ঢাকা, সোমবার, ১৩ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৬, ২৭ মে ২০১৯
Risingbd
সর্বশেষ:

‘রবিনহুড ব্যাংকার’

শাহিদুল ইসলাম : রাইজিংবিডি ডট কম
     
প্রকাশ: ২০১৮-১০-১৪ ৭:৫৬:১০ এএম     ||     আপডেট: ২০১৮-১০-১৪ ১১:১৪:২৭ এএম
Walton AC

শাহিদুল ইসলাম : রবিনহুডের কথা মনে আছে? রাজা, ধনীদের সম্পদ লুট করে গরিবদের বিলিয়ে দিতেন। এবার বাস্তবে ঘটেছে এমন ঘটনা।

গত সাত বছর ধরে রবিনহুডের মতো কাজ করে আসছিলেন ইতালির ফোরনি দি সোপরা শহরের এক ব্যাংক কর্মকর্তা। ওই ব্যাংকের ম্যানেজার গিলবার্তো বাসচিরা ধনীদের অ্যাকাউন্ট থেকে প্রায় দুই মিলিয়ন মার্কিন ডলার (১ মিলিয়ন=১০ লাখ)সরিয়ে গরিবদের দিয়েছেন। এই কাজের জন্য তিনি ইতোমধ্যে ‘রবিনহুড ব্যাংকার’ হিসেবে পরিচিতি পেয়েছেন।

বিবিসিতে প্রাকশিত সংবাদের মাধ্যেমে জানা যায়, ২০০৯ সালে বিশ্ব মন্দার সময় থেকেই গিলবার্তো এই কাজ শুরু করেন। কারণ ওই সময়ে তার ব্যাংকের অনেক গ্রাহক নির্ধারিত জামানতের অভাবে ঋণ নিতে পারছিলেন না। অভাবী মানুষের কষ্ট ভীষণ নাড়া দেয় তাকে। ফলে তিনি তুলনামূলক ধনী গ্রাহকদের অ্যাকাউন্ট থেকে টাকা সরিয়ে আর্থিকভাবে অসচ্ছল গ্রাহকদের অ্যাকাউন্টে জমা করে দিতেন। এতে অসচ্ছল গ্রাহক ব্যাংক থেকে ঋণ পেতে শুরু করে। তবে তিনি গ্রাহকদের শর্ত দিয়েছিলেন তারা আর্থিকভাবে সচ্ছল হলে টাকা ফিরিয়ে দিতে হবে। এভাবে তিনি অনেক মানুষকে সাহায্য করেছেন। কেউ কেউ টাকা ফেরত দিলেও অনেকেই টাকা ফেরত না দিয়ে শহর থেকে সটকে পড়েছেন।

এভাবে গত সাত বছর গিলবার্তো গোপনে মানুষকে সাহায্য করলেও চলতি বছর জানাজানি হয়ে যায়। ব্যাংক কর্তৃপক্ষ তার বিরুদ্ধে আদালতে অভিযোগ করে। বিচার শুরু হয় গিলবার্তোর। দুই বছরের জেল হয়েছে তার। এছাড়া নিজের চাকরি খুইয়েছেন, এমনকি নিজের বাড়িটাও হাতছাড়া হয়েছে ঋণ পরিশোধ করতে গিয়ে।

এত কিছুর পরও নিজেকে নির্দোষ দাবি করেছেন গিলবার্তো।  সংবাদমাধ্যমে দেয়া এক সাক্ষাৎকারে তিনি বলেন, ‘আমি একটি পয়সাও নিজের জন্য নিইনি। সবসময় গ্রাহকদের আর্থিক নিরাপত্তা দিতে চেয়েছি। যারা অভাবি তাদের সাহায্য করেছি।’ ‘তার আইনজীবী বিবিসিকে দেয়া এক সাক্ষাৎকারে বলেন, আমার মক্কেল এই ঘটনার জন্য এখন অনুতপ্ত। তিনি যদি নিজের চাকরি আবার ফিরে পান তবে দ্বিতীয়বার এই কাজ করবেন না।’ 




রাইজিংবিডি/ঢাকা/১৪ অক্টোবর ২০১৮/মারুফ

Walton AC
     
Walton AC
Marcel Fridge