ঢাকা, বুধবার, ২ কার্তিক ১৪২৪, ১৮ অক্টোবর ২০১৭
Risingbd
সর্বশেষ:

১ কোটি ৩৭ লাখ টাকা আত্মসাতে গ্রেপ্তার ১

এম এ রহমান : রাইজিংবিডি ডট কম
 
   
প্রকাশ: ২০১৭-১০-১২ ৪:৫৪:০৪ পিএম     ||     আপডেট: ২০১৭-১০-১২ ৪:৫৬:১১ পিএম

নিজস্ব প্রতিবেদক : একই দলিল বন্ধক রেখে তিন ব্যাংকের এক কোটি ৩৭ লাখ টাকা আত্মসাতের দুই মামলায় জমির মালিক মো. হাফেজ রহমত উল্যাকে গ্রেপ্তার করেছে দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক)।

বৃহস্পতিবার দুপুরে নোয়াখালীর বেগমগঞ্জ এলাকা থেকে তাকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। দুদকের নোয়াখালী সমন্বিত কার্যালয়ের সহকারী পরিচালক মো. মশিউর রহমান বিষয়টি রাইজিংবিডিকে জানিয়েছেন।

এর আগে এই ঘটনায় গত ১০ অক্টোবর ব্র্যাক ব্যাংক চৌমুহনী শাখা কাস্টমার রিলেশন অফিসার মো. রেজাউল ইসলাম, নোয়াখালী সদরের প্রাক্তন সাব রেজিস্টার কেরামত আলী হাওলাদার ও প্রাক্তন মোহরার আলাউদ্দিনকে গ্রেপ্তার করা হয়।

ওই অর্থ আত্মসাতের অভিযোগে সাতজনকে আসামি করে দুদক নোয়াখালী সমন্বিত জেলা কাযালয়ের সহকারী পরিচালক আল মামুন বাদী হয়ে নোয়াখালীর বেগমগঞ্জ থানায় পৃথক দুইটি মামলা করেন। মামলায় ব্র্যাক ব্যাংকের দুই কর্মকর্তা, ঋণ গ্রহীতা, গ্যারান্টর, সাবেক সাব রেজিস্টার ও সাব রেজিস্ট্রি অফিসের দুই মোহরার আসামি করা হয়।

মামলার অভিযোগে বলা হয়, আসামিরা পরস্পর যোগসাজশে বেগমগঞ্জ সাব রেজিস্ট্রি অফিস থেকে ২০১০ সালে ৭ শতাংশ ভূমির মূল্য সাড়ে ১০ লাখ টাকা দেখিয়ে দলিলের আসল কপি জমা রেখে ট্রাস্ট ব্যাংকের চৌমুহনি শাখা থেকে ৪০ লাখ টাকা ঋণ নিয়ে আত্মসাৎ করেন। এরপর আসামি মো. হাফেজ রহমত উল্যা তার স্ত্রী মাহবুবা আক্তারকে গ্যারান্টার দেখিয়ে বন্ধক দলিলের দুইটি জাল কপি দাখিল করে ২০১৪ সালের ৫ মার্চ ব্র্যাক ব্যাংক চৌমুহনী শাখা থেকে ২২ লাখ টাকা এবং একই বছর আইএফআইসি ব্যাংক চৌমুহনি শাখা থেকে ৭৫ লাখ টাকা মেসার্স সুমাইয়া স্টোরের নামে সিসি হাইপো ঋণ নিয়ে আত্মসাৎ হয়। দলিলে মো. হাফেজ রহমত উল্যাকে মালিক দেখানো হয়েছে।



রাইজিংবিডি/ঢাকা/১২ অক্টোবর ২০১৭/এম এ রহমান/সাইফ

Walton