ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ৯ অগ্রহায়ণ ১৪২৪, ২৩ নভেম্বর ২০১৭
Risingbd
সর্বশেষ:

ঘরোয়া ক্রিকেটের বিশ্বস্ত বন্ধু ওয়ালটন

ইয়াসিন : রাইজিংবিডি ডট কম
 
   
প্রকাশ: ২০১৭-০৯-১৪ ২:০৪:২৬ পিএম     ||     আপডেট: ২০১৭-০৯-১৭ ৯:২০:৩৭ পিএম
ওয়ালটন জাতীয় ক্রিকেট লিগে দেশের সেরা তিন তারকা ক্রিকেটার, সাকিব আল হাসান, মুশফিকুর রহিম ও তামিম ইকবাল (ছবি : মিলটন আহমেদ)

ইয়াসিন হাসান : আন্তর্জাতিক ক্রিকেটের উত্তপ্ত আঙিনায় চোখ রাখলেই দেখা যায় বাংলাদেশের দাপুটে বিচরণ। এ বিচরণ সম্ভব করেছে এক ঝাঁক স্বপ্নসারথী । যাদের হাত ধরে বাংলাদেশের পতাকা উড়ছে বিশ্বজুড়ে।

ওই স্বপ্নসারথীদের তৃণমূল পর্যায় থেকে তুলে এনেছে দেশের শক্তিশালী ঘরোয়া ক্রিকেট স্তম্ভ। আজকের সাকিব, তামিম, মুস্তাফিজ, মোসাদ্দেক, সৌম্য, মিরাজদের তৈরি করেছে এ ঘরোয়া ক্রিকেট। বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের (বিসিবি) সুনির্দিষ্ট পরিকল্পনা এবং বিচক্ষণতায় বাংলাদেশে ক্রিকেট এখন এগিয়ে যাচ্ছে দ্রুতগতিতে।

ঘরোয়া ক্রিকেট নিজস্ব গতিতে চলার জন্য প্রয়োজন পৃষ্ঠপোষকতা। জাতীয় দলের পৃষ্ঠপোষকতার জন্য ছোট-বড় শিল্প পরিবার এগিয়ে আসলেও ঘরোয়া ক্রিকেটের প্রতি বিমুখ তারা। এ জায়গাটিতে ব্যতিক্রম দেশের শীর্ষ ইলেকট্রনিক্স ও ইলেকট্রিক্যাল পণ্য উৎপাদনকারী প্রতিষ্ঠান ওয়ালটন গ্রুপ।
 

মেহেদী হাসান মিরাজ, মোসাদ্দেক হোসেন সৈকত এবং নাসির হোসেন (ছবি : মিলটন আহমেদ)


আন্তর্জাতিক সিরিজের পাশাপাশি ঘরোয়া ক্রিকেটকে এগিয়ে নেওয়ার লড়াইয়ে ওয়ালটন গ্রুপের অবদান অনস্বীকার্য। বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের ‘পরম বন্ধু’ ক্রীড়াবান্ধব প্রতিষ্ঠান ওয়ালটন গ্রুপ।

ঘরোয়া ক্রিকেটের সবচেয়ে বড় আসর জাতীয় ক্রিকেট লিগ। এ লিগ দিয়ে শুরু হয় মৌসুম। আট দলের এ টুর্নামেন্টে অংশ নেন জেলা-উপজেলা পর্যায় থেকে উঠে আসা ক্রিকেটাররা। বিভাগীয় দলে টিকে গেলে খেলার সুযোগ মিলে জাতীয় ক্রিকেট লিগে, যেটি প্রথম শ্রেণির ক্রিকেটের স্বীকৃতিপ্রাপ্ত টুর্নামেন্ট।

সপ্তমবারের মতো দেশের ক্রিকেটের সবচেয়ে বড় আসরে পৃষ্ঠপোষকতা করেছে ওয়ালটন গ্রুপ। ওয়ালটন গ্রুপের পৃষ্ঠপোষকতায় ১৯তম ওয়ালটন জাতীয় ক্রিকেট লিগ মাঠে গড়াচ্ছে শুক্রবার থেকে। আট দলের মোট ১১২ ক্রিকেটার প্রতিযোগিতায় অংশ নিচ্ছে। পৃষ্ঠপোষকতার পাশাপাশি গত দুই আসর ধরে মাঠের সৌন্দর্য্য বৃদ্ধি করতে প্রতিটি দলের খেলোয়াড়, ম্যাচ অফিসিয়ালকে (আম্পায়ার, রেফারি) জার্সি প্রদান করছে ওয়ালটন গ্রুপ। এবারও তার ব্যতিক্রম হচ্ছে না।
 

