ঢাকা, সোমবার, ৮ কার্তিক ১৪২৪, ২৩ অক্টোবর ২০১৭
Risingbd
সর্বশেষ:

আনোলিয়া গ্রামবাসীর পাশে আ.লীগ, গ্রেপ্তার ১

এমএম আরিফুল ইসলাম : রাইজিংবিডি ডট কম
 
   
প্রকাশ: ২০১৭-০৬-১৯ ১০:১২:৩৬ পিএম     ||     আপডেট: ২০১৭-০৬-২৭ ১০:১১:৩৪ পিএম

নাটোর প্রতিনিধি : নাটোরের সিংড়া উপজেলায় যুবলীগ কর্মীদের হামলায় আহত আনোলিয়া গ্রামবাসীর পাশে দাঁড়িয়েছে উপজেলা আওয়ামী লীগ।

সোমবার দুপুরে উপজেলা আওয়ামী লীগের নেতারা আনোলিয়া গ্রামে গিয়ে গ্রামবাসীর কাছে দুঃখ প্রকাশ করে আহতদের চিকিৎসার খরচ বহনের ঘোষণা দেন। এ ছাড়া যুবলীগ নামধারী সন্ত্রাসীদের বিরুদ্ধে আইনি ব্যবস্থা নেওয়ার আশ্বাস দিয়েছেন তারা।

আনোলিয়া গ্রামবাসীর ওপর হামলার ঘটনায় ১৮ জনের নামে থানায় মামলা দায়ের করা হয়েছে। মামলায় এজাহারভুক্ত আসামি বাধনকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ।

তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলকের নির্দেশে দুপুরে উপজেলার আনোলিয়া গ্রামে যান সিংড়া পৌরসভার মেয়র ও পৌর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক জান্নাতুল ফেরদৌস, উপজেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ও চৌগ্রাম ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান জাহেদুল ইসলাম ভোলা, উপজেলা আওয়ামী লীগের ধর্ম বিষয়ক সম্পাদক ও প্রতিমন্ত্রী পলকের ব্যক্তিগত সহকারী রুহুল আমীন, শেরকোল ইউনিয়নের চেয়ারম্যান লুৎফুল হাবিব রুবেল, উপজেলা যুবলীগের সভাপতি শরিফুল ইসলামসহ ছাত্রলীগের নেতারা।

এ সময় আওয়ামী লীগের নেতাদের মধ্যে সিংড়া পৌরসভার মেয়র জান্নাতুল ফেরদৌস আনোলিয়া গ্রামবাসীর উদ্দেশে বলেন, প্রতিমন্ত্রী পলকের নির্দেশে তারা আনোলিয়া গ্রামে এসেছেন। যুবলীগ নামধারী সন্ত্রাসীদের হামলায় আহতদের চিকিৎসার খরচ প্রতিমন্ত্রী বহন করবেন।

তিনি বলেন, যুবলীগ নামধারী যত বড়ই সন্ত্রাসীই হোক, তাদের বিরুদ্ধে আইনি  ব্যবস্থা নেওয়ার জন্য প্রতিমন্ত্রী নির্দেশ দিয়েছেন। ইতোমধ্যে একজনকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। এ ছাড়া যুবলীগ, ছাত্রলীগ নামধারী কোনো সন্ত্রাসী যাতে কমিটিতে থাকতে না পারেন, সেই কারণে বহিষ্কারের জন্য উপজেলা যুবলীগ নেতাদের নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।

সিংড়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা আব্দুল্লাহ আল মামুন মামলার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, ১৭ থেকে ১৮ জনের নামে আনোলিয়া গ্রামাবাসী থানায় মামলা দায়ের করেছেন। ইতোমধ্যে মামলার এজাহারভুক্ত আসামি বাধন নামের যুবলীগের এক কর্মীকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। অন্য আসামিদের গ্রেপ্তারের জন্য তল্লাশি অব্যাহত রাখা হয়েছে।

পূর্ব বিরোধের জের ধরে রোববার সকাল সাড়ে ৯টার দিকে প্রতিমন্ত্রীর ডাকে সাড়া দিয়ে আনোলিয়া গ্রামবাসী পাঁচ/ছয়টি নমিসনে করে উপজেলা সদরে আসছিলেন। এ সময় খবর পেয়ে জলারবাতা এলাকায় যুবলীগ কর্মী সম্রাট ও কাওছার হোসেনের নেতৃত্বে ১৫-২০ জনের বাহিনী নসিমনের গতিরোধ করে ধারালো অস্ত্র, রড ও লাঠি দিয়ে গ্রামবাসীকে পেটান। এ সময় অন্তত ২০ জন আহত হন। পরে স্থানীয়রা এগিয়ে এসে আহতদের উদ্ধার করে সিংড়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সসহ বিভিন্ন ক্লিনিকে ভর্তি করেন। ঘটনার পরপরই স্থানীয় আওয়ামী লীগের নেতারা গ্রামবাসীকে দেখতে দ্রুত হাসপাতালে ছুটে যান ও চিকিৎসার ব্যবস্থা করেন।




রাইজিংবিডি/নাটোর/১৯ জুন ২০১৭/এম এম আরিফুল ইসলাম/বকুল

Walton
 
   
Marcel