ঢাকা, শনিবার, ৪ অগ্রহায়ণ ১৪২৪, ১৮ নভেম্বর ২০১৭
Risingbd
সর্বশেষ:

‘সকল গর্ভধারণ হোক পরিকল্পিত’

শাহ মতিন টিপু : রাইজিংবিডি ডট কম
 
   
প্রকাশ: ২০১৭-১১-১৪ ৩:৩৯:৩৯ পিএম     ||     আপডেট: ২০১৭-১১-১৪ ৩:৩৯:৩৯ পিএম

নিজস্ব প্রতিবেদক : একটি শিশুকে পৃথিবীতে আনার আগে তার উপযোগী একটি জীবন তৈরি করা জরুরি। সবসময় বাবা-মা একটি শিশুর জন্য প্রস্তুত থাকেন না। এরকম অপরিকল্পিত গর্ভধারণ সমস্যা সৃষ্টি করে। ডায়াবেটিসে আক্রান্ত নারীদের ক্ষেত্রে যা একেবারেই অনুচিৎ।

বিশ্ব ডায়াবেটিস দিবস আজ। বিষয়টিকে গুরুত্ব দিয়ে এবছর দিবসটির প্রতিপাদ্য নির্ধারণ করা হয়েছে ‘সকল গর্ভধারণ হোক পরিকল্পিত’।

বিশেষজ্ঞরা বলেন, অপরিকল্পিত গর্ভধারণের জন্য যতটা না প্রতিরক্ষা ব্যবস্থাগুলোর অক্ষমতা দায়ী থাকে তারচেয়ে অনেক বেশি থাকে ব্যবহারকারীদের অজ্ঞতা এবং অসাবধানতা।

জন্মগত ত্রুটির কারণে দেশে কমপক্ষে ২০ শতাংশ নবজাতকের মৃত্যু হচ্ছে। শিশুমৃত্যু হ্রাসের ক্ষেত্রে এটি এখনো বড় বাধা। পরিকল্পিত গর্ভধারণের মাধ্যমে নবজাতকের জন্মগত ত্রুটি অনেকাংশে প্রতিরোধ করা সম্ভব। সম্প্রতি চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ (চমেক) হাসপাতালে আয়োজিত আলোচনা সভায় চিকিৎসক ও বিশেষজ্ঞরা এ কথা বলেন।

ডায়াবেটিস অনিরাময়যোগ্য রোগ । বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার মতে, বিশ্বব্যাপী মানুষের মৃত্যু ও শারীরিক অক্ষমতার একটি প্রধান কারণ হলো ডায়াবেটিস। নারী-পুরুষ-শিশু নির্বিশেষে সবারই ডায়াবেটিস হওয়ার আশঙ্কা রয়েছে। নিয়ন্ত্রিত না হলে নীরব ঘাতক হিসেবে পরিচিত এ রোগটি মানুষের কর্মক্ষমতা হরণের পাশাপাশি চোখ, হৃদযন্ত্র, মস্তিষ্ক, কিডনি ও ত্বকসহ বিভিন্ন অঙ্গ-প্রত্যঙ্গের ব্যাপক ক্ষতিসাধন করতে পারে। বর্তমানে বিশ্বে ১৯৯ মিলিয়ন নারী ডায়াবেটিস রোগে আক্রান্ত রয়েছে। ২০৪০ সালে এই সংখ্যা হতে পারে ৩১৩ মিলিয়ন। এমন পরিস্থিতিতে সকল গর্ভধারণ পরিকল্পিত হওয়াই বাঞ্ছণীয়।

রাষ্ট্রপতি মো: আবদুল হামিদ ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বিশ্ব ডায়াবেটিস দিবস উপলক্ষে পৃথক বাণী দিয়েছেন। প্রদত্ত বাণীতে রাষ্ট্রপতি মো: আবদুল হামিদ  বলেছেন, ‘বিশ্বের অন্যান্য দেশের মতো বাংলাদেশেও ডায়াবেটিস রোগীর সংখ্যা বৃদ্ধি পাচ্ছে। বিশ্বজুড়েই ডায়াবেটিস এক নীরব মহামারি। এটি রোধ করা না গেলে এ রোগ আমাদের মতো উন্নয়নশীল দেশের টেকসই উন্নয়নের পথে বড় অন্তরায় হয়ে উঠতে পারে।’

দিবসটি উপলক্ষে প্রদত্ত বাণীতে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেন, ‘স্বাস্থ্যসেবা জনগণের দোরগোড়ায় পৌঁছে দিতে দরিদ্র মানুষকে বিনামূল্যে ৩০ পদের ওষুধ দেওয়া হচ্ছে। সাড়ে ১৮ হাজার কমিউনিটি ক্লিনিক ও ইউনিয়ন স্বাস্থ্যকেন্দ্র স্থাপন করা হয়েছে। সারাদেশে গর্ভকালীন নারীদের বিনামূল্যে ডায়াবেটিস পরীক্ষা ও স্বল্পমূল্যে সেবা দিতে ডায়াবেটিক সমিতির সেবাকেন্দ্রগুলো কাজ করছে।’



রাইজিংবিডি/ঢাকা/১৪ নভেম্বর ২০১৭/টিপু

Walton
 
   
Marcel