ঢাকা, মঙ্গলবার, ৬ ভাদ্র ১৪২৫, ২১ আগস্ট ২০১৮
Risingbd
শোকাবহ অগাস্ট
সর্বশেষ:

ভুয়া নিকাহনামা : কাজী ও নার্সের বিচার শুরু

মামুন খান : রাইজিংবিডি ডট কম
 
     
প্রকাশ: ২০১৮-০১-১৫ ৭:৪৭:২৩ পিএম     ||     আপডেট: ২০১৮-০১-১৫ ৭:৪৭:২৩ পিএম

নিজস্ব প্রতিবেদক : জালিয়াতির মাধ্যমে ভুয়া নিকাহনামা তৈরির অভিযোগে এক নিকাহ রেজিস্ট্রার (কাজী) এবং সরকারি হাসপাতালের এক নার্সের বিরুদ্ধে অভিযোগ গঠন করেছেন আদালত। এ অভিযোগ গঠনের মধ্য দিয়ে আসামিদের বিরুদ্ধে আনুষ্ঠানিক বিচার শুরু হয়েছে।

সোমবার ঢাকার অতিরিক্ত মুখ্য মহানগর হাকিম মো. জসিম উদ্দিন আসামিদের অব্যাহতির আবেদন নাকচ করে  অভিযোগ গঠনের আদেশ দেন।

আসামিরা হলেন- গাইবান্ধা সদর সরকারি হাসপাতালের সিনিয়র নার্স আফরোজা খাতুন এবং বগুড়া জেলার শাহজাহানপুর থানার মাদলা ইউনিয়নের নিকাহ রেজিস্ট্রার মো. ইয়াছিন আলী।

মামলার বাদী মুন্সীগঞ্জ জেলার গজারিয়া থানার চরবাউশিয়া গ্রামের সাঈদ হায়দার জানান, আসামি আফরোজা খাতুনকে তিনি ২০১৩ সালের ২৬ মার্চ বিয়ে করেন। পরে তাদের মধ্যে বনিবনা না হওয়ায় ২০১৫ সালের ২২ মার্চ তাকে তালাক দেন। কিন্তু আফরোজা খাতুন কাজী ইয়াসিন আলীর সঙ্গে যোগসাজশ করে ২০১৫ সালের ১২ আগস্ট তাকে ১০ লাখ টাকা দেনমোহরে পুনরায় বিয়ে করেছেন মর্মে একটি নিকাহনামা তৈরি করেন। যা বাদী জানার পর জালিয়াতির অভিযোগে তাদের বিরুদ্ধে ২০১৬ সালের ২৪ আগস্ট ঢাকা সিএমএম আদালতে জালিয়াতি এবং প্রতারণার অভিযোগে একটি মামলা করেন। আদালত ওই মামলা শেরেবাংলা নগর থানাকে তদন্তের নির্দেশ দেয়। শেরেবাংলা নগর থানার এসআই মার্কারিয়াস দাস তদন্ত শেষে জালিয়াতির অভিযোগ সত্য মর্মে প্রতিবেদন দাখিল করেন। গত ৩ জানুয়ারি মামলাটিতে আদালত অভিযোগ গঠনের শুনানি গ্রহণ করে সোমবার আসামিদের অব্যাহতির আবেদন নাকচ করে তাদের বিরুদ্ধে অভিযোগ গঠনের আদেশ দেন।

উল্লেখ্য, আফরোজা খাতুন ওই ভুয়া কাবিননামা ব্যবহার করে বাদী সাঈদ হায়দারের বিরুদ্ধে যৌতুক আইনে একটি এবং দেনমোহর-খোরপোষের দাবিতে আরেকটি মামলা করেন। মামলা দুটি বর্তমানে বিচারাধীন রয়েছে বলে সাঈদ দায়দার জানান।

 

 

 

রাইজিংবিডি/ঢাকা/১৫ জানুয়ারি ২০১৭/মামুন খান/রফিক

Walton Laptop
 
     
Walton