ঢাকা, রবিবার, ২ আষাঢ় ১৪২৬, ১৬ জুন ২০১৯
Risingbd
সর্বশেষ:

সায়েদাবাদে বৃহস্পতিবার থেকে ভিড় বাড়তে পারে

আবু বকর ইয়ামিন : রাইজিংবিডি ডট কম
     
প্রকাশ: ২০১৮-০৬-১৩ ৭:৫৫:৫৮ পিএম     ||     আপডেট: ২০১৮-০৬-১৩ ৭:৫৫:৫৮ পিএম
ফাইল ফটো
Walton AC 10% Discount

আবু বকর ইয়ামিন: পবিত্র ঈদুল ফিতরের ছুটি কাটাতে ইতোমধ্যে বাড়ী ফিরতে শুরু করেছেন বিভিন্ন অঞ্চলের লোকজন। রাজধানী থেকে দক্ষিণবঙ্গ অঞ্চলে যাওয়ার প্রধান বাস টার্মিনাল সায়েদাবাদ।

তবে এখনো খুব একটা ভিড় নেই সায়েদাবাদ বাস টার্মিনালে। লোকজন আসছেন, স্বাভাবিকভাবে টিকিট কেটে বাড়ি যাচ্ছেন তারা। বুধবার দুপুর পর্যন্ত সায়েদাবাদ বাস টার্মিনালে এ চিত্র লক্ষ্য করা যায়।

তবে পরিবহন সংশ্লিষ্টরা বলছেন, এ অবস্থা হয়তো আজ এবং কাল দুপুর পর্যন্ত বিরাজ করতে পারে। এরপর ভিড় বাড়তে পারে। মহাসড়কে বড় মাপের কোনো যানজট না থাকায় সিলেট-চট্টগ্রাম রুটের গাড়িগুলো নির্ধারিত সময়েই টার্মিনালে পৌঁছাতে পারছে।

শ্যামলী পরিবহনের কাউন্টার ম্যানেজার ফজলে রাব্বি বাবু বলেন, ‘সায়েদাবাদ থেকে সিলেট, চট্টগ্রাম, সুনামগঞ্জ, টেকনাফ, কক্সবাজার, রাঙ্গামাটি, বান্দরবান, খাগড়াছড়িসহ দক্ষিণবঙ্গের বিভিন্ন অঞ্চলে তাদের গাড়ি যায়। তবে এখনো ঈদের তেমন আমেজ নেই। যাত্রীর তেমন কোনো চাপ নেই। যাত্রী হচ্ছে আর আমরা গাড়ি ছাড়ছি। স্বাভাবিক অবস্থায় রয়েছে। মনে হচ্ছে আগামীকাল থেকে চাপ বাড়বে। এখন পর্যন্ত কোনো রুটে জ্যাম নেই।’

টিকিটের দাম আগে যেমন ছিল এখনো তাই-ই আছে বলে জানান বাবু।

ইউনিক পরিবহনের সেলস ম্যানেজার নুর নবী বলেন, ‘কাউন্টারে কোনো ভিড় নেই। আগামীকাল দুপুরের পর থেকে ভিড় বাড়তে পারে। আমরা অগ্রিম টিকিট ছেড়ে দিয়েছি। তবে কিছু সিট বাকি আছে। যাত্রী এলে সেগুলোতে বুকিং দিচ্ছি। অতিরিক্ত লোক এলে আগের গাড়ি ছাড়ার পর আমরা পরের গাড়ি দিচ্ছি। সম্প্রতি ঢাকা চট্টগ্রাম মহাসড়কে তীব্র জানজটের ঘটনায় সিলেটের তুলনায় চট্টগ্রামের চাহিদায় ভাটা পড়ছে।’

হানিফ পরিবহনের কাউন্টার মাস্টার সালাহউদ্দিন বলেন, ‘ভাই, একসপ্তাহ আগে ঈদ সার্ভিস শুরু করেছি। অন্যদিনের তুলনায় আজকে একটু যাত্রী বেশি আসছে। কিন্তু কাউন্টারে কোনো ঝামেলা নেই। একদম ফাঁকা। কোনো ভিড় নেই। সবকিছু স্বাভাবিক আছে। সিলেট অঞ্চলের মহাসড়কে এখন পর্যন্ত কোনো সমস্যা নেই। তবে চট্টগ্রাম মহাসড়কে সামান্য জ্যাম আছে।’

এনা কাউন্টারের সেলস এক্সিকিউটিভ আমজাদ হোসেন বলেন, ‘গত দুইদিন থেকে আমাদের ঈদের সার্ভিস চলছে। রাস্তায় তেমন কোনো জ্যাম নেই্। রাস্তাঘাট মোটামুটি ক্লিয়ার। আমরা মূলত সায়েদাবাদ থেকে ফেনী ও চট্টগ্রাম যাই। এখন পর্যন্ত কোনো ভিড় দেখছি না। আশা করছি কাল থেকে যাত্রী বাড়বে।’

কথা হয় চট্টগ্রামের যাত্রী আবু রায়হানের সঙ্গে। তিনি বলেন, ‘আমি আগে টিকিট কাটতে পারিনি। ভেবেছিলাম এসে টিকিট পাবো কি না। কিন্তু কোনো সমস্যা হয়নি। শুনছি কাঁচপুরে সামান্য জ্যাম আছে। এছাড়া তেমন কোনো সমস্যা নেই।’

সিলেটের যাত্রী খালিদ ফারহান বলেন, ‘টিকিট পেতে কোনো সমস্যা হয়নি। এবার শান্তিপূর্ণভাবে বাড়ি যেতে পারলেই হলো।’

 

 

রাইজিংবিডি/ঢাকা/১৩ জুন ২০১৮/ইয়ামিন/শাহনেওয়াজ

Walton AC
     
Walton AC
Marcel Fridge