ঢাকা, রবিবার, ২ আষাঢ় ১৪২৬, ১৬ জুন ২০১৯
Risingbd
সর্বশেষ:

আবর্জনা নিয়ে কানাডার সঙ্গে ফিলিপাইনের বিবাদ

শাহেদ হোসেন : রাইজিংবিডি ডট কম
     
প্রকাশ: ২০১৯-০৫-১৬ ৩:৩৯:৫৫ পিএম     ||     আপডেট: ২০১৯-০৫-১৬ ৪:০৬:৪০ পিএম
Walton AC 10% Discount

আন্তর্জাতিক ডেস্ক : আবর্জনা নিয়ে কূটনৈতিক বিবাদে জড়িয়ে পড়েছে ফিলিপাইন ও কানাডা। ইতোমধ্যে এই ইস্যুতে কানাডা থেকে নিজেদের রাষ্ট্রদূতকে প্রত্যাহার করে নিয়েছে ফিলিপাইন।

পুনঃপক্রিয়াজাত বর্জ্য বিভিন্ন দেশ থেকে আমদানি করে ফিলিপাইন। তবে ২০১৩ থেকে ২০১৪ সালের মধ্যে কানাডা থেকে ১০৩টি কনটেইনারে পুনঃপ্রক্রিয়াজাত বর্জ্য ছাড়াও শিশুদের ডায়াপার, সংবাদপত্রসহ বিভিন্ন গৃহস্থালি বর্জ্য পাঠানো হয়।  এই কনটেইনারের অধিকাংশ ম্যানিলা সুবিক বন্দরে রাখা হয়। পরিবেশবাদীদের বিক্ষোভের মুখে বিষয়টি আদালত পর্যন্ত গড়ায়। ২০১৬ সালে আদালত আমদানিকারকের খরচেই এসব কনটেইনার কানাডায় ফেরত পাঠানোর নির্দেশ দেয়। কানাডার পক্ষ থেকে কোনো সাড়া মেলায় সর্বশেষ ফিলিপাইন সরকার এ ব্যাপারে ১৫ মে পর্যন্ত সময় বেঁধে দেয় অটোয়াকে।

এর আগে ফিলিপাইনের প্রেসিডেন্ট রদ্রিগো দুতের্তে হুঁশিয়ারি দিয়ে বলেছিলেন, তিনি এগুলো জাহাজে করে কানাডায় ফেরত পাঠানোর প্রস্তুতির নির্দেশ দিয়েছেন।

তিনি বলেছেন, ‘আমি এক জাহাজ প্রস্তুত চাই। আমি কানাডাকে সতর্ক করে দিয়ে বলছি আগামী সপ্তাহে তারা এগুলো ফিরিয়ে নিক। নাহলে আমি এগুলো কানাডায় ফেরত পাঠাব।’

বেঁধে দেওয়া সময়ে পদক্ষেপ না নেওয়ায় বুধবার রাতেই রাষ্ট্রদূতকে দেশে ডেকে পাঠিয়েছে ফিলিপাইন।

টুইটবার্তায় ফিলিপাইনের পররাষ্ট্রমন্ত্রী টেডি লকসিন জুনিয়র বলেছেন, ‘মধ্যরাতে কানাডায় আমাদের রাষ্ট্রদূত ও কনসালদের ডেকে পাঠানোর চিঠি পৌঁছে গেছে। কানাডা বেঁধে দেওয়া সময় পার করেছে। কানাডা অভিমুখে আবর্জনাবাহী জাহাজ পাঠানোর আগ পর্যন্ত আমরা সেখান কূটনীতিক উপস্থিতি শূন্য রাখছি।’

ম্যানিলায় কানাডার দূতাবাস অবশ্য জানিয়েছে, তারা কানাডীয় বর্জ্য ফেরত নেওয়া একটি প্রস্তাব দিয়েছে। এই বর্জ্য ফিরিয়ে  নেওয়ার ব্যাপারে তারা ফিলিপাইনের সঙ্গে কাজ করছেন।



রাইজিংবিডি/ঢাকা/১৬ মে ২০১৯/শাহেদ

Walton AC
     
Walton AC
Marcel Fridge