ঢাকা, শনিবার, ৬ শ্রাবণ ১৪২৫, ২১ জুলাই ২০১৮
Risingbd
সর্বশেষ:

খালেও সর্বনাশা ভাঙন, বিলীন হয়ে যাচ্ছে ৫টি গ্রাম

ফরহাদ হোসেন : রাইজিংবিডি ডট কম
 
     
প্রকাশ: ২০১৮-০৭-১০ ১:০৬:০৮ পিএম     ||     আপডেট: ২০১৮-০৭-১০ ১:০৬:০৮ পিএম

লক্ষ্মীপুর সংবাদদাতা: লক্ষ্মীপুরে ওয়াপদা খালের ভাঙনে সদর উপজেলার ৫টি গ্রাম বিলীন হওয়ার পথে। অব্যাহত ভাঙনে হারিয়ে যাচ্ছে মানুষের বসতভিটা, ফসলি জমি ও চলাচলের রাস্তা। বেড়েই চলেছে খালের প্রশস্ততা।

সমস্যাটি সমাধানে কার্যকর পদক্ষেপ নিচ্ছেন না জনপ্রতিনিধি ও দায়িত্বশীলরা। বারবার আশ্বাসই দিচ্ছেন জেলা পানি উন্নয়ন বোর্ড কর্তৃপক্ষ। তারা প্রতিবারই জানাচ্ছেন, সরেজমিনে পরিদর্শন করে যথাযথ ব্যবস্থা গ্রহন করবেন।

জানা যায়, লক্ষ্মীপুর সদর উপজেলার লাহারকান্দি ইউনিয়নের পিয়ারাপুর, পশ্চিম সৈয়দপুর, তালহাটি, চাঁদখালী ও শহীদপুর এই পাঁচটি গ্রামই এখন ভাঙন কবলিত। বর্ষায় প্রতিবারের মতো এবারো ভাঙনের তীব্রতা বেড়েছে। ভাঙন থেকে রক্ষা পাচ্ছে না ঘরবাড়ি, দোকানপাট ও গাছপালা। বাপ-দাদার চিরচেনা বসতভিটা, ফসলি জমি হারিয়ে নিঃস্ব হচ্ছে  খালের দু’পাড়ের হাজার-হাজার মানুষ। মানবেতর জীবন কাটছে তাদের ।

এলাকাবাসী জানান, প্রতিবছরই তাদের ফসলি জমি, রাস্তাঘাট, ঘর-বাড়ি খালের গর্ভে হারিয়ে যাচ্ছে। ২২ হাত দৈর্ঘ্য ওয়াপদা খাল এখন ২০০ হাতে পরিণত হয়েছে। দ্রুত পদক্ষেপ না নিলে চলতি বর্ষায় গৃহহীন হয়ে পড়বে আরো অনেক পরিবার।

লাহারকান্দি ইউনিয়ন চেয়ারম্যান মোশারফ হোসেন মশু পাটোয়ারী বলেন, ‘ভাঙনের কারণে খালের দু’পাড়ের মানুষকেই দুর্ভোগ পোহাতে হচ্ছে। বিষয়টি ইতিপূর্বে বেসাময়িক বিমান পরিবহণ ও পর্যটন মন্ত্রী, জেলা প্রশাসক, জেলা পানি উন্নয়ন বোর্ডসহ উদ্ধতন কর্মকর্তাদের অবহিত করেছি। তারাও দ্রুত পদক্ষেপের আশ্বাস দিয়েছেন।’
 


জেলা পানি উন্নয়ন বোর্ডের নির্বাহী প্রকৌশলী মো. মুসা বলেন, ‘ওয়াপদা খালের ভাঙনের কারণে সদর উপজেলার কয়েকটি গ্রামের বিভিন্ন অংশ ভাঙছে। সরেজমিনে পরিদর্শন করে ভাঙন প্রতিরোধে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।’

সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোহাম্মদ শাহজাহান আলী বলেন, ‘ক্ষতিগস্ত এলাকা পরিদর্শন করে উর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের সাথে যোগাযোগ করে ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।’  

 

 

রাইজিংবিডি/লক্ষ্মীপুর/১০ জুলাই ২০১৮/ফরহাদ হোসেন/টিপু

Walton Laptop