ঢাকা, বুধবার, ৩ আশ্বিন ১৪২৫, ১৯ সেপ্টেম্বর ২০১৮
Risingbd
সর্বশেষ:

সবসময় আমার ইচ্ছা ছিল ৯২ বছর বাঁচব: মুর্তজা বশীর

মুর্তজা বশীর। বাবা জ্ঞানতাপস ড. মুহম্মদ শহীদুল্লাহ, মা মরগুবা খাতুন। স্বাভাবিকভাবেই এদেশের শিক্ষা, সংস্কৃতির অন্দরমহলে কেটেছে তাঁর শৈশব।

সে এক ঢাকাযাত্রার গল্প || রফিকুর রশীদ

লোকটাকে কিছুতে ঠেকানো গেল না, সে ঢাকা যাবেই, তার চোখমুখের অভিব্যক্তি দেখে বেশ স্পষ্ট বুঝা যায় এখনই ঢাকার উদ্দেশে রওনা না-হলেই নয়; যত দ্রুত সম্ভব ঢাকায় তাকে পৌঁছুতেই হবে।

শেষ পর্যন্ত লেখক নিজেই নিজের মিথ: ভি এস নাইপল

‘এটি ছিল আমার জন্য বিষাদগ্রস্ত। গভীর দুঃখ অনুভব করেছিলাম।’ স্যার ভি এস নাইপল তার মৃত বিড়াল নিয়ে কথা বলছেন।

যেভাবে আমি মিগ্যেল স্ট্রিট ছাড়লাম

মা বলেছিল, ‘তুই এখানে থেকে বড্ড ইঁচড়েপাকা হয়ে যাচ্ছিস। আমার মনে হয় এখন তোর এখান থেকে চলে যাওয়ার উপযুক্ত সময়।’

‘কাঁটা’ সিনেমার গাড়িটা...|| টোকন ঠাকুর

বিমল ট্যাক্সি ড্রাইভার। ছোট মফস্বলে একা থাকেন তিনি। ‘১৯২০ সার্ভোলেট জালোপি’ ট্যাক্সিটির নাম রেখেছিলেন ‘জগদ্দল’। এই ট্যাক্সিটিই বিমলের একমাত্র সঙ্গী।

আরবদের স্বর্ণযুগে অনুবাদযজ্ঞ

|| রশিদ আত্তার ||

প্রাচীনকালে ইউরোপীয় দর্শনের চর্চা ছিল মূলত গ্রিক ভাষায়। এমনকি রোমানরা ভূমধ্যসাগরীয় অঞ্চলের দখল নেয়ার পর, মূর্তিপূজার চর্চা ক্ষয়িষ্ণু হয়ে আসার পরও দর্শনচর্চা গভীরভাবে হেলেনিয়া সংস্কৃতির সঙ্গে জড়িয়ে ছিল।

বাংলা সাহিত্যে রবীন্দ্রনাথের উত্তরপ্রভাব

আধুনিক বাংলা কবিতায় রবীন্দ্রনাথের প্রভাব সম্পর্কে আলোচনা করতে গিয়ে বুদ্ধদেব বসু লিখেছেন: ‘‘রবীন্দ্রনাথে কোনো বাধা নেই- আর এইখানেই তিনি সবচেয়ে প্রতারক

মহাদেব সাহার কবিতা: সৌন্দর্য অন্বেষণ

সাইফুজ্জামান : এমন সময় আসে যখন কবিতা ঐক্যবদ্ধ করে জাতিকে। ষাট দশকের কবি সারথীরা চল্লিশের দেশভাগ পরবর্তী বিপর্যয়, রাজনৈতিক অস্থিরতা

হীরা-দ্যুতি বাংলা চলচ্চিত্রের পাথেয়

||কমলেশ রায়||
‘সেন’ শব্দটার প্রতি দুটি কারণে বিশেষ আগ্রহ। বোধকরি কমবেশি সবার, বাঙালি মাত্রই। এক. বনলতা সেন, দুই. সুচি

বাড়ি বদলালেন দরবারী রমাপদ চৌধুরী

কমলেশ রায়

অনেক দিক দিয়েই তিনি ছিলেন আলাদা। আর পাঁচজনের থেকে স্বতন্ত্র। একবারে ব্যতিক্রম। তরুণ বয়সেই পেয়েছিলেন আকাশ-ছোঁয়া পাঠকপ্রিয়তা।

হতাশ হলে, তার জীবনের কোনো মূল্য নাই: সত্যরঞ্জন মৈত্র

বিপ্লবী সত্যরঞ্জন মৈত্র ‘মোমেন ভাই’ নামেও পরিচিত ছিলেন। তখন ব্রিটিশবিরোধী আন্দোলন।

ডায়াসপোরা সাহিত্যের আন্তর্জাতিক গ্রহণযোগ্যতা-বিতর্ক

|| মোজাফ্‌ফর হোসেন ||
বেশ কয়েক বছর থেকে ইউরোপ এবং আমেরিকায় ডায়াসপোরা লেখকদের রাজত্ব চলছে। এক্ষেত্রে আমরা দেখছি স্বদেশ বা পিতৃমাতৃভূমের চেয়ে ইউরোপ-আমেরিকায় তাঁদের গ্রহণযোগ্যতা বেশি।

হেমিংওয়ের ছোটগল্প: এক পাঠকের লেখক

সে তার শোবার ঘরের টেবিলে বসেছিলো, ভাঁজ করা খবরের কাগজটা তার সামনে খুলে রেখেছে যেন জানালার বাইরের তুষারপাত আর ছাদের ওপর তার গলে যাওয়া দেখতে না হয়।

অনন্তের মুখোমুখি শূন্যতায় হেমিংওয়ে

মানুষকে ধ্বংস করা যেতে পারে, পরাজিত নয়- আর্নেস্ট হেমিংওয়ে

হুমায়ূন-এর প্রথম প্রহর

সময়টা সঠিক মনে নেই। ১৯৮৩ সালের গোড়ার দিকের কথা। অধ্যক্ষ ইবরাহীম খাঁর ‘পাখির বিদায়’ গল্পের নাট্যরূপ দিয়েছিলেন ড. আলাউদ্দিন আল আজাদ।