে যোগ দেওয়ার কথা। দলের প্রেসিডিয়াম সদস্য সৈয়দ আবু হোসেন বাবলা এমপির নেতৃত্বে ঢাকা মহানগর দক্ষিণের ব্যানারে কমপক্ষে ২০ হাজার লোক সমাবেশে যোগ দেবে বলে জানিয়েছেন সংগঠনটির সাংগঠনিক সম্পাদক সুজন দে।

 

তিনি বলেন, ‘আমাদের টাগের্ট ৪০ হাজার। কমপক্ষে ২০ হাজার নেতা-কর্মী সমাবেশে যোগ দেবেন এমন প্রস্তুতি নেওয়া হয়েছে।’ সমাবেশকে কেন্দ্র করে পুরো ঢাকায় গণজোয়ার সৃষ্টি হয়েছে বলেও দাবি করেন তিনি।

 

ঢাকা মহানগর দক্ষিণ ছাড়াও উল্লেখযোগ্য লোকজন নিয়ে সমাবেশে যোগ দেবেন দলের প্রেসিডিয়াম সদস্য সালমা ইসলাম এমপি, রংপুর থেকে দলের প্রেসিডিয়াম সদস্য মশিউর রহমান রাঙ্গাঁ, নারায়ণগঞ্জ থেকে দলের প্রেসিডিয়াম সদস্য সেলিম ওসমান এমপি এবং ঢাকা মহানগর উত্তর থেকে দলের প্রেসিডিয়াম সদস্য এস এম ফয়সল চিশতী। তা ছাড়া আলমগীর সিকদার লোটনের নেতৃত্বে যুব সংহতি, দলের মহিলাবিষয়ক সম্পাদক অনন্যা হোসেন মৌসুমীর নেতৃত্বে মহিলা পার্টি, হাসান ও মিরুর নেতৃত্বে ছাত্রসমাজ উল্লেখযোগ্য নেতা-কর্মী নিয়ে সমাবেশে যোগ দেবে বলে জানা গেছে।

 

মহাসমাবেশে জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান এরশাদ, কো চেয়ারম্যান রওশন এরশাদসহ শীর্ষ পযায়ের নেতারা বক্তব্য রাখবেন বলে জানা গেছে।

 

 

রাইজিংবিডি/ঢাকা/১ জানুয়ারি ২০১৭/নঈমুদ্দীন/সাইফুল

Walton Laptop