ঢাকা, বুধবার, ১১ বৈশাখ ১৪২৬, ২৪ এপ্রিল ২০১৯
Risingbd
সর্বশেষ:

ব্যাংকের চেয়ারম্যান-এমডিদের বিদেশ ভ্রমণে কড়াকড়ি

কেএমএ হাসনাত : রাইজিংবিডি ডট কম
     
প্রকাশ: ২০১৯-০৪-১৬ ৮:৩৫:০৭ এএম     ||     আপডেট: ২০১৯-০৪-১৬ ১২:৪৯:৩২ পিএম

বিশেষ প্রতিবেদক : রাষ্ট্রায়ত্ত বাণিজ্যিক ব্যাংকের পরিচালনা পর্ষদের  চেয়ারম্যান ও ব্যবস্থাপনা পরিচালকদের (এমডি) একসঙ্গে বিদেশ যাওয়ার উপর কড়াকড়ি আরোপ করা হয়েছে। এর ফলে এখন থেকে কোনো রাষ্ট্রায়ত্ত ব্যাংকের চেয়ারম্যান ও এমডি একই সঙ্গে বিদেশ ভ্রমণ করতে পারবেন না।

সম্প্রতি অর্থ মন্ত্রণালয়ের আর্থিক প্রতিষ্ঠান বিভাগ থেকে এ সংক্রান্ত একটি পরিপত্র জারি করে এ নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে।

রাষ্ট্র মালিকানাধীন বাণিজ্যিক ব্যাংকগুলোর শীর্ষ পদাধীকারিদের বিদেশ সফর বিষয়ক এই পরিপত্রে বলা হয়েছে, লক্ষ্য করা যাচ্ছে যে, ব্যাংকগুলোর চেয়ারম্যান ও ব্যবস্থাপনা পরিচালকেরা বিভিন্ন সময়ে একসঙ্গে বিদেশ সফরে যান এবং কোনো কোনো ক্ষেত্রে দীর্ঘ সময় অবস্থান করেন। এর ফলে বিদেশ সফরের ক্ষেত্রে ব্যাংকের পরিচালনা পর্ষদে সিদ্ধান্ত গ্রহণ করা হলেও তা মন্ত্রণালয়কে যথাসময়ে অবহিত করা হয় না এবং এমনকি অনেক ক্ষেত্রে জিও’র (সরকারি আদেশ) কপিও মন্ত্রণালয়ে পাঠানো হয় না।

পরিপত্রে বলা হয়েছে, দুইজন একই সঙ্গে বিদেশে অবস্থান করলে ব্যাংকের স্বাভাবিক কর্মকাণ্ডসহ জরুরি প্রয়োজনে আর্থিক বিষয়ে সিদ্ধান্ত গ্রহণ প্রক্রিয়া ব্যাহত হওয়ার আশঙ্কা থাকে। এ অবস্থায় যেসব কর্মসূচিতে চেয়ারম্যান কিংবা ব্যবস্থাপনা পরিচালকের অংশগ্রহণের বাধ্যবাধকতা নেই, সেখানে উপব্যবস্থাপনা পরিচালক বা যথোপযুক্ত পর্যায়ের অধীনস্থ কর্মকর্তারা অংশগ্রহণ করতে পারেন।

এ পরিস্থিতিতে এখন কোনো রাষ্ট্রায়ত্ত বাণিজ্যিক ব্যাংকের চেয়ারম্যান ও ব্যবস্থাপনা পরিচালক (এমডি) একই সময়ে বা একসঙ্গে বিদেশ সফরে যেতে পারবেন না। এ ক্ষেত্রে বিদেশে কার্য সম্পাদনের জন্য প্রয়োজনে অধীনস্থ সিনিয়র কর্মকর্তাদের পাঠানোর নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে।

এ বিষয়ে আর্থিক প্রতিষ্ঠান বিভাগের এক কর্মকর্তা জানিয়েছেন, অনেক দিন ধরেই লক্ষ্য করা যাচ্ছে রাষ্ট্রায়ত্ত খাতের বিভিন্ন ব্যাংকের চেয়ারম্যান ও এমডিরা ঘন ঘন বিদেশ সফরে যাচ্ছেন। অনেক ব্যাংকের ক্ষেত্রে দেখা গেছে, চেয়ারম্যান ও এমডি একদিন আগে পিছে করে প্রায় একই সঙ্গে বিদেশ সফর করছেন। এতে করে ব্যাংকের অনেক গুরুত্বপূর্ণ সিদ্ধান্ত নিতে অসুবিধা হচ্ছে। শুধু তাই নয়, অনেকে আবার আমাদের কাছে জিও (সরকারি আদেশ) কপিও পাঠাচ্ছেন না। এটি বিধি মোতাবেক হচ্ছে না। এ কারণে এই পরিপত্রটি জারি করা হয়েছে।

তিনি আরো বলেছেন, ‘যেখানে একজন সিনিয়র অফিসরাকে পাঠালেই চলে সেখানেও ব্যাংকের চেয়ারম্যান ও এমডি বিদেশ চলে যাচ্ছেন। এই বিষয়টিও তাদের ভেবে দেখতে হবে।’



রাইজিংবিডি/ঢাকা/১৬ এপ্রিল ২০১৯/হাসনাত/ইভা

Walton Laptop
     
Walton AC
Marcel Fridge