ঢাকা, সোমবার, ১১ আষাঢ় ১৪২৫, ২৫ জুন ২০১৮
Risingbd
সর্বশেষ:

বিচারের আশায় মালেক প্যাদা

রফিকুল ইসলাম মন্টু: কথা বলতে গিয়ে জ্ঞান হারিয়ে মাটিতে লুটিয়ে পড়লেন খাদিজা বেগম। শোনাচ্ছিলেন নিজের হাতে সাজানো গোছানো বাড়ি থেকে উচ্ছেদের হৃদয়বিদারক সেই গল্পটা।

রোজ গার্ডেন থেকে বঙ্গবন্ধু এভিনিউ

শাহ মতিন টিপু : পুরনো ঢাকার হৃষিকেশ দাস লেনে বলধা গার্ডেনের সামান্য দূরত্বে ১৯৩১ সালে নির্মিত হয়েছিল প্রাসাদসম ভবন রোজ গার্ডেন।

স্মরণ : কবি রুদ্র মুহম্মদ শহীদুল্লাহ

শাহ মতিন টিপু: দীর্ঘশ্বাস নিয়ে যেতে হয়/সবাইকে/অজানা গন্তব্যে/হঠাৎ ডেকে ওঠে নাম না জানা পাখি/অজান্তেই চমকে উঠি/জীবন, ফুরালো নাকি!/এমনি করে সবাই যাবে, যেতে হবে…

পীরগঞ্জের ঐতিহ্যবাহী ধামের পূজা

আমিনুর রহমান হৃদয়:  কেউ এসেছেন ব্যবসায় উন্নতি লাভের আশায়, কেউ রোগের মুক্তি লাভের আশায়, কেউবা সন্তান পাওয়ার আশায়।

ছকিনা বিবির ভাঙা ঘর, ভাঙা কপাল

রফিকুল ইসলাম মন্টু: ছকিনা বিবির কপাল ভাঙলো বিনা কারণে। তবে তার একমাত্র কন্যা রেশমা বেগমকে স্বামীর নির্যাতন সইতে হচ্ছে জোড়া গাভীর দাবিতে।

গাঙ ভাসায়, গাঙ বাঁচায়!

রফিকুল ইসলাম মন্টু: গাঙ ভাসায়, গাঙ বাঁচায়! গাঙের তীরেই বসতি। ক্রমাগত বাঁক বদলানো গাঙ নিঃস্ব করে বহু মানুষকে।

মেঘনায় ইলিশ নেই, ঈদও নেই

জুনাইদ আল হাবিব : ‘৩ লাখ ৮ হাজার টিয়া চালান খাটিয়ে নতুন নাও বানাইছি। নতুন করে গাঙ্গে যামু, বড় বড় ইলিশ ধরমু, কপাল ফিরব, পোলাপাইন নিয়া ঈদ করমু।

‘পুরোনো কাপড়েই এবার ঈদ করতে হবে’

আমিনুর রহমান হৃদয় : সাপের খেলা দেখিয়ে মানুষকে তারা আনন্দ দেয়। তাদের নেই কোনো স্থায়ী জমি, নেই স্থায়ী থাকার মতো ঘর।

রক্তের প্রয়োজনে নিঝুম ব্লাড ফাউন্ডেশন

ছাইফুল ইসলাম মাছুম : যেখানেই রক্তের প্রয়োজন, সেখানেই ছুটে যান তারা। স্বেচ্ছাশ্রমে মুমূর্ষু রোগীদের রক্ত সংগ্রহ করে দিয়ে বাঁচিয়ে তোলেন প্রাণ।

প্রতিকূলে পাতিলা, বৈরিতায় বসবাস!

রফিকুল ইসলাম মন্টু : আকাশজুড়ে কালো মেঘ। ঝড়ের আশঙ্কা। হঠাৎ বেড়ে গেল বাতাস। ঘরমুখো মানুষের ছোটাছুটি। অবশেষে বৃষ্টি নামলো প্রবল বেগে।

ছেলেকে নিয়ে মায়ের গর্ব

ডেস্ক রিপোর্ট : লিমনচন্দ্র পাল (অফিস আইডি-২০৮১৩)।তিনি ওয়ালটন সার্ভিস ম্যানেজমেন্ট সিস্টেম বিভাগে কর্মরত।

‘ওয়ালটন কর্মীর পরিবারের খোঁজখবরও রাখে’

ডেস্ক রিপোর্ট: মো. আব্দুল রাজ্জাক (অফিস আইডি-১৭১৯১)। তিনি ওয়ালটন সার্ভিস ম্যানেজমেন্ট সিস্টেম বিভাগে কর্মরত।

পথে বিনামূল্যে ইফতার

ছাইফুল ইসলাম মাছুম: দীর্ঘ রিকশার সারি। বিভিন্ন বয়সী মানুষ- নারী, পুরুষ। সবার মুখে ক্লান্তির ছাপ। অপেক্ষমাণ তারা।

সামাজিক সচেতনতায় সানজিদা

বেনজির আবরার : আমাদের চারপাশে রয়েছেন এমন অনেক নারী যাদের কাজের কথা ভাবলেই মনে হয়- এ যেন অন্যরকম এক আবহ, অনেক দু:খকে না করে দেবার গল্প।

অনিশ্চিত ইফতারের অপেক্ষায়

ছাইফুল ইসলাম মাছুম : কেউ আছে একা, কেউ পরিবার নিয়ে। রাস্তার ধারে, ঝুপড়িতে, খোলা আকাশের নিচে বসবাস তাদের।