ঢাকা, সোমবার, ৩ আষাঢ় ১৪২৬, ১৭ জুন ২০১৯
Risingbd
সর্বশেষ:

রান্নাঘরে নতুন সঙ্গী

আহমেদ শরীফ : রাইজিংবিডি ডট কম
     
প্রকাশ: ২০১৯-০১-১৯ ৯:৪৩:১৭ পিএম     ||     আপডেট: ২০১৯-০১-১৯ ৯:৪৩:৫৯ পিএম
Walton AC 10% Discount

আহমেদ শরীফ : রান্নাঘরে আপনাকে নানা ধরনের সহায়তা করার জন্য যদি একটা রোবট আপনার পাশে থাকে সব সময়, কেমন হয়?

আমেরিকান টেকনোলজি কোম্পানি এনভিডিয়া নিয়ে এসেছে এমনই এক রোবট, যা রান্নাঘরের নানা কাজ বেশ ভালোভাবে করতে সক্ষম। এর নাম দেয়া হয়েছে ‘কিচেন মেনিপুলেটর’। এটি কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তার মাধ্যমে রান্নার বিভিন্ন উপকরণ চিনতে পারে। রোবটটি ভবিষ্যতে যেন মানুষের মতোই রান্না করতে পারে, সে লক্ষ্যে তাকে আরো স্মার্ট হিসেবে তৈরি করার কাজটি করছেন বিজ্ঞানীরা।

সিয়াটলে এনভিডিয়ার নতুন গবেষণাগারে এই কিচেন রোবট সহ আরো কয়েকটি নতুন রোবট তৈরির কাজ চলছে। এই গবেষণাগারে বিজ্ঞানীরা ‘কোবট’ তৈরির কাজ করছেন। অর্থাৎ যেসব রোবট মানুষের সঙ্গে কমপ্লেক্স বা জটিল কাজ করতে পারবে, তারা কোবট হিসেবে পরিচিতি পাবে। এর মানে হলো কোবটরা ভবিষ্যতে বিভিন্ন কারখানায়, হাসপাতালে  হাত বা পাবিহীন প্রতিবন্ধী মানুষদের কাজে সহায়তা করতে পারবে। এমনকি এ কোবটরা মানুষের বাসা বাড়িতে, রান্নাঘরেও মানুষের সহায়তায় জটিল সব কাজ করবে।

এনভিডিয়ার বিজ্ঞানী নাথান র‌্যাটলিফ বলেন, এ ধরনের রোবট তৈরি করা খুব বড় এক চ্যালেঞ্জ। কারণ মানুষকে সাহায্য করার জন্য অবিন্যস্ত পরিবেশে কাজ করতে হবে এই রোবটদের। ‘কিচেন মেনিপুলেটর’ নামের রোবটরা কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তার পাশাপাশি বিভিন্ন বস্তু শনাক্ত করার শিক্ষাটাও নিচ্ছে। রান্নাঘরের কোথায় দরজা, ড্রয়ার এসব আসবাব আছে, সে সবও আগে জেনে নেয় এই রোবট।

মজার ব্যাপার হলো, এই রোবট নিজের মতো করেই সব ড্রয়ার খুলতে ও বন্ধ করতে পারে। কোম্পানির নতুন গবেষণাগারের পরিচালক ডিয়েটের ফক্স এক বিবৃতিতে জানিয়েছেন, ‘আমরা এমন সব রোবট তৈরি করতে চাই যেগুলো মানুষের পাশাপাশি জটিল কাজ করতে পারে। আর তাই সেসব রোবট মানুষের পছন্দ ও লক্ষ্য অনুযায়ী যেন কাজ করতে পারে সে চেষ্টা করছি আমরা।’ কিচেন মেনিপুলেটর নামের এই রাঁধুনি রোবট সব তথ্য একটি মেশিন লার্নিং সফটওয়্যারে জমা করে। এতে করে রোবটটি মানুষের মতোই অনেকটা পরিবেশের সঙ্গে খাপ খেয়ে দ্রুত গতিতে কাজ করতে পারে। তবে রান্নাঘরের পরিবেশের সঙ্গে খাপ খাওয়ানোটা এখন এ রোবটের জন্য একটা চ্যালেঞ্জ। তাই এই রাঁধুনি রোবট সত্যিকার অর্থে যেন আরো দক্ষ হয়ে উঠতে  পারে, সে লক্ষ্যে কাজ করছেন বিজ্ঞানীরা।



তথ্যসূত্র : ডেইলি মেইল



রাইজিংবিডি/ঢাকা/১৯ জানুয়ারি ২০১৯/ফিরোজ

Walton AC
     
Walton AC
Marcel Fridge