ঢাকা, রবিবার, ৪ অগ্রহায়ণ ১৪২৫, ১৮ নভেম্বর ২০১৮
Risingbd
সর্বশেষ:

চৌগাছায় এবার কাঁঠালের ছড়াছড়ি

বিএম ফারুক : রাইজিংবিডি ডট কম
 
     
প্রকাশ: ২০১৮-০৭-১২ ১১:৫৭:৪৯ এএম     ||     আপডেট: ২০১৮-০৭-১৬ ৪:০৫:৪০ পিএম

যশোর প্রতিনিধি: যশোরের চৌগাছা কাঁঠালের জন্য বিখ্যাত। চলতি মৌসুমে কাঁঠালের বাম্পার ফলন হয়েছে। মৌসুমের শুরু থেকেই বাজারে কাঁঠালের ব্যাপক সমারোহ ঘটেছে। চৌগাছায় এবার কাঁঠালের ছড়াছড়ি।

গত বছরের তুলনায় এ বছর কাঁঠালের বাজার দর ভাল থাকায় কৃষক বেশ খুশি। চৌগাছার উৎপাদিত কাঁঠাল যাচ্ছে ঢাকা, খুলনা, ভোলা, ঝালকাঠি, পিরোজপুর, বরিশাল, বাগেরহাটসহ দেশের বিভিন্ন অঞ্চলে।

জাতীয় ফল কাঁঠাল আরও বেশি বেশি উৎপাদনে স্থানীয় উপজেলা কৃষি অফিস কর্তৃপক্ষও চাষিদের উদ্বুদ্ধ করতে নিরলসভাবে কাজ করে যাচ্ছেন। তাদের ভাষ্য, চৌগাছা উপজেলার প্রতিটি গ্রামই কাঁঠাল চাষের জন্য অত্যন্ত উপযোগী।

কৃষি অফিস সূত্রে জানা গেছে, এক সময় এ জনপদের মানুষ পতিত জমি কিংবা বাড়ির আশে পাশে শুধু নিজেদের প্রয়োজনে কাঁঠাল গাছ লাগাতো। কিন্তু সময়ের ব্যবধানে বাজারে কাঁঠালের চাহিদা বেড়ে যাওয়ায় তা বাণিজ্যিকভাবে চাষ শুরু হয়েছে। চৌগাছার প্রত্যন্ত গ্রামাঞ্চলে কাঁঠাল ব্যাপকভাবে উৎপাদিত হওয়ায় প্রত্যেক মৌসুমে দেশের বিভিন্ন প্রান্ত থেকে এখানে ক্রেতা আসেন। এবারও তার ব্যতিক্রম ঘটেনি।

সরেজমিন চৌগাছার মেইন কাঁঠাল হাটে গিয়ে দেখা যায়, কাঁঠাল বেচা কেনায় ব্যস্ত সময় পার করছে কৃষক। কথা হয় কাঁঠাল বিক্রেতা উপজেলার আড়পাড়া গ্রামের জয়নাল আবেদিনের সাথে। তিনি বলেন, ‘এ বছর আবহাওয়া ভাল থাকায় কাঁঠালের ফলন বেশ ভাল হয়েছে। মৌসুম শুরু থেকে এখনও পর্যন্ত কাঁঠালের ব্যাপক চাহিদা রয়েছে। তাই বাজার দরও বেশ ভাল যাচ্ছে।’

জয়নাল আবেদিন জানান, বাজারে ছোট সাইজের ১শ’ কাঁঠাল ২ থেকে ৩ হাজার টাকা আর বড় সাইজের ১শ’ কাঁঠাল ৭ থেকে ৮ হাজার টাকায় বিক্রি হচ্ছে।

তবে মধ্যসত্ত্বভোগীদের দৌরাত্ম্যে প্রকৃত কাঁঠাল ব্যবসায়ীরা কাঙ্ক্ষিত দাম থেকে বরাবরই বঞ্চিত বলে অনেকে জানান।

খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, উপজেলার আড়পাড়া, মাড়ুয়া, দক্ষিনসাগর, জগদীশপুর, মির্জাপুর, পাতিবিলা, মুক্তদাহ, নিয়ামতপুর, হয়াতপুর, হাজরাখানা, পেটভরা, নারায়নপুর, আন্দারকোটা, চাঁদপাড়া. বেলেমাঠ, কংশারীপুর, বড়খাঁনপুর, গুয়াতলী, কাবিলপুর, আন্দুলিয়া, মাধবপুর, বেড়গোবিন্দপুর, দেবীপুরসহ প্রত্যন্ত গ্রামাঞ্চলে ব্যাপকভাবে কাঁঠালের চাষ হয়েছে।

ভোলার দৌলতখাঁন থেকে চৌগাছায় কাঁঠাল কিনতে আসা ব্যাপারী বজলুর রহমান জানান, অন্যান্য বাজারের তুলনায় চৌগাছায় ব্যবসা করে সকলেই বেশ লাভবান হয়। তাই মৌসুম শুরু হলে সকলেই এই হাটের দিকে ছুটে আসেন।

ভোলা জেলার সদর উপজেলা থেকে আসা ব্যাপারী সাদেক হোসেন বলেন, ‘চৌগাছার কাঁঠাল অন্য যে কোন এলাকার থেকেও সুস্বাদু, তাই এখানকার কাঁঠালের চাহিদা বাজারে বরাবরই একটু বেশি থাকে।’

একই কথা বললেন খুলনার আব্দুল মালেক হাবিবুর রহমান, ঝালকাঠির রহমান ব্যাপারী।

উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা রইচউদ্দিন জানান, চলতি মৌসুমে আবহাওয়া অনুকুলে থাকায় কাঁঠালের ফলন ভাল হয়েছে। পাশাপাশি বাজারদরও ভাল। কাঁঠাল চাষ আরও বৃদ্ধির লক্ষ্যে উপজেলা কৃষি অফিস নিরলস ভাবে কাজ করে যাচ্ছে।



রাইজিংবিডি/যশোর/১২ জুলাই ২০১৮/বিএম ফারুক/টিপু

Walton Laptop
 
     
Marcel
Walton AC