ঢাকা, রবিবার, ৮ আশ্বিন ১৪২৫, ২৩ সেপ্টেম্বর ২০১৮
Risingbd
সর্বশেষ:

১৬ মাস পর ঘোড়াশাল ও পলাশ সার কারখানায় গ্যাস সংযোগ

গাজী হানিফ মাহমুদ : রাইজিংবিডি ডট কম
 
     
প্রকাশ: ২০১৮-০৯-১৪ ৯:৫৫:৫৯ পিএম     ||     আপডেট: ২০১৮-০৯-১৬ ১২:৪৪:২৫ পিএম

নরসিংদী সংবাদদাতা : দীর্ঘ ১৬ মাস বন্ধ থাকার পর গ্যাস সংযোগ পেয়েছে বিসিআইসি নিয়ন্ত্রণাধীন নরসিংদীর ঘোড়াশাল ও পলাশ ইউরিয়া সার কারখানা। শুক্রবার বিকেলে কারখানা দুটিতে গ্যাস সংযোগ চালু করে তিতাস কর্তৃপক্ষ। এর ফলে আগামী এক সপ্তাহের মধ্যে সার উৎপাদন শুরু হবে বলে আশা প্রকাশ করছে কারখানা কর্তৃপক্ষ।

ঘোড়াশাল সার কারখানার সিবিএ সভাপতি আমিনুল ইসলাম ভূঁইয়া এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

গত বছরের ১৭ এপ্রিল গ্রীষ্মকালীন নিরবিচ্ছিন্ন বিদ্যুৎ সরবরাহের লক্ষ্যে কারখানা দুটিতে গ্যাস সরবরাহ বন্ধ করে দেয় তিতাস কর্তৃপক্ষ। ফলে কারখানা দুটির উৎপাদন বন্ধ হয়ে যায়।

কারখানা কর্তৃপক্ষ ও সিবিএ নেতারা জানান, শুক্রবার বিকেলে গ্যাস সংযোগ দেওয়ার পর  কারখানার বিভিন্ন যন্ত্রপাতি পরীক্ষা-নিরীক্ষা করা হচ্ছে। সবকিছু ঠিকঠাক থাকলে বয়লার চালু করা হবে। বয়লার চালু হলে আগামী সপ্তাহের মধ্যে  ইউরিয়া উৎপাদন শুরু হতে পারে।

ঘোড়াশাল সার কারখানার সিবিএ  সভাপতি আমিনুল ইসলাম ভূঁইয়া বলেন ‘ঘোড়াশাল ও পলাশ ইউরিয়া সার কারখানা দুটি কেপিআই মান-১ বিশিষ্ট উচ্চ প্রযুক্তিসম্পন্ন কারখানা। প্রতি বছরই গ্যাস সংকটের কারণ দেখিয়ে ১ হাজার ৪২২ মেট্রিক টন উৎপাদন ক্ষমতা সম্পন্ন ঘোড়াশাল সার কারখানা ও ৩০৫ মেট্রিক টন ক্ষমতাসম্পন্ন পলাশ সার কারখানায় গ্যাস সংযোগ বন্ধ করে দেওয়া হয়। বছরের অধিকাংশ সময় গ্যাস সরবরাহ বন্ধ থাকায় কারখানা দুটিকে ব্যাপক লোকসান ও ক্ষতির মুখে পড়তে হচ্ছে।

পলাশ সার কারখানার মহাব্যবস্থাপনা (পরিচালক) ইঞ্জিনিয়ার মো. মোয়াজ্জেম হোসেন বলেন, ‘দীর্ঘদিন ধরে সার কারখানায় কর্মরত শ্রমিকদের দাবিতে স্থানীয় সংসদ সদস্য কামরুল আশরাফ খান পোটনের অনুরোধে ও সরকারি সিদ্ধান্তে শুক্রবার বিকেলে পেট্রোবাংলা থেকে গ্যাস সংযোগ দেওয়া হয়। এরপর থেকেই কারখানার বিভিন্ন অংশ এক এক করে পরীক্ষা করা হচ্ছে। কারখানায় ইউরিয়া উৎপাদনের মূল প্রক্রিয়া শুরু হতে ৫-৭দিন সময় লাগতে পারে।



রাইজিংবিডি/নরসিংদী/১৪ সেপ্টেম্বর ২০১৮/গাজী হানিফ মাহমুদ/শাহেদ

Walton Laptop
 
     
Walton