ঢাকা, রবিবার, ৭ ফাল্গুন ১৪২৩, ১৯ ফেব্রুয়ারি ২০১৭
Risingbd
অমর একুশে
সর্বশেষ:

ঘরেই তৈরি করুন গোলাপজল

স্বপ্নীল মাহফুজ : রাইজিংবিডি ডট কম
 
   
প্রকাশ: ২০১৭-০২-১৫ ৬:১৪:২৪ পিএম     ||     আপডেট: ২০১৭-০২-১৫ ৬:১৬:১২ পিএম
প্রতীকী ছবি

স্বপ্নীল মাহফুজ : সময় যত গড়াচ্ছে মানুষ দিন দিন ততই সৌন্দর্য সচেতন হয়ে উঠছে। অনেকে এর জন্য নির্ভর হয়ে পড়ছে বিভিন্ন কেমিক্যাল দিয়ে তৈরি ক্রিম, ফেসওয়াস ইত্যাদির ওপর।

কিন্তু কেমিক্যাল ট্রিটমেন্টের উপকারিতা স্বল্পমেয়াদী এবং অনেক ক্ষেত্রে তা ক্ষতিকারকও।

বরঞ্চ এর পরিবর্তে প্রাকৃতিক গোলাপজল দিয়ে সৌন্দর্যের চর্চা উপকারী। গোলাপজল ত্বকের প্রশান্তি এনে দিতে পারে। সারা দিনের কর্মব্যস্ত শরীরকে ফুরফুরে করে তুলতে পারে।

যুগ যুগ ধরে ত্বকের যত্নে গোলাপজলের ব্যবহারের কথা জানা যায়। গোলাপজল হচ্ছে প্রাচীনতম রূপচর্চার উপাদান। এটি ন্যাচারাল টোনারের কাজ করে।

২-৩ ফোঁটা গোলাপজল তুলোয় নিয়ে মুখ ও নাকের ওপর ভালো করে ঘষুন। এতে ময়লা দূর হবে। প্রতিদিন সকাল ও রাতে নিয়মিত গোলাপজলের ব্যবহারে চেহারায় আসে প্রাকৃতিক উজ্জ্বলতা ও সতেজ ভাব। ত্বক হয় কোমল ও মসৃণ।

আপনি চাইলেই খুব সহজে বাড়িতেই গোলাপজল তৈরি করতে পারেন। ১ কাপ গোলাপের পাপড়ি ভালো করে ধুয়ে পরিষ্কার করে একটি পাত্রে নিন (ফুলের দোকানের কেমিক্যাল দেয়া গোলাপ নেবেন না। এমন গোলাপ নিন যাতে আপনি নিশ্চিত থাকতে পারেন যে এতে কোনো কীটনাশক বা অন্য কেমিক্যাল ব্যবহার করা হয়নি। গোলাপ যত ফ্রশ হবে গোলাপজলের কোয়ালিটি তত ভালো হবে)।

এবার পাত্রে ফোটানো বিশুদ্ধ পানি ঢালুন। খুব বেশি পানি দেবেন না। কেবলমাত্র পাপড়ির ওপর পর্যন্ত পানি দেবেন। পাত্রটির মুখ ঢেকে খুবই কম আঁচে চুলায় বসান। গোলাপের পাপড়ি রঙ হারালে এবং পানির ওপরে হালকা তেল ভেসে উঠলে চুলা থেকে নামিয়ে ফেলুন। পানি থেকে পাপড়ি ছাঁকনি দিয়ে আলাদা করে নিন। এবার পানি পুরোপুরি ঠাণ্ডা করুন। ব্যাস, তৈরি হয়ে গেল ব্যবহার উপযোগী গোলাপজল। একটি বোতলে ভরে ফ্রিজে রেখে দিলে দীর্ঘ দিন ভালো থাকবে থাকে।


 

রাইজিংবিডি/ঢাকা/১৫ ফেব্রুয়ারি ২০১৭/ফিরোজ