ঢাকা, সোমবার, ৯ আশ্বিন ১৪২৫, ২৪ সেপ্টেম্বর ২০১৮
Risingbd
সর্বশেষ:

ঈশ্বরদী-পাবনা-রাজশাহী রেলপথ চালু হচ্ছে

শাহীন রহমান : রাইজিংবিডি ডট কম
 
     
প্রকাশ: ২০১৮-০৭-১২ ৬:৪০:২১ পিএম     ||     আপডেট: ২০১৮-০৭-১২ ৭:৩৬:৩৮ পিএম

পাবনা প্রতিনিধি : সকল জল্পনা-কল্পনার অবসান ঘটিয়ে দীর্ঘ অপেক্ষার পর অবশেষে পাবনাবাসীর স্বপ্নের রেল চালু হতে যাচ্ছে। আগামী ১৪ জুলাই শনিবার প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা রেললাইনের উদ্বোধন করবেন। পাবনার মানুষের প্রাণের দাবি পূরণ নিয়ে পাবনায় শুরু হয়েছে উৎসবের আমেজ।

পশ্চিমাঞ্চল রেলওয়ের অতিরিক্ত প্রধান প্রকৌশলী আসাদুল হক জানান, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা পাবনার পুলিশ লাইন মাঠে জনসভার আগে আনুষ্ঠানিকভাবে পাবনায় রেলপথ ও ট্রেন চলাচলের উদ্বোধন ঘোষণা করবেন।

তিনি আরও জানান, ঈশ্বরদীর মাঝগ্রাম হয়ে ঢালারচর পর্যন্ত নতুন রেললাইন নির্মাণ প্রকল্পের আওতায় ৭৮ কিলোমিটার নতুন রেললাইনের মধ্যে ২৫ কিলোমিটার ট্রেন চলাচলের জন্য প্রস্তুত। বাকি ৫৩ কিলোমিটার দ্বিতীয় ধাপে শেষ হবে চলতি বছরের সেপ্টেম্বর মাসে।

পশ্চিমাঞ্চল রেলওয়ের পাকশী বিভাগীয় রেলওয়ে প্রকৌশলী-২ আরিফ আহম্মেদ জানান, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ফলক উন্মোচন করে উদ্বোধনের পর ট্রেনটি পাবনা এক্সপ্রেস নামে চলবে। উদ্বোধনের দিন ইঞ্জিনসহ ছয়টি বগি নিয়ে পাবনা থেকে ঈশ্বরদী পর্যন্ত চলাচল করবে। পরবর্তীতে পাবনা-রাজশাহীর মধ্যে চলাচল করবে।

তিনি জানান, প্রতিদিন ঈশ্বরদী-পাবনা-রাজশাহী-পাবনা-ঈশ্বরদীতে ৪২৩ যাত্রীধারণ ক্ষমতার এ ট্রেনে থাকবে এসি সিগ্ধা, চেয়ার কোচ, ননএসি ও শোভন। ঈশ্বরদী থেকে প্রতিদিন ট্রেনটি সকাল ৫টা ৪৫মিনিটে ছেড়ে পাবনা পৌঁছাবে ৬টা ৪৫মিনিটে। এরপর পাবনা থেকে রাজশাহীর উদ্দেশে ৭টা ১৫মিনিটে ছেড়ে রাজশাহী পৌঁছাবে সকাল ৯টা ৩৫মিনিটে। এরপর রাজশাহী থেকে সন্ধ্যা ৭টা ১৫মিনিটে ছেড়ে পাবনা পৌঁছাবে রাত ৯টা ১৫মিনিটে। এরপর ট্রেনটি পাবনা থেকে রাত ৯টা ৫০মিনিটে ছেড়ে ঈশ্বরদী পৌঁছাবে রাত ১১টায়।

দীর্ঘকাল অপেক্ষার পর রেল পাওয়ায় পাবনাবাসীর মধ্যে আনন্দ-উচ্ছ্বাস লক্ষ্য করা যাচ্ছে। বিভিন্ন শ্রেণিপেশার মানুষ পাবনার এ দাবি পূরণ করায় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে অভিনন্দন জানিয়েছেন।

পাবনা জেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি ও জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান রেজাউল রহিম লাল ও পাবনা-৫ আসনের সংসদ সদস্য জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক গোলাম ফারুক প্রিন্স এক বিবৃতিতে ঈশ্বরদী-ঢালারচর রেল লাইন প্রকল্প বাস্তবায়ন করায় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার প্রতি কৃতজ্ঞতা জানিয়েছেন।

বাংলাদেশ রেলওয়ে পাবনার পাকশি বিভাগ সূত্রে জানা গেছে, ১৯১৪ সালে পদ্মা নদীর উপর হার্ডিঞ্জ ব্রিজ চালু হলে সেই সময়ে দাবি উঠে ঈশ্বরদী থেকে পাবনা পর্যন্ত একটি লিংক রোড রেললাইনের। সেই সময় ব্রিটিশরা এই দাবি পূরণে প্রতিশ্রুতিও দেন। তবে সেই প্রতিশ্রুতি আর পরে বাস্তবায়ন হয়নি।

২০১০ সালের ৫ অক্টোবর জাতীয় অর্থনৈতিক পরিষদের নিবার্হী কমিটির বৈঠকে এ রেলপথ নির্মাণ প্রকল্প বাস্তবায়নের জন্য ৯৮২ কোটি ৮৬ লাখ ৫৬ হাজার টাকা বরাদ্দ দেওয়া হয়। পরবর্তীতে তা বৃদ্ধি পেয়ে দাঁড়িয়েছে ১ হাজার ৬২৯ কোটি টাকা।

২০১৩ সালে ২ ফেব্রুয়ারি পাবনা সরকারি এডওয়ার্ড কলেজ মাঠের জনসভায় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা রেলপথ নির্মাণ প্রকল্পের উদ্বোধন করেন।

 

 

রাইজিংবিডি/পাবনা/১২ জুলাই ২০১৮/শাহীন রহমান/বকুল

Walton Laptop
 
     
Walton