ঢাকা, বুধবার, ২ শ্রাবণ ১৪২৫, ১৮ জুলাই ২০১৮
Risingbd
সর্বশেষ:

বড় জয়ে সেমিফাইনালে ওয়ালটন

আবু হোসেন পরাগ : রাইজিংবিডি ডট কম
 
     
প্রকাশ: ২০১৮-০১-১২ ৩:২০:৫৬ পিএম     ||     আপডেট: ২০১৮-০১-১২ ৮:২০:১১ পিএম
ওয়ালটন দলের খেলোয়াড় ও কর্মকর্তারা

ক্রীড়া প্রতিবেদক : মার্সেল সপ্তম টি-টোয়েন্টি করপোরেট ক্রিকেট টুর্নামেন্টে ওয়ালটন গ্রুপের জয়রথ ছুটছেই। টুর্নামেন্টের বর্তমান চ্যাম্পিয়নরা কোয়ার্টার ফাইনালে নিটল মটরসের বিপক্ষে ৯৭ রানের বড় জয়ে সেমিফাইনালে উঠেছে। টানা দ্বিতীয় শিরোপা থেকে আর দুই কদম দূরে উদয় হাকিমের নেতৃত্বাধীন ওয়ালটন।

নিটল মটরসের বিপক্ষে ব্যাটে-বলে দুর্দান্ত পারফরম্যান্স দেখিয়েছেন রাহাতুল ইসলাম নাজেল। তার সঙ্গে দুর্দান্ত ব্যাটিং করেছেন শাকিলও।আগে ব্যাট করতে নেমে এই দুজনের ফিফটিতে নির্ধারিত ২০ ওভারে সবকটি উইকেট হারিয়ে ২০৯ রানের বড় পুঁজি গড়ে ওয়ালটন। জবাবে ২০ ওভারে ৮ উইকেট হারিয়ে ১১২ রানেই থামে নিটল মটরসের ইনিংস।

ঢাকা রেসিডেন্সিয়াল মডেল স্কুলের তিন নম্বর মাঠে শুক্রবার সকালে টস জিতে ব্যাটিং নিয়েছিলেন ওয়ালটনের অধিনায়ক উদয় হাকিম। ব্যাটিংয়ে শুরুটা যদিও ভালো হয়নি। ৪ ওভারে ৩৩ রান তুলতেই ৩ উইকেট হারিয়ে ফেলে ওয়ালটন। ওপেনার সাহেল মিয়াঁ দারুণ ২টি চার মারলেও ইনিংস বড় করতে পারেননি (৮)। আরেক অপেনার রোজিন মারেন ডাক। আব্দুল্লাহ আল মামুন ৩টি চারে ১৪ রান করে ফেরেন।

 

নাজেলের হাতে ম্যাচসেরার পুরস্কার তুলে দিচ্ছেন এস এম মাহবুবুল আলম খালিদ (ডান থেকে দ্বিতীয়), পাশে এস এম জাহিদ হাসান (ডানে)।


তবে তিনে নামা শাকিল চতুর্থ উইকেটে জনি সোমের সঙ্গে ৭৩ রানের বড় জুটি গড়েন। জনি ৩টি চারে ১৮ রান করে ফিরলে ভাঙে এ জুটি। শাকিল তুলে নেন ফিফটি। পঞ্চম ব্যাটসম্যান হিসেবে আউট হওয়ার আগে ৩০ বলে ৫টি করে চার ও ছক্কায় ৫৯ রান করেন শাকিল। তার বিদায়ের পরের বলে গোল্ডেন ডাক মেরে ফেরেন মিজানও।

এরপরই ঝড় তোলেন নাজেল। তাকে দারুণ সঙ্গ দেন সোহাগ। সপ্তম উইকেটে এই দুজন গড়েন ৬১ রানের জুটি। তাতে দুইশ ছাড়ানো সংগ্রহ পায় ওয়ালটন। মাত্র ২৪ বলে ৭টি ছক্কা ও ২টি চারে ৫৯ রানের টর্নেডো ইনিংস খেলেন নাজেল। ১১ বলে ৩টি চার ও একটি ছক্কায় সোহাগ করেন ২২। অধিনায়ক উদয় হাকিম ৪ বলে ১ রান করেন।

