ঢাকা, মঙ্গলবার, ১৩ আষাঢ় ১৪২৫, ২৬ জুন ২০১৮
Risingbd
সর্বশেষ:

এখন থেকেই উদ্যোগ নেওয়া প্রয়োজন

আলী নওশের : রাইজিংবিডি ডট কম
 
   
প্রকাশ: ২০১৮-০২-২৩ ৭:৪১:১৯ এএম     ||     আপডেট: ২০১৮-০৬-১৮ ১১:১৯:৩৩ এএম

এবারের এসএসসি পরীক্ষায় ধারাবাহিকভাবে প্রশ্নপত্র ফাঁস হয়েছে। যা সম্ভবত অতীতের সব রেকর্ড ভঙ্গ করেছে। একের পর এক প্রশ্নপত্র ফাঁসের ঘটনায় সম্প্রতি সচিবালয়ে  জরুরি সভা হয়। সংবাদমাধ্যমে প্রকাশিত খবর থেকে জানা যায়, আন্তঃমন্ত্রণালয় এ সভায় প্রশ্নপত্র ফাঁস রোধের পাশাপাশি পরীক্ষা সংশ্লিষ্ট অন্যান্য করণীয় নির্ধারণে  গুরুত্বপূর্ণ কিছু সিদ্ধান্ত গৃহীত হয়েছে।

ওই সভা শেষে শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের মাধ্যমিক ও উচ্চমাধ্যমিক শিক্ষা বিভাগের সচিব সোহরাব হোসাইন জানিয়েছেন, আগামী বছর থেকে মাধ্যমিক স্কুল সার্টিফিকেট (এসএসসি) পরীক্ষা নতুন প্রশ্নপত্র ও নতুন পদ্ধতিতে নেওয়া হবে। তবে নতুন পদ্ধতি কী হবে, তা আলোচনা করে ঠিক করা হবে বলে জানান তিনি। এছাড়া সবাই প্রশ্নব্যাংক তৈরির বিষয়ে একমত হয়েছেন বলেও জানান সচিব।

বর্তমানে প্রশ্নপত্র ফাঁস যে পর্যায়ে পৌঁছেছে তা জাতির জন্য খুবই লজ্জার। শিক্ষার্থী-শিক্ষক-অভিভাবক ও পরীক্ষাসংশ্লিষ্ট সবাই চান পরীক্ষা সুষ্ঠুভাবে সম্পন্ন হোক। শুভবুদ্ধির কোনো মানুষ প্রশ্ন ফাঁসকে সমর্থন কিংবা মেনে নিতে পারেন না। এবারও পরীক্ষার আগে ফাঁস রোধে নানা পদক্ষেপ নেওয়া হয়। কিন্তু কোনো কিছুই তা রোধ করতে পারেনি।

এ অবস্থায় সংশ্লিষ্ট দায়িত্বপ্রাপ্তরা বৈঠক করে কিছু সিদ্ধান্ত নিয়েছেন। তাদের উদ্যোগ যেন সফল হয় সে প্রত্যাশা করছি আমরা। কিন্তু ফাঁস এড়ানোর লক্ষ্যে ঘনঘন পরীক্ষা পদ্ধতি পরিবর্তন হলে শিক্ষার্থীরা যেসব অসুবিধার সম্মুখীন হবে তা নিয়েও ভাবতে হবে। বস্তুতঃ যে ব্যবস্থায়ই গ্রহণ করা হোক না কেন সংশ্লিষ্ট সবাই যদি শতভাগ  সততা ও নিষ্ঠার সঙ্গে দায়িত্ব পালন না করেন, তাহলে সব আয়োজন ব্যর্থতায় পর্যবসিত হবে। সুষ্ঠুভাবে পরীক্ষা সম্পন্ন করা যাবে না।

শিক্ষার্থীদের জীবনে প্রথম গুরুত্বপূর্ণ ধাপ হচ্ছে এসএসসি পরীক্ষা। এ পরীক্ষার  পদ্ধতি সম্পর্কে শিক্ষার্থীরা  বেশ আগে থেকে যথাযথভাবে অবগত হয় এবং সে অনুযায়ী প্রস্তুতি গ্রহণ করে থাকে। কিন্তু  হঠাৎ পরীক্ষা পদ্ধতি পরিবর্তন করলে তাদের প্রস্তুতিতে ব্যঘাত ঘটতে পারে। অবশ্যই পরীক্ষা সুষ্ঠুভাবে সম্পন্ন করার ব্যবস্থা গ্রহণ করতে হবে। তবে  পাশাপাশি পরীক্ষার্থীরা যাতে বিপাকে না পড়ে সে দিকেও লক্ষ্য রাখতে হবে। এ জন্য প্রয়োজন একটি যথাযথ ও টেকসই পরীক্ষা ব্যবস্থাপনা।

আর কিছুদিন পরই  (২ এপ্রিল ) শুরু হবে উচ্চমাধ্যমিক সার্টিফিকেট (এইচএসসি) পরীক্ষা। এত অল্প সময়ে এ পরীক্ষার বিষয়ে নতুন পদ্ধতি নিয়ে ভাবার কোনো সুযোগ নেই।  তবে কীভাবে তা সুষ্ঠুভাবে সম্পন্ন ও পরীক্ষার প্রশ্নপত্র ফাঁস রোধ করা যায়, সে বিষয়ে  পদক্ষেপ গ্রহণ জরুরি। আন্তঃমন্ত্রণালয় সভায় সচিব  সোহরাব হোসাইনও সে কথা বলেছেন।

যেহেতু আগামী এইচএসসি পরীক্ষা নতুন পদ্ধতিতে নেওয়ার সুযোগ নেই। এক্ষেত্রে দুর্বৃত্তদের চিহ্নিত করতে প্রযুক্তি বিশেষজ্ঞদের সহায়তা নিতে হবে। এ বিষয়ে এখন থেকেই উদ্যোগ নেওয়া প্রয়োজন। আমাদের প্রত্যাশা সুষ্ঠুভাবে এই পরীক্ষা সম্পন্ন করতে সংশ্লিষ্ট দায়িত্বপ্রাপ্তরা দ্রুত ও যথাযথ উদ্যোগ গ্রহণ করবেন।



রাইজিংবিডি/ঢাকা/২৩ ফেব্রুয়ারি ২০১৮/আলী নওশের

Walton Laptop
 
   
Walton AC