ঢাকা, রবিবার, ১০ আষাঢ় ১৪২৫, ২৪ জুন ২০১৮
Risingbd
সর্বশেষ:

সিসিকের ৭৪৮ কোটি টাকার বাজেট ঘোষণা

নোমান : রাইজিংবিডি ডট কম
 
   
প্রকাশ: ২০১৮-০৬-১২ ৯:২১:১৯ পিএম     ||     আপডেট: ২০১৮-০৬-১২ ৯:২১:১৯ পিএম

নিজস্ব প্রতিবেদক, সিলেট : সিলেট সিটি করপোরেশনের (সিসিক) ২০১৮-১৯ অর্থবছরের জন্য ৭৪৮ কোটি ৬৪ লাখ ৪০ হাজার টাকার বাজেট ঘোষণা করা হয়েছে। যা গত অর্থবছরের তুলনায় ২৫৫ কোটি ৪৮ লাখ ৯৭ হাজার টাকা বেশি।

মঙ্গলবার সন্ধ্যায় নগরীর একটি অভিজাত হোটেলের বলরুমে সংবাদ সম্মেলনের মাধ্যমে এ বাজেট ঘোষণা করেন সিসিক মেয়র আরিফুল হক চৌধুরী। প্রস্তাবিত বাজেটে আয় ও ব্যয় সমান রাখা হয়েছে।

বাজেট বক্তৃতায় মেয়র আরিফ বলেন, পরিকল্পিত নগরায়ন ও নাগরিকদের অধিকতর সুবিধা ও সেবা প্রদান নিশ্চিতকরণে এবারে বাজেটের আকার বেড়েছে। ঘোষিত বাজেটে আয়ের সমপরিমাণ ব্যয়ও ধরা হয়েছে।

হোল্ডিং ট্যাক্সসহ অন্যান্য বকেয়া পাওনা পরিশোধ করলে বাজেট বছরে সিসিকের নিজস্ব খাতে ৮৭ কোটি ৪৮ লাখ ১৫ হাজার টাকা আয় হবে বলে প্রস্তাবিত বাজেটে উল্লেখ করা হয়েছে। এছাড়া বাজেটে আয়ের প্রধানতম খাত হিসেবে হোল্ডিং ট্যাক্স বাবদ ১৭ কোটি ৬৫ লাখ ৪৪ হাজার এবং ব্যয়ের উল্লেখযোগ্য রাজস্ব খাতে সর্বমোট ৬১ কোটি ৪২ লাখ ৫৫ হাজার টাকা ধরা হয়েছে।

এছাড়া আয়ের অন্যতম খাতগুলো হচ্ছে- স্থাবর সম্পত্তি হস্তান্তরের ওপর আরোপিত কর ৮ কোটি টাকা, ইমারত নির্মাণ ও পুনঃনির্মাণের ওপর কর ২ কোটি, পেশা ও ব্যবসার ওপর ৮ কোটি ৫০ লাখ, বিজ্ঞাপনের কর ১ কোটি টাকা, বিভিন্ন মার্কেটের দোকান গ্রহীতার নাম পরিবর্তনের ও নবায়ন ফি’র ওপর ২০ লাখ, বাস টার্মিনাল ইজারা বাবদ আয় ৭৫ লাখ, খেয়াঘাট ইজারা বাবদ আয় ১৫ লাখ, সিটি করপোরেশনের নিজস্ব সম্পত্তি ভাড়া বাবদত ৮০ লাখ, অন্যান্য সংস্থা কর্তৃক রাস্তা কাটার ক্ষতিপূরণ বাবদ আয় ২০ লাখ, বর্জ্য ব্যবস্থাপনায় ৮০ লাখ টাকা, পানীয় জলের মাসিক চার্জ ৩ কোটি ৫০ লাখ, পানির লাইনের সংযোগ ও পুনঃসংযোগ ফি ১ কোটি টাকা, নলকূপ স্থাপনের অনুমোদন ও নবায়ন ফি ১ কোটি ৫০ লাখ টাকা আয় ধরা হয়েছে।

এছাড়া রাজস্ব খাতে অবকাঠামো উন্নয়ন ব্যয় বাবদ ৫৩ কোটি ২০ লাখ টাকা। সরকারি বার্ষিক উন্নয়ন কর্মসূচি (এডিপি) খাতে ২০ কোটি, সরকারি বিশেষ মঞ্জুরি খাতে ৪০ কোটি, অন্যান্য প্রকল্প মঞ্জুরি খাতে ১ কোটি, অবকাঠামো নির্মাণ প্রকল্প খাতে ১০০ কোটি, ছড়া সংরক্ষণ ও রিটেইনিং ওয়াল নির্মাণ প্রকল্প খাতে ১১৬ কোটি টাকা, শিক্ষার মান উন্নয়নে ভারত সরকারের অনুদানে অবকাঠামো নির্মাণ খাতে ১০ কোটি, সিসিকের প্রত্যেক ওয়ার্ডের কাউন্সিলরদের কার্যালয় নির্মাণ প্রকল্পে ২ কোটি টাকা, বস্তি উন্নয়ন প্রকল্পে ৫০ লাখ টাকা, নগরীর স্যুয়ারেজ উন্নয়নে ৬ কোটি ৬৩ লাখ টাকাসহ বিভিন্ন খাতে ব্যয় ধরা হয়েছে।

সিসিকের কর্মকর্তা চন্দন দাসের সঞ্চালনায় মেয়র আরিফুল হক চৌধুরী বাজেট বক্তৃতায় বলেন, ‘২০১৮-১৯ অর্থবছরের বাজেটটি আমার মেয়াদের সর্বশেষ বাজেট। সবার সামনে এই বাজেট পেশ করার সুযোগ পাওয়ায় আমি মহান আল্লাহর কাছে শুকরিয়া আদায় করছি। দায়িত্ব পালনকালে তিনি সিলেটবাসীর যে ভালোবাসা পেয়েছেন তা ভোলার নয়। সিলেটবাসীর ভালোবাসা নিয়েই তিনি শেষ নিশ্বাস ত্যাগ করতে চান বলে জানান মেয়র আরিফ।’ এ সময় তিনি সবাইকে ঈদের অগ্রিম শুভেচ্ছাও জানান।

অনুষ্ঠানের শুরুতে কোরআন তেলাওয়াত করেন সিটি করপোরেশনের আদায়কারী তাজুল ইসলাম। অনুষ্ঠানে সিসিকের কাউন্সিলরসহ নগরীর বিশিষ্টজনেরা উপস্থিত ছিলেন।



রাইজিংবিডি/সিলেট/১২ জুন ২০১৮/নোমান/মুশফিক

Walton Laptop
 
   
Walton AC