ঢাকা, রবিবার, ২ আষাঢ় ১৪২৬, ১৬ জুন ২০১৯
Risingbd
সর্বশেষ:

রংপুর নগরীতে যানজট বাড়ছে

নজরুল মৃধা : রাইজিংবিডি ডট কম
     
প্রকাশ: ২০১৯-০৫-২৫ ৫:২৪:১৮ পিএম     ||     আপডেট: ২০১৯-০৫-২৫ ৫:২৪:১৮ পিএম
Walton AC 10% Discount

নিজস্ব প্রতিবেদক, রংপুর : রংপুর নগরীতে আসন্ন ঈদকে ঘিরে প্রতিদিনই যানজটের মাত্রা তীব্র থেকে তীব্রতর হচ্ছে। সিটি করপোরেশনের ভ্রাম্যমাণ আদালতের মাধ্যমে অবৈধ ফুটপাত দখলমুক্ত করার প্রচেষ্টা ব্যর্থ হওয়ায় অপ্রতিরোধ্য হয়ে উঠেছে যানজট।

বিগত বছরগুলোতে কমিউনিটি পুলিশ দিয়ে যানজট নিরসনের ব্যবস্থা করা হলেও এবার এখন পর্যন্ত সে বিষয়ে কোনো সিদ্ধান্ত হয়নি। সিটি করপোরেশন থেকে সিটি পুলিশ দেওয়ার কথা থাকলেও তারা এখন পর্যন্ত কোনো উদ্যোগ নেয়নি। যানজট নিরসনে ট্রাফিক পুলিশও বাড়ানো হয়নি। ফলে নগরীতে নিয়ন্ত্রণহীন হয়ে পড়েছে যানজট।

রমজানের শুরুতেই রংপুর নগরী যানজটের নগরীতে পরিণত হয়েছে। ভয়াবহ যানজট পথচারীসহ রোজাদারদের জন্য সৃষ্টি করছে বাড়তি ভোগান্তি। শহরের প্রধান সড়ক থেকে শুরু করে সংযোগ সড়কগুলোতে সকাল থেকে যানজট চলছেই। ফলে ঈদ উপলক্ষে শপিংমলে কেনাকাটা করতে আসা লোকজন চরম দুর্ভোগের মধ্যে পড়ছেন।

ঈদবাজারের জন্য লোকজনের আনাগোনা বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে পাল্লা দিয়ে বাড়ছে যানজট। সকাল ১১টা থেকে রাত ১০টা পর্যন্ত নগরীর প্রেসক্লাব মোড় থেকে হাড়িপট্টি রোড হয়ে সিটি বাজার পর্যন্ত এবং ফিরতি পথে সিটি বাজার থেকে প্রেসক্লাব পর্যন্ত ব্যস্ততম রাস্তাঘাট বিভিন্ন ধরনের যানবাহনের চাপে প্রায় অচল হয়ে পড়ছে। ১২ থেকে ১৩ হাজার রিকশা এবং ২৫ হাজার ব্যাটারিচালিত অটোরিকশার চাপে এখন নাকাল মহানগরীর মানুষ।

বিগত বছরে রমজানের শুরু থেকেই স্থানীয় প্রশাসনের সহযোগিতায় মাহিগঞ্জ থেকে শহরে ঢোকার পথে লায়ন্স স্কুল মোড়ে, স্টেশন রোডের জীবন বীমা মোড়ে এবং টাউন হলের সামনে প্রতিবন্ধকতা সৃষ্টির মাধ্যমে যানবাহনকে বিকল্প পথে বাইপাস করে শহরের যানজটে নিরসনে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রেখেছিল। ফলে শহর ছিল যানজটমুক্ত, ক্রেতারাও কেনাকাটা করতে পেরেছেন স্বস্তিতে। কিন্তু নগরীতে চার লেন সড়ক হওয়ার অজুহাত দেখিয়ে প্রশাসনকে চাপে ফেলে বিগত দিনের সিস্টেম পরিবর্তন করেছেন ব্যবসায়ীরা। ফলে যানজট নিরসনে এখন পর্যন্ত কার্যকর কোনো ভূমিকা নেওয়া হয়নি।

পুলিশের ট্রাফিক বিভাগ সূত্র বলছে, সুপার মার্কেট, মিনি মার্কেট, সিটি বাজার ও বিভিন্ন শপিংমলের সামনে অবৈধ পার্কিংসহ ব্যাটারিচালিত অটোরিকশার দৌরাত্ম নগরীতে নতুন করে উপদ্রব সৃষ্টি করছে। ট্রাফিক পুলিশের মাত্র ৪০ জন সদস্য নিয়ে এই নগরীর যানবাহন চলাচল নিয়ন্ত্রণ করা হচ্ছে।

মহানগর ট্রাফিক পুলিশের পরিদর্শক দেলোয়ার হোসেন জানান, রমজান ও ঈদুল ফিতরকে সামনে রেখে মহানগর ট্রাফিক পুলিশ যানজট নিরসনে তৎপর রয়েছে। যানজট নিরসনে বিশেষ কোনো উদ্যোগের ব্যাপারে তারা এখনো কোনো নির্দেশনা পাননি।

তিনি আরো জানান, ঈদ উপলক্ষে ট্রাফি পুলিশেকে জনবল বাড়ানো হয়নি। ফলে আগের জনবল দিয়ে যানবাহন চলাচল নিয়ন্ত্রণ করতে হচ্ছে। 



রাইজিংবিডি/রংপুর/২৫ মে ২০১৯/নজরুল মৃধা/রফিক

Walton AC
     
Walton AC
Marcel Fridge