ঢাকা, মঙ্গলবার, ৪ আষাঢ় ১৪২৬, ১৮ জুন ২০১৯
Risingbd
সর্বশেষ:
সিরিয়া গৃহযুদ্ধ

৪ বছর পর দারায়া ছেড়ে মুক্তির নিঃশ্বাস

: রাইজিংবিডি ডট কম
     
প্রকাশ: ২০১৬-০৮-২৭ ৩:০৯:৫২ এএম     ||     আপডেট: ২০১৬-০৮-২৭ ১০:১৬:৩৯ এএম
Walton AC 10% Discount

আন্তর্জাতিক ডেস্ক : চার বছর পর মুক্তির নিঃশ্বাস নিতে পেরেছে সিরিয়ার দারায়া শহরে অবরুদ্ধ হয়ে থাকা বেসামরিক লোকজন এবং কয়েক শত বিদ্রোহীযোদ্ধা।

 

সরকারি বাহিনীর নিয়ন্ত্রণে অবরুদ্ধ থাকা লোকজনকে সরিয়ে নিতে একটি চুক্তি সম্পন্ন হওয়ার পর শুক্রবারই শুরু হয় শহর ছেড়ে যাওয়া।  

 

সিরিয়ার রাজধানী দামেস্কোর পাশের শহর দারায়া। সেখান থেকে লোকজন নিয়ে প্রথম দফায় বাসগুলো দামেস্কো পৌঁছেছে। সঙ্গে ছিল কয়েকটি অ্যাম্বুলেন্স এবং রেড ক্রিসেন্টের গাড়ি।

 

বিবিসি অনলাইনের এক খবরে এ তথ্য জানানো হয়েছে।

 

২০১২ সালে দারায়া শহর ঘিরে ফেলে সিরিয়া সরকারের নিয়ন্ত্রণে থাকা সামরিক বাহিনী। সেই থেকে এখন পর্যন্ত এ চার বছরে মাত্র একবার ত্রাণসামগ্রী পৌঁছেছে শহরটিতে।

 

এএফপির বরাত দিয়ে বিবিসি জানিয়েছে, দারায়া থেকে ছেড়ে আসা প্রথম বাসটিতে আনা হয়েছে মূলত শিশু, নারী ও বয়স্ক লোকদের।

 

সিরিয়ার রাষ্ট্রীয় গণমাধ্যমের তথ্যানুসারে, চুক্তি অনুযায়ী এ শহর থেকে ৭০০ সশস্ত্র লোক (বিদ্রোহী) এবং ৪ হাজার বেসামরিক লোককে সরিয়ে নেওয়া হবে। বিদ্রোহীদের ইদলিবে যেতে নিরাপদ পথ দেওয়া হবে এবং বেসরকারি লোকজন সরকারি আশ্রয়ে দামেস্কোয় থাকবে।

 

উল্লেখ্য, ইদলিবে প্রেসিডেন্ট বাশার আল-আসাদের বিরোধী বিদ্রোহীযোদ্ধাদের শক্ত অবস্থান রয়েছে। ফলে বিদ্রোহীরা দারায়া থেকে সেখানে যাবে।

 

সিরিয়াবিষয়ক জাতিসংঘের বিশেষ দূত স্ট্যাফান ডি মিস্তুরার অফিস থেকে সতর্কতা উচ্চারণ করে বলা হয়েছে, সরিয়ে নেওয়া দারায়ার লোকজনের নিরাপত্তা পাওয়ার বিষয়টি ঐচ্ছিক, যা স্বেচ্ছাসেবার মাধ্যমে হচ্ছে।

 

মিস্তুরার অফিস থেকে এক বিবৃতিতে বলা হয়েছে, দারায়া থেকে লোকজনকে সরিয়ে নেওয়ার পরিকল্পনার সঙ্গে জাতিসংঘ যু্ক্ত নয়, এমন কি তাদের সঙ্গে পরামর্শও করা হয়নি। তবে এতে বলা হয়েছে, বিষয়টি ‘পর্যবেক্ষণ করছে বিশ্ব।’

 

কয়েক বছর ধরে দারায়ার লোকজনের অনেকে গোলার আঘাতের মুখে পড়েছেন। খাদ্য, পানি ও বিদ্যুতে প্রকট অভাবে ভুগেছেন তারা।

 

শহর ছেড়ে এসেছেন, এমন অনেকে বলেছেন, বসবাসের অনুপযোগী হয়ে পড়েছে দারায়া। দামেস্কো থেকে বেশি দূরে নয় শহরটি। সেখান থেকে বিদ্রোহীদের চলে যাওয়া মানে, সরকারি বাহিনীর শক্তি বৃদ্ধি পাওয়া।

 

যুক্তরাষ্ট্রের পররাষ্ট্রমন্ত্রী জন কেরি এবং রাশিয়ার পররাষ্ট্রমন্ত্রী সের্গেই ল্যাভরভ সিরিয়া ইস্যুতে জেনেভায় বৈঠক করার পর বিদ্রোহী ও বেসামরিক লোকজন দারায়া ছেড়ে যাওয়া শুরু করে।

 

সিরিয়ার আলেপ্পো প্রদেশে সরকারি বাহিনী ও বিদ্রোহীদের মধ্যে সাম্প্রতিক সময়ে তুমুল যুদ্ধে কয়েক শত মানুষ নিহত হয়েছে। সেখানে সাময়িক যুদ্ধবিরতি কার্যকর করার বিষয়ে আলোচনা চালিয়ে যাচ্ছেন জন কেরি ও সের্গেই ল্যাভরভ।

 

 

রাইজিংবিডি/ঢাকা/২৭ আগস্ট ২০১৬/রাসেল পারভেজ

Walton AC
     
Walton AC
Marcel Fridge