ঢাকা, শনিবার, ৮ আশ্বিন ১৪২৪, ২৩ সেপ্টেম্বর ২০১৭
Risingbd
সর্বশেষ:

নীল আকাশের নিচে রাস্তা চলেছেন একা || তাপস রায়

‘তুমি অভিনয় করতে চাও। কিন্তু এভাবে ক্যান নিয়ে ঘুরে বেড়ালে তো হবে না। তোমাকে বেছে নিতে হবে। নইলে সারাজীবন ওই অ্যাসিস্টেন্টই রয়ে যাবে।’

রাজ্জাক আঙ্কেল আমার দায়িত্ব নিতে চেয়েছিলেন || অপু বিশ্বাস

অপু বিশ্বাস : ২০০৫ সালে আমি তখন ক্লাস নাইনে পড়ি। বান্ধবীদের ইচ্ছায় লাক্স ফটো সুন্দরী প্রতিযোগিতায় অংশ নিলাম।

রুপালি পর্দার নায়ক || টোকন ঠাকুর

ক্লাস ফোরে পড়া এক ছাত্র তার ছোটকাকার সঙ্গে প্রথম সিনেমা দেখতে যাচ্ছে। সিনেমা হলের নাম 'ছবিঘর'। 'ছবিঘর' প্রেক্ষাগৃহ অবস্থিত গীতাঞ্জলি সড়কে, ঝিনেদা শহরে।

ছাত্রের মতো ভেতরে নায়করাজকে ধারণ করেছিলাম || খুরশীদ আলম

ফারুক রহমান পরিচালিত ‘আগন্তুক’ সিনেমায় নায়কের ভূমিকায় অভিনয় করেন বর্ষীয়ান অভিনেতা নায়করাজ রাজ্জাক। তার লিপের গান ছিল সেটি।

আমরা গল্প করে নিজেদের মধ্যে সম্পর্ক তৈরি করেছিলাম || সুচন্দা 

১৯৬৬ সালে ‘কাগজের নৌকা’ সিনেমার মাধ্যমে আমার চলচ্চিত্রে অভিষেক। এরপর ১৯৬৭ সালে ‘বেহুলা’ সিনেমায় কাজ করি।

নায়করাজের সেরা ১০ গান

হোসাইন মোহাম্মদ সাগর: উত্তম কুমার হবার স্বপ্ন চোখে নিয়ে মুম্বাইয়ের রঙিন হাতছানি দূরে সরিয়ে রেখে রিফিউজির বেশে এই দেশে এসে ৬৫ টাকার ভাড়া বাড়িতে থেকে জীবন সংগ্রাম শুরু করেছিলেন আজকের কিংবদন্তি নায়করাজ রাজ্জাক।

কিংবদন্তির পায়ের ধুলো আমার পাথেয় || রিয়াজুল রিজু

‘বাপজানের বায়োস্কোপ’ নির্মাণের পর গত দুই বছর যে নিদারুণ অর্থ কষ্ট এবং অপমানের ভেতর দিয়ে কেটেছে সে গল্প বলতে গেলে একটা উপন্যাস লিখতে হবে।

রাজ্জাক স্যারের সেদিনের কথা আজ বুঝতে পারি || পরীমনি

পরীমনি : ২০১৪ সালে আমি ঢাকাই সিনেমায় নাম লিখিয়েছি। তখন পরপর চারটি সিনেমার কাজ শুরু করি। কোনো সিনেমার কাজই তখন শেষ হয়নি।

হায়রে মানুষ রঙিন ফানুস দম ফুরালেই ঠুস || ছটকু আহমেদ

আমার নির্মীয়মান ‘দলিল’ ছবির গান নিয়ে বসেছিলাম প্রখ্যাত সুরকার আলাউদ্দিন আলীর বাসায়।

এত খ্যাতি, পরিচিতি, এতটুকু কলঙ্ক নেই || রেজাউদ্দিন স্টালিন

নায়করাজ রাজ্জাকের কথা মনে হলে আমার একটি ঘটনার কথা মনে পড়ে যায়। ২০০২ সাল।

চলচ্চিত্রাভিনয়ে একটি অধ্যায়ের সমাপ্তি || চিন্ময় মুৎসুদ্দী

রাজ্জাকের মৃত্যুতে বাংলাদেশের চলচ্চিত্রাভিনয়ে একটি অধ্যায় সমাপ্ত হলো। দীর্ঘতম সময় তিনি দাপটের সঙ্গে অভিনয় করেছেন।

রাজ্জাক ভাই মেন্টর, দার্শনিক ছিলেন || ববিতা

রাহাত সাইফুল : সোমবার না ফেরার দেশে চলে গেছেন বাংলা চলচ্চিত্রের কিংবদন্তি নায়করাজ রাজ্জাক। তার মৃত্যুর খবরে হতবাক হয়ে পড়েছেন তার ভক্তরা।

এক্সট্রা থেকে নায়করাজ || মুম রহমান

আব্দুর রাজ্জাককে কেউ চিনতো না। অথচ তার জন্মই হয়েছে টালিউডে। টালিউড মানে কলকাতা, তথা ভারতের চলচ্চিত্রের আঁতুর ঘর।