ঢাকা, মঙ্গলবার, ১০ আশ্বিন ১৪২৫, ২৫ সেপ্টেম্বর ২০১৮
Risingbd
সর্বশেষ:

আবার যদি ইন্দোনেশিয়া ভ্রমণের সুযোগ পাই

(ভিয়েতনামের পথে: ৪৩তম পর্ব)

ফেরদৌস জামান: পথের পাশ দিয়ে ঘরবাড়ি এবং তার সামনে দেবদারু ও কাঠগোলাপ বা কাঁঠালচাপা জাতীয় গাছের সারি।

মেয়েরা ঠিক যেখানে টিপ পরে

(ভিয়েতনামের পথে: ৪২তম পর্ব)

ফেরদৌস জামান: দুই জনের মাথায় দুইটি হেলমেট, ফুটফুট শব্দে এগিয়ে চলছে আমাদের স্কুটি। এই ফুটফুটির স্বপ্ন সেই থাইল্যান্ডের পাই থেকে।

লাল শাপলার সাতলা বিল

খায়রুল বাশার আশিক : একটি পিচঢালা পথ চলে গেছে গ্রামের শেষ মাথায়। পথের একপাশে সন্ধ্যা নদী, অন্যপাশে লাল শাপলার গালিচা।

এক ডাবের মূল্য তের হাজার রুপাইয়া

(ভিয়েতনামের পথে: ৪১তম পর্ব)

ফেরদৌস জামান: আজ কোনো তাড়া নেই। সব কিছুর আগে চাই ঝরঝরে একটা গোসল। থাইল্যান্ড, মালয়েশিয়া এবং ইন্দোনেশিয়া এই তিন দেশের মধ্যে একটি বিষয়ে দারুণ মিল আছে, যে মিল খুঁজতে হলে প্রবেশ করতে হবে গোসলখানায়।

একশ ডলার ভাঙিয়ে পেলাম তের লাখ সাতচল্লিশ হাজার...

(ভিয়েতনামের পথে: ৪০তম পর্ব)

ফেরদৌস জামান: বিমান সময় মতো ছেড়ে দিলো এবং কিছুক্ষণের মধ্যেই গোলযোগপূর্ণ আবহাওয়ায় পড়লাম। এক পেয়ালা কফির কথা বলে মাত্র প্রস্রাবখানায় গিয়েছি অমনি কাঁপাকাঁপি শুরু হয়ে গেল।

মালয়েশিয়ায় দুষ্কর্মে বাঙালির বদনাম

(ভিয়েতনামের পথে: ৩৯তম পর্ব)

ফেরদৌস জামান: তাড়াহুড়ো নেই, হাতে পর্যাপ্ত সময় আছে। তাছাড়া এই বিলাসবহুল এলাকা বা দালানকোঠা দেখে বেড়ানোর ইচ্ছাটাও অতো প্রবল নয়।

মালয়েশিয়ায় রসগোল্লার খোঁজে

(ভিয়েতনামের পথে: ৩৮তম পর্ব)

ফেরদৌস জামান: ভ্রমণ পরিকল্পনার শুরুর দিক থেকেই মনের মধ্যে এক ধরনের শঙ্কা কাজ করছিল- মালয়েশিয়াতে ঢুকতে পরব তো? পত্র-পত্রিকায় এ বিষয়ে লেখালেখিও হয়েছে বেশ।

জয় করতে নয়, ক্ষমা চাইতে আসবো চূড়ায়

(কাঞ্চনজঙ্ঘার সোনালী আলোয়: শেষ পর্ব)

ইকরামুল হাসান শাকিল: উপরের দিকে তাকিয়ে দেখি মুহিত ভাই ও বিপ্লব ভাই ঝুলে আছে। এক পা, দু’পা করে স্টেপ দিয়ে কিছুক্ষণ দাঁড়িয়ে দম নিচ্ছে। 

আমি একটা পাহাড় কিনতে চাই

(কাঞ্চনজঙ্ঘার সোনালী আলোয়: ৭ম পর্ব)

ইকরামুল হাসান শাকিল: রাত ১০.৩০ মিনিট। দা কিপা আমাদের ডেকে ওঠালেন। যদিও কথা ছিলো রাত ১২ টার সময় আমরা ঘুম থেকে উঠে সামিটের জন্য প্রস্তুতি নেবো।

সতের হাজার ফুট উচ্চতার সেই রাত!

(কাঞ্চনজঙ্ঘার সোনালী আলোয়: ষষ্ঠ পর্ব)

ইকরামুল হাসান শাকিল: ফিরে আসার আগ পর্যন্ত একদম যোগাযোগ বন্ধ। তাই একটু কষ্টও লাগলো। এই কয়দিনে কতো আপন হয়ে গেছি একে অপরের।

পাহাড় চূড়ায় শান্তির প্রতীক

গাজী মুনছুর আজিজ : বেশ কিছুটা পাহাড়ি পথের সিঁড়ি বেয়ে আসি ‘বিশ্ব শান্তি’ নামক প্যাগোডার আঙ্গিনায়।

পার্ক সার্কাস: কলকাতা ক্রোমোজম

|| সাদিয়া মাহ্‌জাবীন ইমাম ||

ভিসিআর-এর সাদাকালো যুগে খুব রঙিন রঙিন দৃশ্য থাকত। বিটিভি-তে সপ্তাহান্তে ইংরেজি মুভি, দু'দিন ‘জঙ্গল বুক'।

বান্দরবানে যত দর্শনীয় স্থান

কাজী আশরাফ: আমার প্রতিবারই মনে হয়, কক্সবাজার আসলে অলসদের বেড়ানোর জায়গা। এটি ব্যক্তিগত মত, সুতরাং গায়ে মাখবেন না।

ঢাকা এবং এর পাশে বেড়ানোর জায়গা

ইকরামুল হাসান শাকিল : ঈদের ছুটিতে কর্মব্যস্ত নগরী ঢাকা অনেকটাই ফাঁকা হয়ে গেছে। প্রিয়জনদের সাথে ঈদের আনন্দ ভাগ করে নিতে শহুরের কোলাহল ছেড়ে ঢাকা ছেড়েছেন অনেকেই।

ঈদে ভ্রমণের আগে সতর্কতা

ইকরামুল হাসান শাকিল : ঈদের ছুটিতে অনেকেই পরিবার অথবা বন্ধুদের নিয়ে প্রিয় জায়গায় বেড়াতে যাবেন।