ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ১৩ আষাঢ় ১৪২৬, ২৭ জুন ২০১৯
Risingbd
সর্বশেষ:

আজিমপুরে প্রস্তুত রাখা হয়েছে ৮৫টি কবর

হাসান মাহামুদ : রাইজিংবিডি ডট কম
     
প্রকাশ: ২০১৯-০২-২২ ১১:৩৫:৫৬ এএম     ||     আপডেট: ২০১৯-০২-২৩ ২:২২:০৩ পিএম
Walton AC 10% Discount

নিজস্ব প্রতিবেদক : পুরান ঢাকার চকবাজারে ভয়াবহ অগ্নিকাণ্ডে নিহতদের দাফনের জন্য আজিমপুর কবরস্থানে ৮৫টি কবর প্রস্তুত রাখা হয়েছে। ইতোমধ্যে সেখানে মরদেহ দাফন শুরু হয়েছে।

আজিমপুর কবরস্থানের জ্যেষ্ঠ মোহরার হাফেজ মো. হাফিজুল ইসলাম এই তথ্য জানিয়েছেন।

জানা গেছে, ভয়াবহ অগ্নিকাণ্ডে নিহতদের মধ্যে অধিকাংশের দাফন হবে এই কবরস্থানে। ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতালের মর্গে লাশ শনাক্তের পর বৃহস্পতিবার দুপুর থেকে মরদেহ হস্তান্তর শুরু হয়। এ পর্যন্ত ৩৮ জনের মরদেহ শনাক্ত করে পরিবারের কাছে তা বুঝিয়ে দেওয়া হয়েছে। এদের মধ্যে অনেকেই প্রিয়জনের মরদেহ নিয়ে ঢাকার বাইরে বাড়ির পথ ধরেন। আর ঢাকার কয়েকজনের মরদেহ দাফন করা হয় আজিমপুরে।

কবরস্থানের জ্যেষ্ঠ মোহরার হাফেজ মো. হাফিজুল ইসলাম বলেন, বিকাল সাড়ে ৫টার দিকে অগ্নিকাণ্ডে নিহত পুরান ঢাকার কেবি রোডের বাসিন্দা মো. ইয়াসিনের (৩৩) লাশ দাফন করা হয়। আর সন্ধ্যা সাড়ে ৭টার দিকে ইসহাক (৪০) নামের আরেকজনের মৃতদেহ দাফন করা হয়।

তিনি বলেন, চকবাজারের অগ্নিকাণ্ডের পর কর্তৃপক্ষ কবর প্রস্তুত করে রাখতে বলেছে। আমরা ৮৫টি কবর প্রস্তুত করে রেখেছি।

বুধবার রাত সাড়ে ১০টার দিকে চুড়িহাট্টার ওয়াহিদ চেয়ারম্যানের চারতলা ভবনে প্রথমে আগুন লাগে, এরপর তা ছড়িয়ে পড়ে পাশের একটি, পেছনের একটি এবং সরু গলির বিপরীত পাশের দুটি ভবনে। আগুন লাগার পরপরই চার তলা ভবনটির সামনে থাকা বিদ্যুতের ট্রান্সফর্মার বিস্ফোরণ ঘটে। ওই সময় রাস্তায় থাকা কয়েকটি গাড়িতেও আগুন ধরে যায়। আগুনের সময় রাজমনি হোটেলের সামনের রাস্তায় কয়েকটি গ্যাস সিলিন্ডার ছিল। ট্রান্সফর্মার বিস্ফোরণের পর ওই গ্যাস সিলিন্ডারেও আগুন লেগে ভবনে ও রাস্তায় ছড়িয়ে পড়ে। এ ঘটনায় ৬৭ জন মারা যান।




রাইজিংবিডি/ঢাকা/২২ ফেব্রুয়ারি ২০১৯/হাসান/ইভা

Walton AC
     
Walton AC
Marcel Fridge