ঢাকা, মঙ্গলবার, ৭ ফাল্গুন ১৪২৪, ২০ ফেব্রুয়ারি ২০১৮
Risingbd
অমর একুশে
সর্বশেষ:

বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানের কাছে এনবিআরের পাওনা ৫০০০০ কোটি টাকা

এম এ রহমান : রাইজিংবিডি ডট কম
 
   
প্রকাশ: ২০১৮-০১-২৫ ৭:১০:০২ পিএম     ||     আপডেট: ২০১৮-০১-২৬ ৯:৫৭:১৭ এএম

অর্থনৈতিক প্রতিবেদক : সরকারি-বেসরকারি প্রতিষ্ঠানের কাছে জাতীয় রাজস্ব বোর্ডের (এনবিআর) পাওনা রাজস্বের পরিমাণ ৫০ হাজার কোটি টাকা।

বৃহস্পতিবার বিকেলে আন্তর্জাতিক কাস্টমস দিবস উপলক্ষে এনবিআর আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে তিনি এ তথ্য জানান।

ব্যক্তিগত ও সামষ্টিক উপায়ে পাওনা আদায়ের চেষ্টা করার কথা জানিয়েছেন এনবিআরের চেয়ারম্যান মোশাররফ হোসেন ভূঁইয়া।

এনবিআর চেয়ারম্যান বলেন, ‘বকেয়া আদায়ের ক্ষেত্রে আমরা যত্নবান হব। যাদের কাছে পাওনা রয়েছে, তাদের চিহ্নিত করে আইনের মাধ্যমে রাজস্ব আদায় করতে হবে। মামলা নিষ্পত্তির মাধ্যমে ৫০ হাজার কোটি পাওয়া যাবে। জোর-জুলম করে আমরা রাজস্ব আয় করতে চাই না। ব্যক্তিগত ও সামষ্টিক উপায়ে পাওনা আদায়ে চেষ্টা করতে হবে। এক্ষেত্রে আমি কারো মুখ দেখে কোনো কাজ করব না।

সরকারি বেশকিছু প্রতিষ্ঠানের কাছে পাওনার কথা উল্লেখ করে তিনি বলেন, সরকারি অনেক প্রতিষ্ঠানের কাছে এনবিআরে বেশকিছু পাওনা রয়েছে। এজন্য আমি সংশ্লিষ্ট মন্ত্রণালয়ের সচিবদের ডিও লেটার দেব। পেট্রোবাংলার কাছে ২২ হাজার কোটি টাকা, প্রেট্রোলিয়াম করপোরেশনের কাছে ২ হাজার ৩০০ কোটি টাকা, ইমিগ্রেশনে পাসপোর্ট ফি বাবদ ৫৫০ কোটি টাকার বেশি এবং বিটিআরসির কাছে ৫০০ কোটি টাকা পাওনা রয়েছে।

কর ও শুল্কে রেয়াত ও অব্যাহতি সুবিধা কমিয়ে আনার বিষয়ে মোশাররফ হোসেন ভূঁইয়া বলেন, আমরা বাণিজ্যবান্ধব পরিবেশ তৈরি করব। বর্তমানে একটি বিষয় চলমান রয়েছে- কর ও শুল্কে রেয়াত বা অব্যাহতি সুবিধা দেওয়া। এক্ষেত্রে আমরা শুধু প্রয়োজনীয় ক্ষেত্রে এর মেয়াদ বৃদ্ধি করব। আস্তে আস্তে এ বিষয়টি গুটিয়ে আনা দরকার। কারণ, আমাদের ব্যবসায়ীরা এখন আর শিশু অবস্থায় নেই। সব ক্ষেত্রেই আমাদের পরিপক্কতা এসেছে। একজন যদি রেয়াত চায়, আরেকজন চাইবে। আমি মুখ দেখে কাজ করব না, কোনো অন্যায় প্রশ্রয় দেব না।

তিনি আরো বলেন, বিদেশের ওপর নির্ভশীলতা কমানো দরকার। আমাদের লক্ষ্য- আগামী ২০২০-২১ সালের মধ্যে করের ক্ষেত্রে প্রবৃদ্ধি ১৫ বা এর কাছাকাছি অর্জন করা। বর্তমানে যা ১১ এর কাছাকাছি রয়েছে। তার মানে এই নয় যে, চাপ দিয়ে রাজস্ব প্রবৃদ্ধি বাড়ানো হবে।

সংবাদ সম্মেলনে আগামী ২৬ জানুয়ারি আন্তর্জাতিক কাস্টমস দিবসের কার্যক্রম সাংবাদিকদের সামনে উপস্থাপন করেন এনবিআরের চেয়ারম্যান।

এ সময় এনবিআর সদস্য খন্দকার আমিনুর রহমান এবং শুল্ক গোয়েন্দা ও তদন্ত অধিদপ্তরের মহাপরিচালক ড. মইনুল খানসহ ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।

 

 

রাইজিংবিডি/ঢাকা/২৫ জানুয়ারি ২০১৮/এম এ রহমান/রফিক

Walton
 
   
Marcel