ঢাকা, বুধবার, ৩০ কার্তিক ১৪২৫, ১৪ নভেম্বর ২০১৮
Risingbd
সর্বশেষ:

ভয়াবহ সব ভূমিকম্প

আহমেদ শরীফ : রাইজিংবিডি ডট কম
 
     
প্রকাশ: ২০১৮-০৯-১৪ ৮:৫৬:৩৫ এএম     ||     আপডেট: ২০১৮-০৯-১৪ ১২:৫৬:৩৩ পিএম
প্রতীকী ছবি

আহমেদ শরীফ : প্রাকৃতিক দুর্যোগ ভূমিকম্প আকস্মিকভাবে সব কিছু লন্ডভন্ড করে দেয়। বাড়ি ঘর যেমন ধ্বংস হয়, তেমনি নিহত হয় অসংখ্য মানুষ। বাংলাদেশ সহ বিশ্বের অনেক দেশই ভূমিকম্প ঝুঁকিতে আছে।

ইতিহাসে এমন অনেক ভূমিকম্পের ঘটনা ঘটেছে, যাতে একটি ঝাঁকুনিতে নিহত হয়েছে হাজার হাজার, এমনকি লাখ লাখ মানুষ। ইতিহাসের ভয়াবহ সব ভূমিকম্প নিয়ে এই আয়োজন।

সবচেয়ে শক্তিশালী ভূমিকম্প
পৃথিবীর ইতিহাসে এ যাবতের সবচেয়ে শক্তিশালী ভূমিকম্পটি আঘাত হানে ১৯৬০ সালে চিলির ভলদিভিয়ায়। রিখটার স্কেলে ওই ভূমিকম্পের মাত্রা ছিল ৯.৪, আরেক হিসাবে ৯.৬। ওই ভূমিকম্প প্রায় ১০ মিনিট ধরে চলছিল। এর ফলে যে সুনামি হয় তাতে চিলি, হাওয়াই, জাপান, ফিলিপিন সহ বেশ কয়েকটি দেশ ক্ষতিগ্রস্ত হয়। তবে এতে ঠিক কতো জন মারা যায় ও কী পরিমাণ আর্থিক ক্ষতি হয়, তা নিয়ে ভিন্ন মত আছে। নিহতের সংখ্যা ১ হাজার থেকে ৭০০০ পর্যন্ত হতে পারে জানা গেছে।

ভয়াবহতম ভূমিকম্প
ইতিহাসে ভয়াবহ কয়েকটি ভূমিকম্প-

* চীনে ১৫৫৬ সালে : চীনের শানঝি প্রদেশে (সেসময় এর নাম ছিলো শেনসি), ১৫৫৬ সালের ২৩ জানুয়ারি সবচেয়ে ভয়াবহ ভূমিকম্পটি হয়েছিল। রিখটার স্কেলে ৮ মাত্রার ভূমিকম্পটির উৎপত্তিস্থল থেকে ২৭০ মাইল এলাকা পর্যন্ত ধ্বংসস্তুপে পরিণত হয়। ভূমিকম্পে মারা যায় ৮ লাখ ৩০ হাজারের বেশি মানুষ, যা ইতিহাসে ভূমিকম্পে সবচেয়ে বেশি মানুষ মারা যাওয়ার ঘটনা। ভয়াবহ ওই ভূমিকম্পে প্রদেশটির প্রায় সব শহরই ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। অনেক শহরের বাড়িঘর মাটির গভীরে দেবে গেছে।

* চীনে ১৯৭৬ সালে : ইতিহাসের দ্বিতীয় ভয়াবহ ভূমিকম্পও চীনে আঘাত হানে। ১৯৭৬ সালের ২৭ জুলাই তাংশান সিটিতে ৭.৫ মাত্রার ভূমিকম্পে সরকারি হিসেবে মারা যায় ২ লাখ ৫৫ হাজার মানুষ। তবে বেসরকারি হিসেবে মৃতের সংখ্যা পরে ৬ লাখ ৫৫ হাজার ছাড়ায়।

