ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ১ অগ্রহায়ণ ১৪২৫, ১৫ নভেম্বর ২০১৮
Risingbd
সর্বশেষ:

ন্যাটোকে শায়েস্তা করলেন ট্রাম্প?

শাহেদ হোসেন : রাইজিংবিডি ডট কম
 
     
প্রকাশ: ২০১৮-০৭-১২ ৮:৩৮:২৪ পিএম     ||     আপডেট: ২০১৮-০৭-১৩ ৮:৫১:০২ এএম

আন্তর্জাতিক ডেস্ক : মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প ন্যাটোভুক্ত দেশগুলোর শীর্ষ সম্মেলনে নিজের ব্যক্তিগত বিজয় দাবি করেছেন। ন্যাটোর প্রতিরক্ষা খাতে অধিকাংশ দেশই প্রতিশ্রুত অর্থ দিচ্ছে না অভিযোগ করে ট্রাম্প বলেছিলেন, এই ধারা অব্যাহত থাকলে যুক্তরাষ্ট্র জোট থেকে বের হয়ে যাবে। আর এ হুমকিতেই সদস্য দেশগুলো ন্যাটোর প্রতিরক্ষা ব্যয় বাড়ানোর বিষয়ে একমত হয়েছেন বলে দাবি ট্রাম্পের।

সম্মেলন শেষে সংবাদ সম্মেলনে ট্রাম্প বলেছেন, ‘দুদিন আগের তুলনায় আমরা অনেক বেশি ক্ষমতাশালী, অনেক বেশি শক্তিশালী ন্যাটোকে পেয়েছি।ন্যাটো প্রধান স্টলটেনবার্গ আমাদেরকে, আমি মনে করি এ ক্ষেত্রে আমাকে পুরো কৃতিত্ব দিয়েছেন। কারণ আমিই এটা অন্যায্য বলেছিলাম।’

নিয়ম অনুযায়ী, সদস্য দেশগুলোর ন্যাটোর সামরিক ব্যয় বাবদ জাতীয় আয়ের ২ শতাংশ বরাদ্দ দেওয়ার কথা। তবে ২৯টি সদস্যের মধ্যে মাত্র কেবল যুক্তরাষ্ট্র, গ্রিস, এস্তোনিয়া, যুক্তরাজ্য ও লাটভিয়া প্রতিশ্রুতি অনুযায়ী অর্থ সরবরাহ করে। আর এর জন্যই ট্রাম্পের যতো ক্ষোভ।

বুধবার সম্মেলনের প্রথম দিন তিনি জার্মানির ওপর ক্ষোভ ঝেড়েছেন। তিনি সোজাসাপ্টা বলেছেন, যেই রাশিয়ার হাত থেকে ন্যাটোভুক্ত দেশগুলোকে রক্ষা করতে যুক্তরাষ্ট্র বিলিয়ন বিলিয়ন ডলার দিচ্ছে, সেই রাশিয়ার কাছ থেকেই জার্মানি বিলিয়ন বিলিয়ন ডলারের গ্যাস কিনছে। পাইপ লাইনের জন্য নতুন করে রাশিয়ার সঙ্গে চুক্তিও করেছে জার্মানি।

সংবাদ সম্মেলনে এক প্রশ্নের জবাবে ট্রাম্প বলেছেন,‘ আমি তাদেরকে জানিয়েছি, আমি চরম অসন্তুষ্ট।’

শেষ পর্যন্ত আলোচনা সফলভাবে শেষ হয়েছে উল্লেখ করে ট্রাম্প বলেছেন, ‘শেষ পর্যন্ত সব ভালোভাবে হয়েছে। কিছু সময়ের জন্য এটা কিছুটা কঠিন হয়ে পড়েছিল।’

ন্যাটো থেকে যুক্তরাষ্ট্রকে বের করে নেওয়ার সম্ভাবনার হুমকি দিচ্ছেন কিনা এবং কংগ্রেসের অনুমতি ছাড়া এটি পারবেন কিনা জানতে চাইলে ট্রাম্প বলেন, ‘আমি মনে করি সম্ভবত এটা পারব, তবে এটা অপ্রয়োজনীয়। তারা আজ যেভাবে অগ্রসর হয়েছে আগে কখনো সেভাবে অগ্রসর হয়নি।

জার্মান চ্যান্সেলর অ্যাঙ্গেলা মের্কেল বলেছেন, ‘আমেরিকার প্রেসিডেন্ট যেটা দাবি করেছেন সেটা কয়েক মাস ধরেই আলোচনা হচ্ছিল- দায় ভাগাভাগিতে পরিবর্তন প্রয়োজন। আমি সুস্পষ্টভাবে জানিয়েছি, আমরা সেই পথেই আছি। এটা আমাদের নিজেদের স্বার্থেই এবং এটা আমাদেরকে শক্তিশালী করবে।’

সম্মেলনে জার্মানির পাশাপাশি ফ্রান্স ও স্পেন ২০২৪ সালের মধ্যে ন্যাটো জাতীয় আয়ের ২ শতাংশ সামরিক বরাদ্দের প্রতিশ্রুতি দিয়েছে।



রাইজিংবিডি/ঢাকা/১২ জুলাই ২০১৮/শাহেদ

Walton Laptop
 
     
Marcel
Walton AC