ঢাকা, শুক্রবার, ৮ চৈত্র ১৪২৫, ২২ মার্চ ২০১৯
Risingbd
সর্বশেষ:

বড়াল হত্যা মামলা : ছয় আসামি হাইকোর্টে খালাস

মেহেদী হাসান ডালিম : রাইজিংবিডি ডট কম
 
     
প্রকাশ: ২০১৮-১২-১১ ৬:২৫:৪৪ পিএম     ||     আপডেট: ২০১৮-১২-১১ ৬:২৫:৪৪ পিএম

নিজস্ব প্রতিবেদক : বাগেরহাটের চিতলমারী উপজেলা পরিষদের প্রাক্তন চেয়ারম্যান কালিদাস বড়াল হত্যা মামলায় মৃত্যুদণ্ড পাওয়া পাঁচ আসামির মধ্যে তিনজন ও যাবজ্জীবন কারাদণ্ড পাওয়া তিনজনসহ ছয় আসামিকে খালাস দিয়েছেন হাইকোর্ট।

মঙ্গলবার বিচারপতি কৃষ্ণা দেবনাথ ও বিচারপতি সহিদুল করিমের হাইকোর্ট বেঞ্চ এ রায় দেয়।

নিম্ন আদালতের ফাঁসির দণ্ড পাওয়া পাঁচ আসামির মধ্যে হাইকোর্টের রায়ে খালাস পেয়েছেন চিতলমারী উপজেলার রহমতপুর গ্রামের আবু বক্কর সিদ্দিকীর দুই ছেলে আলমগীর সিদ্দিকী ও নাছির সিদ্দিকী এবং কলাতলা গ্রামের সোনা মিঞা সরদারের ছেলে স্বপন।

চিতলমারী উপজেলার বড়বাড়িয়া গ্রামের আতিয়ার রহমানের ছেলে সাঈদুল ইসলাম ওরফে সাঈদ ফকির, ঘোলা গ্রামের আবদুল হক কাজীর ছেলে সাইফুর রহমান ওরফে বাবলু কাজীর ফাঁসি বহাল রেখেছেন আদালত। খালাস পাওয়া আসামিদের মধ্যে আলমগীর সিদ্দিকী কারাগারে, বাকিরা পলাতক।

যাবজ্জীবন কারাদণ্ড পাওয়া তিনজনই খালাস পেয়েছেন। তারা হলেন- চিতলমারীর রহমতপুর গ্রামের আবু বক্কর সিদ্দিকীর অপর ছেলে শওকত সিদ্দিকী, সদর উপজেলার চরগাঁ গ্রামের হাশেম মোল্লার ছেলে বাবলু মোল্লা ও একই উপজেলার সুলতানপুর গ্রামের আবদুল হাইয়ের ছেলে মানিক। এদের মধ্যে শওকত সিদ্দিকী কারাগারে, বাকিরা পলাতক।

আদালতে আসামিদের পক্ষে শুনানি করেন আইনজীবী মনসুরুল হক চৌধুরী ও জি এম বাবুল আক্তার। রাষ্ট্রপক্ষে শুনানি করেন ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল মান্নান মোহন। রাষ্ট্র নিয়োজিত আইনজীবী হাসনা বেগম। কালিদাস বড়ালের স্ত্রী হ্যাপি বড়ালের রিভিশন আবেদনের পক্ষে শুনানি করেন নকিব সাইফুল ইসলাম।

ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল এম এ মান্নান মোহন  বলেন, ‘কালিদাস বড়াল হত্যাকাণ্ডে যে ষড়যন্ত্রের অভিযোগ এসব আসামিদের বিরুদ্ধে ছিল তা প্রমাণ না হওয়ায় আসামিরা খালাস পেয়েছেন।’

এ রায়ের বিরুদ্ধে আপিল করা হবে বলেও জানান রাষ্ট্রপক্ষের এই আইনজীবী। 

২০১৩ সালের ৫ জুন বাগেরহাট জেলা ও দায়রা জজ এস এম সোলায়মান এ মামলায় পাঁচ আসামিকে মৃত্যুদণ্ড দেন। যাবজ্জীবন কারাদণ্ড দেওয়া হয় তিন আসামিকে। মামলার অভিযোগ থেকে বেকসুর খালাস পান নয় আসামি।

২০০০ সালের ২০ আগস্ট সকালে বাগেরহাট শহরের সাধনা মোড়ে সশস্ত্র সন্ত্রাসীরা কালিদাস বড়ালকে গুলি করে হত্যা করে।

মামলার এজাহারে বলা হয়েছে, বড়াল হত্যাকাণ্ডের পরদিন ২১ আগস্ট নিহতের স্ত্রী হ্যাপি বড়াল বাদী হয়ে পাঁচজনের নাম উল্লেখসহ অজ্ঞাতদের বিরুদ্ধে বাগেরহাট মডেল থানায় একটি হত্যা মামলা দায়ের করেন।



রাইজিংবিডি/ঢাকা/১১ ডিসেম্বর ২০১৮/মেহেদী/রফিক

Walton Laptop
 
     
Walton AC