ঢাকা, মঙ্গলবার, ৬ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৬, ২১ মে ২০১৯
Risingbd
সর্বশেষ:

পাবনায় পুষ্পমেলা শুরু

শাহীন রহমান : রাইজিংবিডি ডট কম
     
প্রকাশ: ২০১৯-০১-১৯ ৮:৪৩:৫৯ পিএম     ||     আপডেট: ২০১৯-০১-১৯ ৮:৪৩:৫৯ পিএম

পাবনা প্রতিনিধি : পান চাটিয়া, গোল্ডেন ঝাউ, লিটল স্টার, পাইন ঝাউ, লন্ডমেক্স, অর্কিড, জারভেরা, ক্যালেনডোলা, ক্যাপসিকাম, গ্লাডিওলাস, গোলাপ, গাদাসহ নাম না জানা ফুলের সমাহার। এ যেন ফুলের বাগান। এমনই সব বাহারি ফুল গাছের সমাহার নিয়ে পাবনায় ১০ দিনব্যাপী পুষ্পমেলার আয়োজন করেছে জেলা কৃষি বিভাগ ও নার্সারী মালিক সমিতি।

শনিবার বিকেলে পাবনা কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের খামারবাড়ী চত্বরে প্রধান অতিথি হিসেবে পুষ্পমেলার উদ্বোধন করেন পাবনা সদর আসনের সংসদ সদস্য গোলাম ফারুক প্রিন্স। এ সময় জেলা প্রশাসক জসিম উদ্দিন, কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের উপ-পরিচালক কৃষিবিদ আজাহার আলী বক্তব্য রাখেন।

মেলার ১৭টি স্টলে দেখা মিলছে নানা জাতের বাহারি সব ফুলের। প্রথম দিনে দর্শানার্থীদের উপস্থিতি কম লক্ষ্য করা গেছে। মেলায় আসা কয়েক দর্শনার্থী বলেন, শহরের যান্ত্রিকতার মাঝে ফুলমেলার আয়োজন ভালো উদ্যোগ। তবে এত ছোট পরিসরে এই মেলা মন ভরাতে পারছে না। ফুলমেলা নিয়ে তেমন প্রচারণা নেই। তাদের প্রত্যশা, আরো বড় পরিসরে ফুলমেলা আয়োজনের।

পাবনা জেলা নার্সারী মালিক সমিতির সভাপতি আনিসুর রহমান জানান, বড় পরিসরে মেলার আয়োজন করা সম্ভব হচ্ছে না। স্থান সংকুলান না হওয়ায় ইচ্ছা থাকলেও বাড়ানো যাচ্ছে না স্টলের সংখ্যা। গতবছর যেমন সাড়া পাওয়া গিয়েছিল, এবারও তেমনি সাড়া মিলবে বলে আশা করেন তিনি।

জেলা কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের উপপরিচালক কৃষিবিদ মো. আজাহার আলী জানান, অন্য ফসলের চাইতে ফুল চাষ দ্বিগুণ লাভজনক হওয়ায় জেলার কৃষকদের মাঝে ফুল চাষের আগ্রহ বাড়ছে। পাবনা জেলার মাটি ও আবহাওয়া ফুল চাষের উপযোগী হওয়ায় ১৬-১৭ হেক্টর জমিতে ফুল চাষ হচ্ছে। যা থেকে উৎপাদিত ফুলের বর্তমান বাজার মূল্য প্রায় তিন কোটি টাকা।

গত বছর পুষ্পমেলা থেকে ১৫ লাখ টাকার ফুলগাছ বিক্রি হয়েছিল বলে জানান তিনি।



রাইজিংবিডি/পাবনা/১৯ জানুয়ারি ২০১৯/শাহীন রহমান/বকুল

Walton Laptop
     
Walton AC
Marcel Fridge