ঢাকা, মঙ্গলবার, ১ শ্রাবণ ১৪২৬, ১৬ জুলাই ২০১৯
Risingbd
সর্বশেষ:

নিম্ন আয়ের মানুষের জন্য বাজেটে বরাদ্দ দাবি

নাসির উদ্দিন : রাইজিংবিডি ডট কম
     
প্রকাশ: ২০১৯-০৬-২৫ ৪:১৭:৩১ পিএম     ||     আপডেট: ২০১৯-০৬-২৫ ৪:১৭:৩১ পিএম
নিম্ন আয়ের মানুষের জন্য বাজেটে বরাদ্দ দাবি
Voice Control HD Smart LED

অর্থনৈতিক প্রতিবেদক : শ্রমজীবী মানুষের কর্মসংস্থানের জন্য জাতীয় বাজেটে বিশেষ বরাদ্দ রাখার প্রস্তাব করেছে বেসরকারি উন্নয়ন গবেষণা প্রতিষ্ঠান বারসিক ও পরিবেশবাদী সংগঠন পবা।

মঙ্গলবার ‘জাতীয় বাজেট ও নগরের বস্তিবাসী নিম্ন আয়ের মানুষের ভাবনা’ শীর্ষক গোলটেবিল বৈঠকে এ প্রস্তাব করে সংগঠনটি। বেসরকারি উন্নয়ন গবেষণা প্রতিষ্ঠান বারসিক ও পরিবেশবাদী সংগঠন পবা যৌথভাবে এ বৈঠকের আয়োজন করে।

বৈঠকে বক্তারা বলেন, ২০১৯-২০২০ অর্থবছরের প্রস্তাবিত বাজেটের ব্যয় ধরা হয়েছে ৫ লাখ ২৩ হাজার ১৯০ কোটি টাকা। দেশের মোট জনসংখ্যা ১৭ কোটি হলে মাথাপিছু গড় ব্যয় ধরা হয়েছে ৩০,৭৭৬ টাকা। কিন্তু এই বাজেটে নগর দারিদ্র্য মানুষের কথা কোনো স্থানেই সুস্পষ্টভাবে স্থান পায়নি। ঢাকা শহরে প্রায় ৫ হাজার বস্তি রয়েছে।

বারসিক এর গবেষণায় দেখা যায়, বন্যা, নদী ভাঙ্গণ এবং গ্রামে কৃষিকাজ করে সংসার চালাতে না পেরে এবং অন্য কোনো আয়মূলক কাজ না পেয়ে গ্রাম থেকে মানুষ বস্তিতে আসতে বাধ্য হয়। বস্তিবাসীদের সবচেয়ে বড় সমস্যা তাদের আবাসন এবং কর্মসংস্থানের সংকট। শিক্ষা, স্বাস্থ্য, বিনোদন এবং সামাজিক নিরাপত্তা কোনোটাই নগরের নিম্ন আয়ের মানুষের জন্য নিশ্চিত হয়নি। নগরের বস্তিবাসী নিম্ন আয়ের মানুষের উন্নয়নে বিশেষ বরাদ্দ দরকার এবং এর প্রতিফলন এ বছর থেকেই হওয়া জরুরি। বস্তিবাসী ও নিম্ন আয়ের বিশাল অংশকে উন্নয়নের সাথী না করে কোনোভাবেই এসডিজির লক্ষ্যমাত্রা অর্জন সম্ভব হবে না।

বৈঠকে প্রধান অতিথির বক্তব্যে পংকজ ভট্টাচার্য বলেন, দেশের শ্রমজীবী মেহনতি মানুষেরা নিজেদের রক্ত দিয়ে এই দেশ স্বাধীন করেছেন। বাজেটে সব মানুষের চাহিদার প্রতিফলন থাকতে হবে। কিন্তু গরিব, মেহনতি ও নিম্ন আয়ের মানুষের জন্য কোনো বাজেট হয় না।

