ঢাকা, মঙ্গলবার, ৬ অগ্রহায়ণ ১৪২৫, ২০ নভেম্বর ২০১৮
Risingbd
সর্বশেষ:

জাপানে রেকর্ড দুর্যোগে নিহতের সংখ্যা বেড়ে ১৪১

সাইফুল আহমেদ : রাইজিংবিডি ডট কম
 
     
প্রকাশ: ২০১৮-০৭-১০ ১:০২:২৬ পিএম     ||     আপডেট: ২০১৮-০৭-১১ ১:৩৭:৪৯ পিএম

আন্তর্জাতিক ডেস্ক : জাপানে অতিরিক্ত বৃষ্টিপাতে সৃষ্ট বন্যা ও ভূমিধসে মৃতের সংখ্যা বেড়ে ১৪১ জনে দাঁড়িয়েছে। দেশটির পশ্চিমের শহর কুরাশিকিতে আটকা পড়ে আছে হাজারো মানুষ।

মঙ্গলবার দেশটির কর্মকর্তারা এ তথ্য জানিয়েছেন। কর্মকর্তারা অতি বৃষ্টিতে সৃষ্ট এই বন্যা ও ভূমিধসে হতাহতকে ইতিহাসের অন্যতম প্রাকৃতিক দুর্যোগ বলে আখ্যা দিয়েছেন। গত তিন দশকে জাপানে কোনো প্রাকৃতিক দুর্যোগে এত প্রাণহানি ঘটেনি।

বার্তা সংস্থা রয়টার্স জানিয়েছে, কুরাশিকি শহরটির জনসংখ্যা পাঁচ লাখের কম। জুলাইয়ে স্বাভাবিকভাবে যে ধরনের বৃষ্টিপাত হয়, এবার তার চেয়ে তিনগুণ বেশি বৃষ্টি হয়েছে। এ কারণে পশ্চিমের এই শহরটিতে ব্যাপক বন্যা দেখা দিয়েছে। শহরটির অধিকাংশ বাসিন্দাকে সরিয়ে আনা হয়েছে বা সরে গেছে। তবে এখনো এক হাজার লোক সেখানে আটকা পড়ে আছে।

বন্যা শুধু কুরাশিকি শহরে সীমাবন্ধ না থেকে পার্শ্ববর্তী কয়েকটি শহরে ছড়িয়ে পড়েছে। প্রায় ২০ লাখ লোককে অন্যত্র সরিয়ে নেওয়া হয়েছে বলে জানান উদ্ধারকর্মীরা।
 


টেলিভিশনে প্রচারিত দৃশ্যে দেখা গেছে, বন্যায় ওই অঞ্চলের ঘরবাড়ি, গাড়ি ও আসবাবপত্র পানিতে ভেসে যাচ্ছে। লোকালয় ডুবে গেছে বন্যার পানিতে। ‍উদ্ধারকর্মীরা কাঁদামাটি ও ধসে পড়া ঘরবাড়ি সরিয়ে আটকে পড়াদের উদ্ধারের চেষ্টা করছেন।

জাপানের সরকারি সম্প্রচারমাধ্যম এনএইচকে জানিয়েছে, এ পর্যন্ত ১৪১ জন মারা গেছে। এখনো নিখোঁজ রয়েছেন অনেকে।

আবহাওয়া কর্মকর্তারা জানিয়েছেন, আগামী কয়েক দিনে বৃষ্টিপাত আরো বাড়তে পারে।

আবহাওয়া বিভাগের এক কর্মকর্তা বলেন, ‘এ ধরনের বৃষ্টিপাতের অভিজ্ঞতা আমাদের আগে কখনো হয়নি। পরিস্থিতি অনেক বেশি বিপজ্জনক।’

৩৮ বছর বয়সি কোসুকে কিয়োহারা দুর্যোগের শিকার হয়ে তার বোন ও দুই ছেলেকে খুঁজে পাচ্ছেন না। তিনি বলেন, ‘আমার পরিবারকে আরো খারাপ পরিস্থিতির জন্য প্রস্তুত হতে বলেছি।’

 

 

রাইজিংবিডি/ঢাকা/১০ জুলাই ২০১৮/সাইফুল

Walton Laptop
 
     
Marcel
Walton AC