ঢাকা, সোমবার, ৬ অগ্রহায়ণ ১৪২৪, ২০ নভেম্বর ২০১৭
Risingbd
সর্বশেষ:

অবসর ভাতা তুলতে হয়রানি কমছে

কেএমএ হাসনাত : রাইজিংবিডি ডট কম
 
   
প্রকাশ: ২০১৭-০৪-১৭ ৬:৫৯:৪০ পিএম     ||     আপডেট: ২০১৭-০৪-২২ ৬:০০:১৬ পিএম

কেএমএ হাসনাত: অবসর ভাতা ও আনুতোষিক উত্তোলনে হয়রানি কমছে। অবসরপ্রাপ্ত সরকারি চাকরিজীবীদের হয়রানি কমাতে এখন থেকে ‘৬৩০০-অবসর ভাতা ও আনুতোষিক’ খাতের বরাদ্দ সংশ্লিষ্ট মন্ত্রণালয়/বিভাগের পরিবর্তে অর্থ মন্ত্রণালয়ের অর্থ বিভাগের বাজেটে স্থানান্তর করা হয়েছে।

অর্থ বিভাগের এক পরিপত্রে বলা হয়েছে, বিভিন্ন মন্ত্রণালয়, বিভাগ এবং এর অধীনস্ত দপ্তরসমূহের অবসর ভাতা ও আনুতোষিকসহ সংশ্লিষ্ট ভাতা, যেমন: উৎসব ভাতা, মহার্ঘ্য ভাতা, বাংলা নববর্ষ ভাতা, চিকিৎসা সুবিধা বর্তমানে নিজ নিজ মন্ত্রণালয়ের বিপরীতে বরাদ্দ ও হিসাবায়ন করা হচ্ছে। সরকারি পেনশন পদ্ধতি সংস্কারের অংশ হিসেবে চলমান ২০১৬-২০১৭ অর্থবছরের সংশোধিত বাজেট থেকে এ ব্যবস্থায পরিবর্তন আনা হয়েছে।

সূত্র জানায়, এ পরিবর্তনের আওতায় ‘৬৩০০-অবসর ভাতা ও আনুতোষিক’সংশ্লিষ্ট সব বরাদ্দ নিজ নিজ মন্ত্রণালয়ের বাজেটের পরিবর্তে অর্থ বিভাগের বাজেটে স্থানান্তর করা হয়েছে। তবে, প্রতিরক্ষা বাহিনীসমূহ ও রেলপথ মন্ত্রণালয়ের অধীনে বাংলাদেশ রেলওয়ে এবং ডাক ও টেলিযোগাযোগ বিভাগের অধীন বাংলাদেশ ডাক বিভাগের কর্মচারীদের অবসর ভাতা ও আনুতোষিক খাতে বরাদ্দ আগের মতো সংশ্লিষ্ট মন্ত্রণালয়ের আওতায় আলাদাভাবে দেওয়া হয়েছে।

সূত্র জানায়, পরিবর্তিত এ ব্যবস্থায় শুধুমাত্র পেনশনের বাজেট এবং এ বাজেটের বিপরীতে হিসাবায়নের ক্ষেত্রে পরিবর্তন আনবে। অবসরোত্তর ছুটিকালীন বেতন ও অন্যান্য ভাতা, লাম্প গ্রান্ট ইত্যাদি আগের মতো নিজ নিজ মন্ত্রণালয় ও দপ্তরের বেতন-ভাতা খাতের বরাদ্দ থেকে নির্বাহ করা হবে। একইভাবে পেনশনের প্রশাসনিক মঞ্জুরি সংক্রান্ত সব দায়িত্ব নিজ নিজ প্রশাসনিক মন্ত্রণালয় ও এর অধীনস্থ দপ্তরসমূহ আগের মতো সম্পাদন করবে।

অর্থ বিভাগের পরিপত্রে হিসাবরক্ষণ অফিসমূহ থেকে ‘৬৩০০-অবসর ভাতা ও আনুতোষিক’সংশ্লিষ্ট কোডসমূহের বিল/দাবির ব্যয় নির্বাহের ক্ষেত্রে এখন থেকে বিভিন্ন মন্ত্রণালয়/ বিভাগের পরিবর্তে অর্থ বিভাগের তিন ডিজিটের কোড ব্যবহার করতে নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে। অর্থ বিভাগের অতিরিক্ত সচিব মোহাম্মদ মুসলিম চৌধুরীর স্বাক্ষরিত পরিপত্রে বলা হয়েছে, জনস্বার্থে এই পরিপত্র খুব শিগগির কার্যকর হবে।

একজন সরকারি চাকরিজীবী অবসরে যাওয়ার পর তাদের পেনশন ভাতাসহ অন্যান্য ভাতাপ্রাপ্তির ক্ষেত্রে ব্যাপক হয়রানির শিকার হতে হয়। অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিতের সঙ্গে পেনশনভোগী কর্মকর্তারা দেখা করতে এসে প্রতিনিধিদলের সদস্য এবং একাধিক প্রাক্তন সচিব পেনশন তুলতে গিয়ে তাদের হয়রানির কথা তুলে ধরেন। সে সময় অর্থমন্ত্রী পেনশনভোগীদের হয়রানি কমানোর আশ্বাস দিয়েছিলেন। এরই পরিপ্রেক্ষিতে অবসর ভাতা ও আনুতোষিক’খাতের বরাদ্দ সংশ্লিষ্ট মন্ত্রণালয় / বিভাগের পরিবর্তে অর্থ বিভাগের বাজেটে প্রদর্শন ও হিসাবায়নের সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে বলে অর্থ মন্ত্রণালয়ের একজন কর্মকর্তা জানান।




রাইজিংবিডি/ঢাকা/ ১৭ এপ্রিল ২০১৭/হাসনাত/রফিক  

Walton
 
   
Marcel