সংবিধান থেকে শুরু করে নির্বাচনী ইশতেহার সর্বত্র গরিব মেহনতি মানুষের উন্নয়নের ওপর বেশি জোর দেওয়া হয়েছে। কিন্তু এখনও শহরের বস্তিবাসী নিম্ন আয়ের মানুষেরা অধিকারবঞ্চিত ও নিষ্পেষিত। বস্তিবাসীদের আবাসন, শিক্ষা ও চিকিৎসা খাতের জন্য জাতীয় বাজেটে নির্দিষ্ট বরাদ্দ রাখতে হবে। প্রতিজন বস্তিবাসীর জন্য সরকারিভাবে ১০ টাকার ব্যাংক অ্যাকাউন্ট ও পরিচয়কার্ড দিতে হবে।

সভাপতির বক্তব্যে পবা চেয়ারম্যান আবু নাসের খান বলেন, দেশ এগিয়ে যাচ্ছে কিন্তু সকল উন্নয়ন উদ্যোগ একইভাবে সবার জন্য কাজে লাগছে না। শহর ও গ্রামের নিম্ন আয়ের মানুষেরা সবচেয়ে অবহেলিত। তাই তাদের জন্য পৃথক উন্নয়ন উদ্যোগ প্রয়োজন। বিশেষ করে তাদের বাসস্থান, শিক্ষা, চিকিৎসার ব্যবস্থা।

এ সময় তিনি সকল বস্তিবাসীদের জন্য সহজ শর্তে ব্যাংক ঋণ ও ১০ টাকায় ব্যাংক একাউন্ট খোলার দাবিও জানান।

এছাড়া বৈঠকে নিম্ন আয়ের মানুষের জন্য জাতীয় বাজেটে বিশেষ বরাদ্দ রাখতে অংশগ্রহণকারীরা বেশ কয়েকটি দাবি তুলে ধরেন। এগুলো হলো, বস্তিবাসীদের জন্য সরকারিভাবে সহজ শর্তে আবাসনের ব্যবস্থা করা। তাদের সকল কাজের ক্ষেত্রে সরকারিভাবে বেতন কাঠামো ও উৎসব ভাতা নির্ধারণ করা ও মর্যাদাপূর্ণ কাজের ব্যবস্থা করা। বস্তির শিশুদের জন্য আনুপাতিকহারে সরকারি স্কুল প্রতিষ্ঠা করা। যুবকদের জন্য কর্মসংস্থানবান্ধব প্রশিক্ষণ ব্যবস্থা করা। বস্তিবাসীদের জন্য ভর্তুকি মূল্যে নিত্য প্রয়োজনীয় পণ্য ক্রয়ের ব্যবস্থা করা। নিম্ন আয়ের মানুষদের জন্য সহজ শর্তে সুদমুক্ত ঋণের ব্যবস্থা করা। বস্তিবাসীদের জন্য আলাদা পরিচয়পত্র বা কার্ডের ব্যবস্থা করা। নিম্ন আয়ের মানুষদের নিয়ন্ত্রণে ও তাদের উৎপাদিত পণ্যের বাজার সৃষ্টি করা। সরকারি সামাজিক নিরাপত্তা বেস্টনি যেমন; বয়স্ক, বিধবা, মাতৃত্বকালীন, প্রতিবন্ধি ভাতাসহ অন্যান্য সুযোগ সুবিধায় তাদের যুক্ত করা। নিম্ন আয়ের মানুষদের মালিকানায় ক্ষুদ্র ও কুটির শিল্প প্রতিষ্ঠান গড়ে তোলা। বিনামূল্যে তাদের জন্য চিকিৎসার ব্যবস্থা নিশ্চিত করা।

এ সময় আরো উপস্থিত ছিলেন নগর দারিদ্র্য বিশেষজ্ঞ জাহাঙ্গীর আলম, গবেষক পাভেল পার্থ, বারসিক প্রতিনিধি সুদিপ্তা কর্মকার, নৃবিজ্ঞানী সৈয়দ আলী, বস্তিবাসী ইউনিয়নের নেতা কুলসুম বেগম, রাফেসা বেগম, পবার সম্পাদক ফেরদৌস আহমেদ উজ্জল প্রমুখ।

 

 

রাইজিংবিডি/ঢাকা/২৫ জুন ২০১৯/নাসির/সাইফ

Walton AC
ইউটিউব সাবস্ক্রাইব করুন
       

Walton AC
Marcel Fridge