ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ৯ অগ্রহায়ণ ১৪২৪, ২৩ নভেম্বর ২০১৭
Risingbd
সর্বশেষ:
তিব্বতের স্বাধীনতার দাবি ত্যাগ করলেন দালাই লামা        সর্বত্র বাংলা ভাষার প্রচলনে হচ্ছে ‘ভাষানীতি’        ‘রোহিঙ্গাদের ওপর নির্যাতন মানবতাবিরোধী অপরাধ’        কেরানীগঞ্জে ৩০০ মেগাওয়াটের বিদ্যুৎকেন্দ্র করবে যুক্তরাষ্ট্র        ‘গণতন্ত্র অব্যাহত রাখতে সেনাবাহিনী অবদান রাখবে’        মির্জা ফখরুলের দুই মামলা হাইকোর্টে স্থগিত        রোহিঙ্গা ফেরতে বাংলাদেশ-মিয়ানমার সমঝোতা স্মারক স্বাক্ষর        ২ কোটি টাকার বেশি থাকলে দিতে হবে সারচার্জ        মিয়ানমার সেনাবাহিনীর বিরুদ্ধে নিষেধাজ্ঞার হুমকি যুক্তরাষ্ট্রের        মিয়ানমারের সেনাবাহিনীর সঙ্গে ঘনিষ্ঠ সম্পর্ক চায় চীন       

হাসপাতালে ৪০ শতাংশ নারী হয়রানির শিকার হন: অ্যাকশন এইড

আহমদ নূর : রাইজিংবিডি ডট কম
 
   
প্রকাশ: ২০১৭-০৭-১৬ ৪:৪৩:১১ পিএম     ||     আপডেট: ২০১৭-০৭-১৮ ৬:০৪:১২ পিএম

নিজস্ব প্রতিবেদক : হাসপাতালে সেবাগ্রহীতা ৪০ শতাংশ নারী হয়রানির শিকার হন বলে জানিয়েছে বেসরকারি উন্নয়ন সংস্থা অ্যাকশন এইড।

রোববার ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটিতে (ডিআরইউ) ‘মানসম্মত গণসেবা’ বিষয়ক মতবিনিময় সভায় নিজেদের করা এক গবেষণা প্রতিবেদনের বরাত দিয়ে এ কথা জানায় সংস্থাটি।

অ্যাকশন এইড জানায়, ৪০ দশমিক ২ শতাংশ নারী হাসপাতালের সেবা প্রদানকারীদের কাছ থেকে খারাপ ব্যবহার পান। ১৫ শতাংশ নারী মনে করেন, তারা হাসপাতালে কোনো না কোনোভাবে শারীরিক বা মানসিক নির্যাতনের শিকার হন। বাজারে গিয়ে অনাকাঙ্ক্ষিত স্পর্শের শিকার হন ৫০ শতাংশ নারী।

নারীর প্রতি সহিংসতা নিরসনে গৃহীত উদ্যোগের ফল যাচাই করতে খুলনা, রাজশাহী, চট্টগ্রাম ও নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশন এলাকায় এ জরিপভিত্তিক গবেষণা চালায় অ্যাকশন এইড। স্থানীয় পুলিশ প্রশাসন, সিটি করপোরেশন, পরিবহন, বাজার ও হাসপাতালকে জরিপে মুখ্য ক্ষেত্র হিসেবে ধরা হয়।

মতবিনিময় সভায় অ্যাকশন এইডের ম্যানেজার নুজহাত জাবিন নিজের অভিজ্ঞতা তুলে ধরে বলেন, নারীর প্রতি সহিংসতা প্রতিরোধে তেমন কোনো ব্যবস্থা নেওয়া হচ্ছে না।

তিনি বলেন, জরিপকৃত এলাকার ৩০ শতাংশ নারী জানিয়েছেন, থানায় গিয়ে তারা উত্যক্তের শিকার হন। ৩৫ শতাংশ নারী মনে করেন, তারা শারীরিক নির্যাতনের শিকার হয়েছেন।

অন্তর্ভুক্তিমূলক জেন্ডার সংবেদনশীল গণসেবা কাঠামোর দাবি জানান নুজহাত জাবিন। তিনি বলেন, গণসেবা কাঠামোর মধ্যে থাকবে- নাগরিক সেবাকে বাণিজ্যিক না করে সরকারি প্রতিষ্ঠানের মাধ্যমে নিশ্চিত করা, প্রতিষ্ঠানগুলোকে জবাবদিহিতার আওতায় আনা, স্বচ্ছ ও জেন্ডার সংবেদনশীল বাজেট প্রণয়ন, স্থানীয় পর্যায়ে সম্পদ সমান হারে বণ্টন করতে ক্ষমতার বিকেন্দ্রীকরণ করা।

নুজহাত জাবিন আরো বলেন, এখন পর্যন্ত সিটি করপোরেশনের নীতিমালায় নারী কাউন্সিলরদের প্রতি বিশেষ কোনো দিকনির্দেশনা নেই। এ ছাড়া নারীদের আলাদা বসার জায়গা, আলাদা টয়লেট সুবিধা নেই। এমনকি শিশুদের মায়ের দুধ খাওয়ানোর জন্য আলাদা কোনো স্থান নেই। ফলে শিশুদের টিকাদানের সময় সমস্যায় পড়তে হয়।

মতবিনিময় সভায় আরো উপস্থিত ছিলেন- অ্যাকশন এইডের পরিচালক আসগর আলী সাবরি, গণতান্ত্রিক বাজেট আন্দোলনের চেয়ারম্যান প্রতিমা পাল মজুমদার প্রমুখ।



রাইজিংবিডি/ঢাকা/১৬ জুলাই ২০১৭/নূর/রফিক

Walton
 
   
Marcel