ঢাকা, সোমবার, ৩ আষাঢ় ১৪২৬, ১৭ জুন ২০১৯
Risingbd
সর্বশেষ:

এখনো প্রস্তুত হয়নি বাণিজ্য মেলার অনেক স্টল

নাসির উদ্দিন : রাইজিংবিডি ডট কম
     
প্রকাশ: ২০১৯-০১-১২ ৫:০৫:৩৯ পিএম     ||     আপডেট: ২০১৯-০১-১২ ৯:১৫:৩৫ পিএম
Walton AC 10% Discount

অর্থনৈতিক প্রতিবেদক : ঢাকা আন্তর্জাতিক বাণিজ্য মেলা উদ্বোধনের চতুর্থ দিন পার হলেও এখনো প্রস্তুত হয়নি অনেক স্টল।

স্টল তৈরির সঙ্গে জড়িত লোকজন ও স্টল মালিকদের সঙ্গে কথা বলে জানা যায়, আরো তিন-চার দিন সময় লাগবে এসব স্টল পুরোপুরি তৈরি করতে। কাজ শেষ না হওয়া এসব স্টলের মধ্যে বিদেশি প্রতিষ্ঠান যেমন আছে, তেমনই আছে দেশীয় প্রতিষ্ঠানও। দেশি প্রতিষ্ঠানগুলোর মধ্যে সিংহভাগই ছোট প্রতিষ্ঠান। বড় প্রতিষ্ঠান দুই-একটি অসম্পূর্ণ থাকলেও বেশিরভাগই মেলার প্রথম দিন থেকেই বিক্রি শুরু করেছে।

এ ব্যাপারে জানতে চাইলে রপ্তানি উন্নয়ন ব্যুরোর উপ-পরিচালক ও বাণিজ্য মেলার সদস্য সচিব আবদুর রউফ বলেন, বিদেশি স্টলের কার্যক্রম শুরু হতে সব সময় একটু দেরি হয়। তবে বিদেশি মালপত্র আনতে কাস্টমসে যেন কোনো সমস্যা না হয় সেদিকে আমাদের নজর রয়েছে। আমরা এরই মধ্যে কাস্টমসকে চিঠি দিয়েছি। আশা করি, আগামী সপ্তাহের মধ্যে সবাই পুরোদম কার্যক্রম শুরু করতে পারবেন।



এদিকে, শনিবার সরকারি ছুটি হওয়ায় দুপুরের পর থেকে ক্রেতা-দর্শনার্থীদের ভিড় দেখা গেছে। তবে বিকিকিনি এখনো তেমনভাবে জমে ওঠেনি। অনেক স্টলের নির্মাণ শেষ হলেও চলছে সেগুলোতে পণ্য সাজানোর কাজ।

এবার বাণিজ্য মেলায় অংশগ্রহণকারী বিভিন্ন দেশের মধ্যে রয়েছে ভারত, পাকিস্তান, চীন, ব্রিটেন, দক্ষিণ কোরিয়া, মালয়েশিয়া, ইরান, থাইল্যান্ড, যুক্তরাষ্ট্র, তুরস্ক, সিঙ্গাপুর, ভুটান, নেপাল, মরিশাস, ভিয়েতনাম, মালদ্বীপ, রাশিয়া, আমেরিকা, জার্মানি, সোয়াজিল্যান্ড, অস্ট্রেলিয়া এবং হংকং।



মেলায় প্রিমিয়ার প্যাভিলিয়ন ৬০টি, প্রিমিয়ার মিনি প্যাভিলিয়ন ৩৮টি, সাধারণ প্যাভিলিয়ন ১৮, সাধারণ মিনি প্যাভিলিয়ন ২৯টি, প্রিমিয়ার স্টল ৬৭টি, রেস্টুরেন্ট তিনটি, সংরক্ষিত প্যাভিলিয়ন ৯টি, সংরক্ষিত মিনি প্যাভিলিয়ন ৬টি, বিদেশি প্যাভিলিয়ন ২৬টি, সংরক্ষিত মিনি প্যাভিলিয়ন ৯টি, বিদেশি প্রিমিয়ার স্টল ১৩টি, সাধারণ স্টল ২০১টি এবং ফুড স্টল ২২টি।

রপ্তানি উন্নয়ন ব্যুরোর (ইপিবি) তথ্য অনুযায়ী, মেলায় মা ও শিশু কেন্দ্র, শিশুপার্ক, ই-পার্ক ও পর্যাপ্ত এটিএম বুথ রয়েছে। আছে রেডিমেড গার্মেন্টস পণ্য, হোমটেক্স, ফেব্রিকস পণ্য, হস্তশিল্প, পাট ও পাটজাত পণ্য, গৃহস্থালি ও উপহারসামগ্রী, চামড়া ও চামড়াজাত পণ্য, তৈজসপত্র, সিরামিক, প্লাস্টিক পলিমার পণ্য, কসমেটিকস, হারবাল ও প্রসাধনী সামগ্রী, খাদ্য ও খাদ্যজাত পণ্য, ইলেকট্রিক ও ইলেকট্রনিকস সামগ্রী, ইমিটেশন ও জুয়েলারি, নির্মাণ সামগ্রী ও ফার্নিচার সামগ্রী কিনতে পারবেন ক্রেতারা।



এ মেলা ৮ ফেব্রুয়ারি শেষ হবে। মেলার গেট ও বিভিন্ন স্টল প্রতিদিন সকাল ১০টা থেকে রাত ১০টা পর্যন্ত খোলা থাকবে। প্রাপ্তবয়স্কদের প্রবেশের জন্য টিকিটের মূল্য নির্ধারণ করা হয়েছে ৩০ টাকা এবং অপ্রাপ্তবয়স্কদের জন্য ২০ টাকা। তাছাড়া এবারই প্রথম মেলার টিকিট অনলাইনে পাওয়া যাচ্ছে।



রাইজিংবিডি/ঢাকা/১২ জানুয়ারি ২০১৯/নাসির/রফিক

Walton AC
     
Walton AC
Marcel Fridge