নিটল মটরসের পলাশ ৪ ওভারে ১৫ রান দিয়ে নেন ৫ উইকেট। আশিক নেন ৪ উইকেট, তবে তিনি ৪ ওভারে দিয়েছেন ৩৬ রান। অপর একটি উইকেট নেন আবু আহাদ।

 


বড় লক্ষ্য তাড়ায় ওয়ালটনের বোলারদের দারুণ বোলিংয়ের জবাব খুঁজে পায়নি নিটল মটরসের ব্যাটসম্যানরা। অধিনায়ক উদয় হাকিম ওপেনিংয়ে বোলিংয়ে এসে প্রথম ওভারে খরচ করেন মাত্র ৫ রান। দুই ওপেনার পলাশ ও অমিত ৩৫ রানের জুটি গড়েছিলেন। তবে ৩৫ থেকে ৪৩-এ যেতেই ৩ উইকেট হারায় নিটল মটরস।

একটা পর্যায়ে ৭৯ রানেই ৬ উইকেট হারিয়ে একশর আগেই অলআউট হওয়ার শঙ্কায় পড়ে যায় দলটি। শেষ পর্যন্ত অলআউট না হলেও ৮ উইকেটে ১১২ রানের বেশি করতে পারেনি তারা। এর ১৪ রানই এসেছে শেষ ওভারে। সর্বোচ্চ ২২ রান করেন পলাশ। ৪টি চার ও একটি ছক্কায় হাফিজ করেন ২১ রান। আজমলের ১৮ ও অমিতের ১২ রান ছাড়া দুই অঙ্ক ছুঁতে পারেননি আর কেউই।

৪ ওভারে ১১ রান দিয়ে ৩ উইকেট নেন জনি। সাহেলও নেন ৩ উইকেট, তিনি ৪ ওভারে দিয়েছেন ২৬ রান। ৪ ওভারে ১৩ রান দিয়ে একটি উইকেট নেন নাজেল। অলরাউন্ড নৈপুণ্যে ম্যাচসেরার পুরস্কারও জিতেছেন তিনি।

নাজেলের হাতে ম্যাচসেরার পুরস্কার তুলে দেন ওয়ালটন গ্রুপের পরিচালক এস এম মাহবুবুল আলম খালিদ।এ সময় তার সঙ্গে ছিলেন ওয়ালটন গ্রুপের নির্বাহী পরিচালক (পলিসি, এইচআরএম অ্যান্ড এডমিন) ও ওয়ালটন ক্রিকেট দলের ম্যানেজার এস এম জাহিদ হাসান।

 


গ্রুপ পর্বে তিন ম্যাচের তিনটিতে জিতে 'ডি' গ্রুপের চ্যাম্পিয়ন হিসেবে কোয়ার্টার ফাইনালে উঠেছিল ওয়ালটন। অর্থাৎ টুর্নামেন্টে চার ম্যাচের চারটিতেই জিতল উদয় হাকিমের দল।

শনিবার সেমিফাইনালে ফার্স্ট সিকিউরিটি ইসলামী ব্যাংকের বিপক্ষে খেলবে ওয়ালটন গ্রুপ।কোয়ার্টার ফাইনালে এনার্জিপ্যাক পাওয়ারকে হারিয়ে শেষ চারে উঠেছে ফার্স্ট সিকিউরিটি ইসলামী ব্যাংক।

এসিমস-এর আয়োজন ও ব্যবস্থাপনায় গত ৮ ডিসেম্বর শুরু হয় এই টুর্নামেন্ট। ১৬টি দল চারটি গ্রুপে ভাগ হয়ে টুর্নামেন্টে অংশ নেয়। প্রতি গ্রুপের শীর্ষ দুই দল উঠেছে কোয়ার্টার ফাইনালে। পয়েন্ট তালিকার নিচের দুই দল টুর্নামেন্ট থেকে বিদায় নিয়েছে। টুর্নামেন্টের দুটি সেমিফাইনালই হবে ১৩ জানুয়ারি, আর ফাইনাল ২০ জানুয়ারি।

এই টুর্নামেন্টের মিডিয়া পার্টনার দেশের অন্যতম জনপ্রিয় অনলাইন নিউজ পোর্টাল রাইজিংবিডি ডটকম। আর বেভারেজ পার্টনার নেসলে বাংলাদেশ।

 

 

রাইজিংবিডি/ঢাকা/১২ জানুয়ারি ২০১৮/পরাগ/শামীম

Walton Laptop
 
     
Walton