ঢাকা, শুক্রবার, ৮ আষাঢ় ১৪২৬, ২১ জুন ২০১৯
Risingbd
সর্বশেষ:

ভাইকে হারিয়ে বৃদ্ধ বাবাকে নিয়ে ২ বোনের আহাজারি

ফরহাদ হোসেন : রাইজিংবিডি ডট কম
     
প্রকাশ: ২০১৯-০১-২৩ ২:২৭:৪৪ পিএম     ||     আপডেট: ২০১৯-০১-২৩ ৫:১৮:০৮ পিএম
Walton AC 10% Discount

লক্ষ্মীপুর সংবাদদাতা : ঘড়ির কাঁটায় তখন দুপুর ১২টা। লক্ষ্মীপুর সদর হাসপাতালের লাশঘরের পাশে একজন বৃদ্ধ আকাশের দিকে তাকিয়ে বাকরুদ্ধ অবস্থায় বসে আছেন। তারই পাশে দুইজন নারী বৃদ্ধ লোকটিকে জড়িয়ে কান্না করছেন।

নূর আলম ছিল সংসারের একমাত্র উপার্জনকারী, তাদের শত স্বপ্ন। পরিবারের সকল সদস্যের স্বপ্ন পূরণ হতো নূর আলমের আয়ের মাধ্যমে। সেই ভাইটি এভাবে তাদের ছেড়ে চলে যাবে, কখনো ভাবতেও পারে নাই। কী হবে এখন তাদের সংসারের? কী হবে ভাইয়ের প্রতিবন্ধী ছয় বছরের ছেলের? সাত মাস বয়সি অপর ছেলে মিরাজ বুঝি আর কখনোই বাবা বলে ডাকতে পারবে না!

ওই দুই নারীর সঙ্গে কথা বলে জানা যায়, বসে থাকা বৃদ্ধ লোকটি সড়ক দুর্ঘটনায় নিহত সিএনজিচালক নূর আলমের বাবা নূর মোহাম্মদ এবং তারা দুই বোন পাকি আক্তার ও লাকি আক্তার।

নিহতের বৃদ্ধ বাবা নূর মোহাম্মদ বলেন, ‘নূর আলম রাত ৩টায় সিএনজির গ্যাসের জন্য পাম্পে যায়। সেখান থেকে সে যাত্রী নিয়ে লক্ষ্মীপুর সদর হাসপাতালের উদ্দেশে রওনা দেয়। নূর আলমের সিএনজি সদর উপজেলার মান্দারি ইউনিয়নের রতনপুর এলাকায় পৌঁছলে বিপরীত দিক থেকে আসা মালবাহী ট্রাক (ঢাকা মেট্রো-ট ১৪-০৬৭৭৭) তার সিএনজিকে চাপা দেয়। এতে ঘটনাস্থলে নূর আলম ও ছয় যাত্রী নিহত হন।’

খবর পেয়ে পুলিশ ও ফায়ার সার্ভিসের কর্মীরা ঘটনাস্থল থেকে লাশ উদ্ধার করে সদর হাসপাতালে পাঠান।

সিএনজি চালক নূর আলম লক্ষ্মীপুর সদর উপজেলার ৬ নম্বর ভাঙাখাঁ ইউনিয়নের নেয়ামতপুর গ্রামের মাঝের বাড়ির নূর মোহাম্মদের একমাত্র ছেলে।

উল্লেখ্য, বুধবার ভোর ৫টার দিকে লক্ষ্মীপুর সদর উপজেলার রতনপুর গ্রামের লক্ষ্মীপুর-বেগমগঞ্জ সড়কে মালবাহী ট্রাক একটি সিএনজিকে মুখোমুখি চাপা দেয়। এতে যাত্রী একই পরিবারের ছয়জন ও সিএনজি চালক নূর আলম মারা যান।




রাইজিংবিডি/লক্ষ্মীপুর/২৩ জানুয়ারি ২০১৯/ফরহাদ হোসেন/সাইফুল

Walton AC
     
Walton AC
Marcel Fridge