ওয়ালটন জাতীয় ক্রিকেট লিগে ম্যাচ পরিচালনার দায়িত্বে থাকা দুই আম্পায়ার (ছবি : মিলটন আহমেদ)


দেশের ক্রিকেটে ওয়ালটন গ্রুপের অবদান নিয়ে রাইজিংবিডি’কে বিসিবির পরিচালক এবং ক্রিকেট পরিচালনা কমিটির চেয়ারম্যান আকরাম খান বলেন,‘নিঃসন্দেহে দেশের ক্রিকেটে বড় অবদান রাখছে ওয়ালটন গ্রুপ। জাতীয় ক্রিকেট লিগে পৃষ্ঠপোষকতা করার জন্য বরাবরই আমাদের প্রথম পছন্দ তারা।’

‘জাতীয় ক্রিকেট লিগ দিয়েই জাতীয় দলের ক্রিকেটারদের পাইপলাইন তৈরি হয়। কারণ জাতীয় ক্রিকেট লিগের পারফরম্যান্স মূল্যায়ন করে বিসিএল অনুষ্ঠিত হয়। এনসিএল, বিসিএলে ভালো করলে প্রিমিয়ার লিগের ক্লাবগুলোর নজরে আসেন ক্রিকেটাররা। এভাবেই তারা বিপিএলের দল পায়। তৃণমূল থেকে উঠে আসা ক্রিকেটারদের পথ দেখায় জাতীয় ক্রিকেট লিগ। এরকম টুর্নামেন্টের মান বাড়ানোর জন্য, ক্যালেন্ডার অনুযায়ী চলার জন্য প্রয়োজন পৃষ্ঠপোষকতা। ওয়ালটন গ্রুপ বিগত কয়েক বছর ধরে বিসিবির সঙ্গে থেকে কাজটা খুব সহজ করে দিচ্ছে।’ বললেন আকরাম খান। 

‘ওয়ালটন আইওটি স্মার্ট ফ্রিজ ১৯তম জাতীয় ক্রিকেট লিগ’


পৃষ্ঠপোষকতার কারণে ক্রিকেটারদের পারিশ্রমিক, সুযোগ-সুবিধাও ‍বৃদ্ধি করেছে বিসিবি। প্রথম শ্রেণির ক্রিকেটের এই টুর্নামেন্টে ক্রিকেটারদের ম্যাচ ফি বাড়ানো হয়েছে। বেড়েছে ভ্রমণ ও দৈনন্দিন ভাতা। বিষয়টিকে ইতিবাচক হিসেবে দেখছেন ৯২টি প্রথম শ্রেণির ম্যাচ খেলা মোশাররফ হোসেন রুবেল। ঢাকার তারকা ক্রিকেটার রাইজিংবিডি’র সঙ্গে আলাপকালে বলেন, ‘প্রথম শ্রেণির ক্রিকেটে আগে এত টাকা ছিল না, তাতে সবার মধ্যে গা-ছাড়া ভাব ছিল। অবশ্যই ক্রিকেটারদের মধ্যে প্রতিযোগিতার আমেজ চলে আসবে। গত কয়েক আসরেও প্রতিযোগিতা হয়েছে। এবারও প্রতিদ্বন্দ্বিতা হবে তা বলার অপেক্ষা রাখে না।’

বিসিবির ঐকান্তিক প্রচেষ্টায় বাংলাদেশ ক্রিকেট আজ সফলতার উচ্চ শিখরে পৌঁছেছে। ঘরোয়া ক্রিকেটের স্তম্ভ শক্তিশালী হওয়ার কারণে নাসির, সাব্বির, সৌম্য, মুস্তাফিজ, মিরাজদের মতো ক্রিকেটার পেয়েছে। ঘরোয়া ক্রিকেটের স্তম্ভ শক্তিশালী করার কৃতিত্ব ওয়ালটন গ্রুপের তা বলার অপেক্ষা রাখে না। 

 

 

রাইজিংবিডি/ঢাকা/১৪ সেপ্টেম্বর ২০১৭/ইয়াসিন/টিপু

Walton
 
   
Marcel