ঢাকা, শুক্রবার, ১৫ বৈশাখ ১৪২৪, ২৮ এপ্রিল ২০১৭
Risingbd
সর্বশেষ:

কলেজছাত্রী স্নিগ্ধা হত্যায় স্বামীর ফাঁসি

কাঞ্চন কুমার : রাইজিংবিডি ডট কম
 
   
প্রকাশ: ২০১৭-০৩-২০ ১:১৭:১৭ পিএম     ||     আপডেট: ২০১৭-০৩-২০ ৪:৫৮:৩১ পিএম

কুষ্টিয়া প্রতিনিধি : কুষ্টিয়ার কলেজছাত্রী ও গৃহবধূ স্নিগ্ধা আক্তার (২০) হত্যা মামলার আসামি তার স্বামী শিশিরকে ফাঁসির আদেশ দিয়েছেন আদালত। সেই সঙ্গে তাকে এক লাখ টাকা জরিমানা করা হয়েছে। শিশির বর্তমানে পলাতক রয়েছেন।

সোমবার বেলা সাড়ে ১২টায় কুষ্টিয়া জেলা ও দায়রা জজ প্রথম আদালতের বিচারক রেজা মো. আলমগীর হাসান এ রায় দেন।

কুষ্টিয়া আদালতের পাবলিক প্রসিকিউটর (পিপি) অনুপ কুমার নন্দী জানান,  কুষ্টিয়া শহরতলীর চৌড়হাস ফুলতলা এলাকার আব্দুল খালেকের মেয়ে স্নিগ্ধা আক্তার।তিনি কুষ্টিয়া সরকারি কলেজের অনার্সের ছাত্রী ছিলেন।স্নিগ্ধা আক্তারকে বিয়ে করে মিরপুর উপজেলার বারুইপাড়া ইউনিয়নের চুনিয়াপাড়া গ্রামের মজিবর রহমানের ছেলে কুষ্টিয়া ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ের মাস্টার্সের ছাত্র শিশির। বিয়ের পর থেকেই তাদের মধ্যে কলহ চলে আসছিল।২০১৩ সালের ১৩ ফেব্রুয়ারি স্নিগ্ধা তার মায়ের বাড়ি থেকে কলেজে যাওয়ার কথা বলে বের হন। সন্ধ্যা হয়ে গেলেও তার কোনো সন্ধান পাওয়া যায়নি।

এদিকে ওই বাড়ির মালিক মৃত আমিন উদ্দিনের স্ত্রী  শিশিরের খালা কদভানুর বাড়িতে ১৩ ফেব্রুয়ারি সন্ধ্যায় শিশির স্নিগ্ধাকে নিয়ে তাদের বাড়িতে বেড়াতে আসেন। রাতের খাবার খেয়ে তারা এক সঙ্গে ঘুমাতে যান। পরে গভীর রাতে স্নিগ্ধাকে শ্বাসরোধ করে হত্যার পর মরদেহ ফেলে রেখে পালিয়ে যান শিশির।

খবর পেয়ে রাতেই পরিবারের লোকজন সেখানে গিয়ে ঘরের মধ্যে গলায় ওড়না দিয়ে প্যাঁচানো অবস্থায় স্নিগ্ধার মরদেহ পড়ে থাকতে দেখেন।

এ ঘটনায় নিহত স্নিগ্ধার ভাই আব্দুল্লাহ আল মামুন বাদী হয়ে পরের দিন ১৪ ফেব্রুয়ারি মিরপুর থানায়  শিশিরকে একমাত্র আসামি করে হত্যা মামলা দায়ের করেন। আদালত ১৪ জনের সাক্ষ্যগ্রহণ শেষে অভিযোগ প্রমাণিত হওয়ায় মামলার আসামি শিশিরকে মৃত্যুদণ্ড দেন।

রাষ্ট্রপক্ষে মামলাটি পরিচালনা করেন পিপি অনুপ কুমার নন্দী এবং আসামিপক্ষে ছিলেন আমিরুল ইসলাম।



রাইজিংবিডি/কুষ্টিয়া/২০ মার্চ ২০১৭/কাঞ্চন কুমার/রিশিত

Walton Laptop