ঢাকা, মঙ্গলবার, ৩ আশ্বিন ১৪২৫, ১৮ সেপ্টেম্বর ২০১৮
Risingbd
সর্বশেষ:

বিস্ফোরক মামলায় মোজাম্মেলকে গ্রেপ্তার দেখানোর আবেদন খারিজ

মামুন খান : রাইজিংবিডি ডট কম
 
     
প্রকাশ: ২০১৮-০৯-১৩ ৭:২২:২৬ পিএম     ||     আপডেট: ২০১৮-০৯-১৮ ২:৩৮:৪২ পিএম

নিজস্ব প্রতিবেদক : বিস্ফোরক দ্রব্য আইনে দায়ের করা মামলায় বাংলাদেশ যাত্রী কল্যাণ সমিতির মহাসচিব মোজাম্মেল হককে গ্রেপ্তার দেখানোর আবেদন খারিজ করে দিয়েছেন আদালত।

বৃহস্পতিবার কাফরুল থানার এই মামলায় গ্রেপ্তার দেখানোর আবেদনের ওপর শুনানির জন্য মোজাম্মেল হককে কারাগার থেকে আদালতে হাজির করেন তদন্ত কর্মকর্তা এসআই মো. রায়হান।

শুনানি শেষে ঢাকার মহানগর হাকিম মুহাম্মদ মাজহারুল ইসলাম এ মামলায় তাকে গ্রেপ্তার দেখানোর আবেদন খারিজ করে দেন। এর ফলে মোজাম্মেল হকের জামিনে মুক্তি পেতে আর কোনো আইনি বাধা নেই বলে জানান তার আইনজীবী জায়েদুর রহমান।

এর আগে আদালত তদন্ত কর্মকর্তার কাছে জানতে চান, গত ফেব্রুয়ারি মাসে দায়ের করা এ মামলায় ফৌজদারি কার্যবিধির ১৬১ ধারায় কেউ তাকে জড়িয়ে জবানবন্দি দিয়েছেন কি না? তদন্ত কর্মকর্তার নেতিবাচক উত্তরে আদালত আবার জানতে চান, কোনো সাক্ষী বা কোনো আসামির জবানবন্দিতে নাম না এসে থাকলে কেন মোজাম্মেলকে এই মামলায় গ্রেপ্তার দেখানোর আবেদন করা হলো? এ প্রশ্নের পরও পুলিশ কর্মকর্তা নিরুত্তর থাকেন।

এ সময় আদালত মোজাম্মেল হককে কাফরুল থানার এ মামলার ঘটনা জানেন কি না তা জিজ্ঞাসা করেন। তখন মোজাম্মেল হক বলেন, যাত্রীদের কল্যাণে কাজ করছেন বলে তিনি পরিবহন মালিক পক্ষ ও শ্রমিক নেতাদের রোষাণলে পড়েছেন। পুলিশকে কব্জা করে অন্যায় স্বার্থে তাকে একের পর এক মামলায় জড়ানো হচ্ছে।

তখন বিচারক পুলিশ কর্মকর্তার প্রতি উষ্মা প্রকাশ করে তাকে গ্রেপ্তার দেখানোর আবেদন খারিজ করে দেন।

বিস্ফোরক দ্রব্য আইনের এ মামলায় গত ১০ সেপ্টেম্বর মোজাম্মেল হককে গ্রেপ্তার দেখানোর আবেদন করে পুলিশ। ওই আবেদনে তার ১০ দিনের রিমান্ড চাওয়া হয়।

ওই দিন আদালত আবেদনের ওপর শুনানির জন্য তদন্ত কর্মকর্তার উপস্থিতিতে বৃহস্পতিবার দিন ধার্য করে দেন।

প্রসঙ্গত, দুলাল নামের এক ব্যক্তি ৪ সেপ্টেম্বর মোজাম্মেল হকের বিরুদ্ধে চাঁদাবাজির অভিযোগ এনে মিরপুর মডেল থানায় মামলা দায়ের করেন। গত ৫ সেপ্টেম্বর রাত ৩টায় নারায়ণগঞ্জের সিদ্ধিরগঞ্জ এলাকা থেকে তাকে গ্রেপ্তার করে পুলিশ। পরদিন তার এক দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন আদালত। এক দিনের রিমান্ড শেষে ৮ সেপ্টেম্বর মোজাম্মেল হকের ফের ৫ দিনের রিমান্ড চায় পুলিশ।

অপরদিকে মোজাম্মেল হকের আইনজীবীরা রিমান্ড বাতিল চেয়ে জামিন চান।

আদালত রিমান্ড ও জামিন নামঞ্জুর করে তাকে কারাগারে পাঠানোর আদেশ দেন। এরপর তাকে কাফরুল থানার মামলায় গ্রেপ্তার দেখানোর আবেদন করে রিমান্ড চায় পুলিশ।



রাইজিংবিডি/ঢাকা/১৩ সেপ্টেম্বর ২০১৮/মামুন খান/রফিক

Walton Laptop
 
     
Walton