ঢাকা, বুধবার, ৪ আশ্বিন ১৪২৫, ১৯ সেপ্টেম্বর ২০১৮
Risingbd
সর্বশেষ:

ঢাকার ২২০০ ভবন ভাঙার ওপর হাইকোর্টের নিষেধাজ্ঞা

মেহেদী হাসান ডালিম : রাইজিংবিডি ডট কম
 
     
প্রকাশ: ২০১৮-০৮-১৬ ১০:৪১:৩৩ পিএম     ||     আপডেট: ২০১৮-০৮-১৭ ৯:৫৬:৩৬ এএম

মেহেদী হাসান ডালিম: রাজধানী ঢাকার ঐতিহ্যবাহী ২ হাজার ২শ ভবন ভাঙা, কোনো ধরণের পরিবর্তন বা পরিবর্ধনের ওপর নিষেধাজ্ঞা দিয়েছেন হাইকোর্ট।

আদালত রায়ে বলেছেন, ব্রিটিশ ঔপনিবেশিক ও মুঘল আমলে তৈরি স্থাপনা আমাদের ইতিহাসের সাক্ষী। জাতীয় স্বার্থেই এসব ঐতিহ্য রক্ষা করা প্রয়োজন।

বিচারপতি তারিক উল হাকিম ও বিচারপতি মো. সোহরাওয়ার্দীর হাইকোর্ট বেঞ্চ গত সোমবার এ রায় ঘোষণা করেন।

বৃহস্পতিবার সংশ্লিষ্ট কোর্ট সূত্র ও ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল আমাতুল করিম আদালতের এই রায়ের বিষয়টি রাইজিংবিডিকে নিশ্চিত করেছেন।

রায়ে বলা হয়েছে, ঐতিহ্যবাহী ভবনের তালিকা চূড়ান্ত না হওয়া পর্যন্ত আরবান স্টাডি গ্রুপের খসড়া তালিকাভুক্ত ভবনে কোনো পরিবর্তন বা পরিবর্ধন করা যাবে না।

এই রায়ে এসব বাড়ি বা স্থাপনা নির্মাণের নকশা অনুমোদন না দিতে রাজউককে নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। তালিকা পরীক্ষা করে তা চূড়ান্ত করার জন্য একটি উপদেষ্টা কমিটি করতে প্রত্নতত্ব অধিদপ্তরের মহাপরিচালককে নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। তিনমাস পরপর আদালতে প্রতিবেদন দাখিল করতে মহাপরিচালককে বলা হয়েছে।

মামলার বিবরণে জানা যায়, ২০১২ সালে ঢাকা জেলা পরিষদ ভবনটি ভাঙার উদ্যোগ নিলে আরবান স্টাডি গ্রুপ হাইকোর্টে রিট করে। এ রিটে হাইকোর্ট ঢাকা মহানগরীসহ সমগ্র বাংলাদেশের ঐতিহ্যবাহী স্থাপনার তালিকা তৈরি করতে সরকারকে নির্দেশ দেন। এরপর রাজউক থেকে প্রাথমিকভাবে ৯৪টি ভবন ও ৪টি অঞ্চলের আওতায় ১৩টি সড়ককে সংরক্ষিত ঘোষণা করে গেজেট প্রকাশ করে। ২০১৪ সালে হেরিটেজ কমিটি গঠন করা হয়। হেরিটেজ কমিটির সভায় আরবান স্টাডি গ্রুপের সম্পন্ন করা তালিকার ভিত্তিতে পূর্ণাঙ্গ তালিকাটি প্রণয়নের সিদ্ধান্ত হয়। এই পূর্ণাঙ্গ তালিকা প্রণয়নের জন্য একটি সাবকমিটি গঠন করা হয়। ২০১৬ সালের মাঝামাঝি নাগাদ সংশ্লিষ্ট মন্ত্রণালয়ে প্রেরণের জন্য একটি খসড়া তালিকাও  প্রস্তুত করা হয়। তবে চূড়ান্ত তালিকার জন্য এই খসড়া তালিকাটি  পরিবর্ধন ও পরিমার্জন করার লক্ষ্যে বিভিন্ন ভবনের আরও যথাযথ চিত্র সংগ্রহ করার জন্য আরবান স্টাডি গ্রুপের পক্ষ থেকে সময় চাওয়া হয়। অজ্ঞাত কারণে ২০১৬ সালের পর এই কমিটিকে অকার্যকর করে দেওয়া হয়। তবে আরবান স্টাডি গ্রুপের পক্ষ থেকে ওই তালিকা সংশোধন করার কাজটি অব্যাহত রেখে ইতিমধ্যে শেষ করা হয়েছে।

এ প্রেক্ষাপটে প্রত্নতত্ব অধিদপ্তরের মহাপরিচালক বরাবর গত ৫ ডিসেম্বর দেওয়া আরবান স্টাডি গ্রুপের পক্ষ থেকে ঢাকা মহানগরীর ঐতিহ্যবাহী স্থাপনার তালিকা চূড়ান্তকরণের লক্ষ্যে একটি চিঠি দেওয়া হয়। ওই চিঠির ভিত্তিতে হাইকোর্টে রিট করা হয়।

রিট আবেদনে চিঠির বিষয়বস্তু তুলে ধরে বলা হয়, ২০০৯ সালে ঢাকা মহানগরীর ঐতিহ্যবাহী  স্থাপনা ও এলাকার তালিকা প্রণয়নের কার্যক্রম গ্রহণ করা হয়েছিলো। পরবর্তী সময়ে প্রাথমিকভাবে ৯৪টি ভবন ও ৪টি অঞ্চলের আওতায় ১৩টি সড়ককে সংরক্ষিত ঘোষণা করে গেজেট প্রকাশ করা হয়। কিন্তু তালিকা প্রণয়নের কাজটি একটি চলমান প্রক্রিয়া হিসেবে অব্যাহত থাকার কথা থাকলেও ২০০৯ সালে প্রকাশিত ওই গেজেটের পর আর কোন ভবন তালিকাভুক্ত করা হয়নি। কিন্তু পুরান ঢাকায় ঐতিহ্যবাহী  স্থাপনা নির্বিচারে ধ্বংস করে ফেলার কর্মকাণ্ড অব্যাহত থাকায় তালিকাভুক্তির অপেক্ষায় থাকা কয়েক হাজার সংরক্ষণযোগ্য ভবনের অস্তিত্বই হুমকির মুখে পড়েছে।




রাইজিংবিডি/ঢাকা/১৬ আগস্ট ২০১৮/মেহেদী/শাহেদ/শাহনেওয়াজ

Walton Laptop