ঢাকা, শুক্রবার, ৮ আষাঢ় ১৪২৬, ২১ জুন ২০১৯
Risingbd
সর্বশেষ:

৪০০ গোলের পর সতীর্থদের প্রতি মেসির কৃতজ্ঞতা

আবু হোসেন পরাগ : রাইজিংবিডি ডট কম
     
প্রকাশ: ২০১৯-০১-১৬ ৫:২৫:৫৯ পিএম     ||     আপডেট: ২০১৯-০১-১৬ ৮:০১:২৭ পিএম
লিওনেল মেসি
Walton AC 10% Discount

ক্রীড়া ডেস্ক : লা লিগার ইতিহাসে প্রথম খেলোয়াড় হিসেবে ৪০০ গোলের মাইলফলক ছোঁয়া লিওনেল মেসি তার বর্তমান ও প্রাক্তন সতীর্থদের প্রতি কৃতজ্ঞতা জানিয়েছেন। তাদের সাহায্য ছাড়া এই অর্জন সম্ভব হতো না বলে মনে করেন বার্সেলোনার আর্জেন্টাইন ফরোয়ার্ড।

ন্যু ক্যাম্পে গত রোববার এইবারের বিপক্ষে বার্সেলোনার ৩-০ গোলে জয়ের ম্যাচে ৪০০ গোলের মাইলফলক স্পর্শ করেন মেসি। ম্যাচের ৫৩ মিনিটে বাঁ পায়ের শটে মাইলফলক ছোঁয়া গোলটা করেন ৩১ বছর বয়সি তারকা।

মেসি লা লিগার সর্বকালের সর্বোচ্চ গোলদাতা আগে থেকেই। ২০১৪ সালের নভেম্বরে অ্যাথলেটিক বিলবাওয়ের কিংবদন্তি তেলমো জারার ২৫১ গোলের ৫৯ বছরের রেকর্ড ভেঙে দেন বার্সা ফরোয়ার্ড।  

তালিকায় বর্তমানে দুইয়ে থাকা ক্রিস্টিয়ানো রোনালদোর চেয়ে ৮৯ গোল এগিয়ে আছেন মেসি। রোনালদো গত জুলাইয়ে রিয়াল মাদ্রিদ ছেড়ে জুভেন্টাসে পাড়ি জমান। বর্তমানে খেলা খেলোয়াড়দের মধ্যে তালিকায় সেরা ত্রিশের মধ্যে আছেন আর মাত্র দুজন- বিলবাওয়ের স্ট্রাইকার আরিজ আদুরিজ (১৫৭ গোল) ও রিয়ালের স্ট্রাইকার করিম বেনজেমা (১৩৪ গোল)।

এই মৌসুমে স্পেনের শীর্ষ লিগে এরই মধ্যে ১৭ গোল হয়ে গেছে মেসির। টানা দশ মৌসুমে কমপক্ষে ২৫ গোলের রেকর্ড গড়ার পথেই আছেন পাঁচবারের ব্যালন ডি’অর জয়ী তারকা।

৪০০ গোলের মাইলফলক ছুঁতে পেরে নিজেকে গর্বিত মনে করছেন মেসি। বার্সেলোনাভিত্তিক পত্রিকা মুন্দো দেপোর্তিভোকে মেসি বলেছেন, ‘৪০০ গোলের মাইলফলকে পৌঁছে আমি গর্বিত। আশা করি, আরো কিছু গোল করতে পারব।’

গোল কিংবা রেকর্ড নিয়ে কখনো মাথা ঘামান না মেসি। দলের জয়ই তার কাছে বড়, ‘আমি রেকর্ড কিংবা পরিসংখ্যানে তেমন একটা মনোযোগ দিই না। আমি প্রতিটা দিন ধরে ভাবতে পছন্দ করি। শুধু গোল করার চেয়ে আমি মনে করি, প্রতিটা ম্যাচ একটি চ্যালেঞ্জ। যেখানে তিন পয়েন্ট অর্জন করে আমাদের জিততে হবে এবং লা লিগার জন্য লড়াই করতে হবে। সবচেয়ে ধারাবাহিক দলটাই পুরস্কার পায়।’

‘আমি দলকে সাহায্য করার চেষ্টা করি, সেটা শুধু গোল করে নয়; গোলে সহায়তা করেও। এটা পরিষ্কার যে সতীর্থদের সাহায্য ছাড়া, যারা এখন আমার সঙ্গে আছে এবং যারা আগে ছিল, ৪০০ গোল করা অসম্ভব হতো।’

প্রথম গোলের কথা কখনো ভুলবেন না মেসি। তবে তার কাছে প্রতিটা গোলই ‘স্পেশাল’, ‘রোনির (রোনালদিনহো) পাস থেকে আলবাসেতের বিপক্ষে করা প্রথম গোলটা আমি কখনোই ভুলব না। ক্লাসিকোর গোল সব সময়ই বিশেষ কিছু, অ্যাটলেটিকো মাদ্রিদ, ভ্যালেন্সিয়া, সেভিয়ার মতো কঠিন দলের বিপক্ষে গোল করাটাও। এ ছাড়া আমাদের সমর্থকদের সামনে গোল করা ভাগ্যের ব্যাপার ছিল, ন্যু ক্যাম্প সব সময় দারুণ।’

‘শেষ পর্যন্ত সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ গোলগুলো সবচেয়ে দর্শনীয় নয়, তবে এগুলো আমাদের জয়ী হওয়ার জন্য সাহায্য করে।’



রাইজিংবিডি/ঢাকা/১৬ জানুয়ারি ২০১৯/পরাগ

Walton AC
     
Walton AC
Marcel Fridge