ঢাকা, সোমবার, ৭ কার্তিক ১৪২৫, ২২ অক্টোবর ২০১৮
Risingbd
সর্বশেষ:

এসেনশিয়াল ড্রাগস : গোপালগঞ্জ কারখানার উদ্বোধন জুলাইয়ে

আসাদ আল মাহমুদ : রাইজিংবিডি ডট কম
 
     
প্রকাশ: ২০১৮-০৬-০৬ ৫:৫৫:৫৬ পিএম     ||     আপডেট: ২০১৮-০৬-০৬ ৫:৫৫:৫৬ পিএম

সচিবালয় প্রতিবেদক : সরকারি ওষুধ উৎপাদন প্রতিষ্ঠান এসেনশিয়াল ড্রাগস কোম্পানি লিমিটেডের (ইডিসিএল) থার্ড প্লান্ট স্থাপন করা হয়েছে। আগামী জুলাই মাসের শেষ সপ্তাহে আনুষ্ঠানিকভাবে প্রকল্পটির উদ্বোধন করবেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

বুধবার সচিবালয়ে স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের সম্মেলন কক্ষে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে এ কথা জানিয়েছেন স্বাস্থ্য ও পরিবার ক্যলাণ মন্ত্রী মোহাম্মদ নাসিম।

গোপালগঞ্জ জেলায় স্থাপিত ইডিসিএলের এই নতুন কারখানার উদ্বোধন উপলক্ষে স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রণালয়ের পক্ষ থেকে এই সংবাদ সম্মেলনের আয়োজন করা হয়।

তিনি বলেন, দেশের সব সরকারি হাসপাতাল, স্বাস্থ্যকেন্দ্র, কমিউনিটি ক্লিনিকগুলোতে বিনামূল্যে প্রায় সব ধরনের ঔষধ জনগণের মাঝে বিতরণ করা হয়। এর মধ্যে এসেনশিয়াল ড্রাগস কোম্পানি লিমিটেড প্রায় ৭২ শতাংশ সরবরাহ করে। বর্তমানে ইডিসিএলের ঢাকা ও বগুড়ায় দুটি কারখানা এবং খুলনায় একটি ল্যাটেক্স প্ল্যান্ট রয়েছে।

প্রধানমন্ত্রী সময় দিলেই নির্দিষ্ট দিনে প্রকল্পটির উদ্বোধনী অনষ্ঠানের আয়োজন করা হবে জানিয়ে তিনি বলেন, নতুন এ কারখানাটি চালু হলে সরকারি হাসপাতাল, স্বাস্থ্যকেন্দ্র, কমিউনিটি ক্লিনিকগুলোতে ইডিসিএল ১০০ শতাংশ ঔষধ সরবরাহ করতে পরবে।

তিনি আরো বলেন, দেশের স্বনামধন্য ওষুধ কোম্পানিগুলোর সঙ্গে প্রতিযোগিতা করে মানসম্পন্ন ওষুধ উৎপাদন করছে এসেনসিয়াল ড্রাগস্। প্রতিদিন প্রায় ২ কোটি মানুষ সরকারের বিনামূল্যে দেওয়া ওষুধ সেবন করে থাকে। সরকারের চলমান স্বাস্থ্যসেবা খাতকে আরও বেশি জোরদার করার লক্ষ্যে এবং সরকারি অর্থ সাশ্রয় করে বিদেশে ওষুধ রপ্তানির মাধ্যমে বৈদেশিক মুদ্রা অর্জনের উদ্দেশ্যে ঢাকা-খুলনা মহাসড়কের দক্ষিণ পাশে গোপালগঞ্জে প্রকল্পটি বাস্তবায়ন করা হচ্ছে।

অনুষ্ঠানে ইডিসিএলের ব্যবস্থাপনা পরিচালক প্রফেসর ডা. এহেসানুল কবির জানান, ৬০০ কোটি টাকা ব্যয়ে ১০ একর জমির ওপর এ কারখানাটি নির্মাণ করা হয়েছে। গোপালগঞ্জের প্লান্টটি চালু হলে সেখানে বিভিন্ন পর্যায়ে প্রায় ৮০০ মানুষের কর্মসংস্থানের সুযোগ সৃষ্টি হবে।

তিনি বলেন, কারখানাটি চালু হলে উৎপাদন করা হবে গর্ভনিরোধক পিল ও ইনজেকশন, আইভি ফ্লুইড, পেনিসিলিন ও আয়রন ট্যাবলেট। কারখানাটি চালু হলে বছরে ৩ হাজার ৩০০ মিলিয়ন জন্মনিয়ন্ত্রণ ইনজেকশন, ৩ হাজার ২ মিলিয়ন পিল, ১৮১ মিলিয়ন পেনিসিলিন ট্যাবলেট, ২১৭ মিলিয়ন পেনিসিলিন ক্যাপসুল উৎপাদন হবে।

সংবাদ সম্মেলনে স্বাস্থ্যসেবা বিভাগের সচিব সিরাজুল হক খান উপস্থিত ছিলেন।



রাইজিংবিডি/ঢাকা/৬ জুন ২০১৮/আসাদ/মুশফিক

Walton Laptop
 
     
Walton