ঢাকা, শুক্রবার, ৮ আষাঢ় ১৪২৫, ২২ জুন ২০১৮
Risingbd
সর্বশেষ:

‘নারী উদ্যোক্তা হতে গেলে কথায় কান দেয়া যাবে না’

হাসান ওয়ালী : রাইজিংবিডি ডট কম
 
   
প্রকাশ: ২০১৮-০৩-১০ ৭:৫৫:১৯ এএম     ||     আপডেট: ২০১৮-০৩-১১ ৫:১০:১০ পিএম

হাসান ওয়ালী: ডা. সালমা সুলতানা। কাজ করেন প্রাণি সম্পদ উন্নয়নে জনশক্তি তৈরিতে। বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়ার সময় থেকেই তিনি ভাবতেন প্রাণি সম্পদ উন্নয়ন নিয়ে। স্নাতক শেষ করে ২৭ বছর বয়সেই প্রাণিসম্পদ উন্নয়নের লক্ষ্যে প্রতিষ্ঠা করেন ‘মডেল লাইভস্টক ইনস্টিটিউট ঢাকা’ (এমলিড)। যা দেশের প্রথম বেসরকারি প্রাণিচিকিৎসা প্রশিক্ষণ ইনস্টিটিউট।

শুরুটা মোটেও সুখের ছিলো না। শুরুতে মানুষের ঠাট্টা বিদ্রুপের শিকার হলেও পরিশ্রমই তাকে এনে দিয়েছে বিভিন্ন দেশি-বিদেশি সম্মাননা।

‘২০১২ সালে চট্টগ্রাম ভেটেরিনারি ও অ্যানিমেল সায়েন্সেস বিশ্ববিদ্যালয় থেকে ডক্টর অব ভেটেরিনারি মেডিসিন (ডিভিএম) বিষয়ে স্নাতক শেষ করি। প্রাণি চিকিৎসকদের আমাদের দেশে খুব একটা সম্মানের চোখে দেখা হয় না বলে বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তি হওয়ার পর থেকেই হতাশ ছিলাম। স্নাতকোত্তরের ক্লাস শুরুর জন্য অপেক্ষা না করে বাকৃবির অধীনে চাকরি নিই কমিউনিটি বেইজড ডেইরি ভেটেরিনারি ফাউন্ডেশনে ভেটেরিনারি অফিসার হিসেবে।’ বলছিলেন সালমা সুলতানা।

এই চাকরিই তাকে আজকের এই অবস্থানে আনতে সহযোগিতা করেছে। সেখানে মাত্র পাঁচ মাস চাকরি করেই ঠিক করে ফেলেন প্রাণি চিকিৎসার জন্য একটি প্রশিক্ষণ ইনস্টিটিউট চালু করবেন। ২০১৫ সালে প্রতিষ্ঠা করেন স্বপ্নের সেই প্রতিষ্ঠান। শুরুর গল্প জানতে চাইলে সালমা সুলতানা বলেন, ‘শুরুতে আমি যখন উদ্যোক্তা হতে চাই তখন আমার পরিবারের মধ্যে দুই ভাগ হয়ে গিয়েছিল। কিন্তু আমার বাবা আমার পক্ষে ছিলেন। শুরুতে অনেক ফ্রেন্ড এই কাজ ছোট করে দেখতো, তারা প্রাণি চিকিৎসা নিয়ে কাজ করার পক্ষে ছিলো না। তবে সময়ের সাথে সাথে তাদের দৃষ্টিভঙ্গীর পরিবর্তন হয়েছে।’
 


দক্ষ জনশক্তি তৈরির জন্য সালমা সুলতানার প্রতিষ্ঠানে এক বছর দুই মাস মেয়াদি ‘অ্যানিমেল হেলথ অ্যান্ড প্রোডাকশন’ ও ‘পোলট্রি ফার্মিং’ এর ওপর সার্টিফিকেট ও বিভিন্ন স্বল্পমেয়াদি প্রশিক্ষণ কোর্স করানো হয়। প্রাণীর চিকিৎসার জন্য এখানে হাসপাতালের কার্যক্রমও চালু রয়েছে। এখানে সপ্তাহের ছয় দিন বহির্বিভাগে গবাদিপশুর চিকিৎসাসেবা দেওয়া হয়। ডায়াগনস্টিক-সুবিধাও রয়েছে। জরুরি প্রয়োজনে শুক্রবারও সেবা দেওয়া হয়। এসব করতে গিয়ে অন্যান্য চিকিৎসকদের বাধার মুখেও পড়তে হয়েছে অদম্য এই নারী উদ্যোক্তাকে। ‘যখন আমি ফ্রেন্ডদের এনে মেডিকেল এসিস্ট্যান্ট হিসেবে প্রশিক্ষণ দেওয়া শুরু করলাম, তখন কিছু চিকিৎসক তাদের অবস্থানের ক্ষতি হবে ভেবে ভয় পেলেন।কিন্তু আসলে তো তা না। প্রাথমিক চিকিৎসা তো সহকারীরাই করেন। সবকিছু উপেক্ষা করেই আসলে আমি এগিয়েছি।’

এই কর্মযজ্ঞের জন্য এখন পর্যন্ত বেশ কিছু সম্মাননা পেয়েছেন। সম্প্রতি ইংরেজি দৈনিক ডেইলি স্টারের ২৭তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীতে নারী উদ্যোক্তা হিসেবে সম্মাননা পেয়েছেন তিনি। এছাড়াও ‘জয় বাংলা ইয়ুথ অ্যাওয়ার্ড-২০১৭’, সফল প্রাণী চিকিৎসক হিসেবে পেয়েছেন ‘মাদার তেরেসা অ্যাওয়ার্ড-২০১৭’। এই মার্চের ১৮ তারিখে জার্মানির ফ্রাঙ্কফুর্টে আনুষ্ঠানিকভাবে হাতে পাবেন ‘ইন্টারন্যাশনাল আর্চ অব ইউরোপ ফর কোয়ালিটি অ্যান্ড টেকনোলজি অ্যাওয়ার্ড-২০১৮’।

যে সকল নারী উদ্যোক্তা হতে চান তাদের উদ্দেশ্যে সালমা সুলতানার পরামর্শ ‘নারী উদ্যোক্তা হতে গেলে মানুষের কথায় কান দেওয়া যাবে না। আর সবকিছু সম্পর্কে চিন্তা করেই এগুতে হবে। প্রথম দিকে সে সহযোগিতা পাবে না। এ জন্য তাকে শক্ত থাকতে হবে এবং একবার কাজে নামলে শক্তভাবে সামনের দিকে যেতে হবে। যতো বাধা আসুক থামা যাবে না। উদীয়মান সূর্যকে দাবিয়ে রাখা যাবে না, সূর্য উদয় হবেই।’




রাইজিংবিডি/ঢাকা/১০ মার্চ ২০১৮/তারা

Walton Laptop
 
   
Walton AC