* সিরিয়ায় ১১৩৮ সালে : সিরিয়ার আলেপ্পোতে ১১৩৮ সালের ৯ আগস্ট যে ভয়াবহ ভূমিকম্প আঘাত হানে, তার মাত্রা জানা যায়নি। তবে ওই ভূমিকম্পে আলেপ্পো সিটির বেশিরভাগ অংশই ধ্বংসস্তুপে পরিণত হয়। মারা যায় অন্তত ২ লাখ ৩০ হাজার মানুষ।

* ইন্দোনেশিয়ায় ২০০৪ সালে : ইতিহাসের ভয়াবহ এক ভূমিকম্পের ঘটনা ঘটেছে আমাদের সময়েই ২০০৪ সালের ২৬ ডিসেম্বর ইন্দোনেশিয়ার সুমাত্রায়। ওই ভূমিকম্পের মাত্রা ছিল ৯.১। আর তাতে মারা যায় ২ লাখ ২৭ হাজার ৮৯৮ জন। এছাড়া গৃহহীন হয়ে পড়ে প্রায় ১১ লাখের মতো মানুষ। ভয়াবহ ওই ভূমিকম্পের কারণে সৃষ্ট সুনামি দক্ষিণ এশিয়া ও পূর্ব আফ্রিকার ১৪টি দেশে আঘাত হানে, তাতে ক্ষতির পরিমাণ হয় অকল্পনীয়।

* হাইতিতে ২০১০ সালে : হাইতির পোর্ট অ প্রিন্সে ২০১০ সালের ১২ জানুয়ারি ৭ মাত্রার এক ভয়াবহ ভূমিকম্পে মারা যায় ২ লাখ ২২ হাজার ৫৭০ জন। ঘর হারা হয়েছে ১০ লাখেরও বেশি মানুষ।

* ইরানে ৮৫৬ সালে : ইরানের দামগানে ৮৫৬ সালের ২২ ডিসেম্বরে আঘাত হানা ভূমিকম্পের মাত্রা কতো ছিল জানা যায়নি। তবে ভয়াবহ ওই ভূমিকম্পে মারা যায় অন্তত ২ লাখ মানুষ। দামগান সিটির প্রায় পুরোটাই ধ্বংস হয়ে যায়।

* চীনে ১৯২০ সালে : চীনের হাইয়ান প্রদেশের নিনজিয়া এলাকায় ১৯২০ সালের ১৬ ডিসেম্বর ৭.৮ মাত্রার এক ভূমিকম্পে হাইয়ান কাউন্টিতে মারা যায় ৭৩ হাজারের বেশি মানুষ। আর গুয়ান  কাউন্টিতে মারা যায় ৩০ হাজার। শক্তিশালী ওই ভূমিকম্পে মাটিতে বিশাল ফাটল দেখা দেয়, কয়েকটি নদীর গতিপথ পাল্টে যায়। চীনের ৭টি প্রদেশে ওই ভূমিকম্পের আঘাতে মোট ২ লাখের মতো মানুষ মারা যায়।

এছাড়া ইরানের আরদাবিলে ৮৬৩ সালের ২৩ মার্চ ভূমিকম্পে ১ লাখ ৫০ হাজার ও জাপানের কেন্টোতে ১৯২৩ সালের ১ সেপ্টেম্বর শক্তিশালী ভূমিকম্পে মারা যায় ১ লাখ ৪২ হাজার ৮০০ জন। ইতিহাসে আরো বেশ কয়েকটি ভূমিকম্পে ১ লাখ ও তার কাছাকাছি অনেক মানুষ মারা যাওয়ার ঘটনা রয়েছে।

তথ্যসূত্র: এনবিসি নিউজ



রাইজিংবিডি/ঢাকা/১৪ সেপ্টেম্বর ২০১৮/ফিরোজ

Walton Laptop
 
     
Marcel