ঢাকা, শনিবার, ৬ শ্রাবণ ১৪২৫, ২১ জুলাই ২০১৮
Risingbd
সর্বশেষ:

‘জনগণকে কী দিতে পারলাম সেটাই বড় কথা’

তানজিনা আফরিন ইভা : রাইজিংবিডি ডট কম
 
     
প্রকাশ: ২০১৮-০৬-২৩ ২:৪৭:৪৩ পিএম     ||     আপডেট: ২০১৮-০৭-০১ ৩:৪৩:০০ পিএম

নিজস্ব প্রতিবেদক : আওয়ামী লীগ সভাপতি ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা দলীয় নেতা-কর্মীদের উদ্দেশে বলেছেন, ‘নিজে কী পেলাম এটা বড় কথা নয়, জনগণকে কী দিতে পারলাম সেটাই বড় কথা।’

শনিবার দুপুরে প্রধানমন্ত্রীর সরকারি বাসভবন গণভবনে আওয়ামী লীগের বিশেষ সভায় সভাপতির বক্তব্যে তিনি এ কথা বলেন।

শেখ হাসিনা বলেন, রাজনীতি যদি সঠিক হয় তাহলে দেশের উন্নয়ন করা সম্ভব। দেশের মানুষের উন্নয়নে আমরা কাজ করে যাচ্ছি। আমরা এখন আর ভিখারির দেশ নই। বাংলাদেশ এখন মর্যাদার দেশ।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, মাত্র সাড়ে তিন বছরে জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান বাংলাদেশকে স্বল্পোন্নত দেশে পরিণত করেছেন। তার পরে তাকে হত্যা করা হলো। তিনি বলেন, পরিবার হারিয়ে আওয়ামী লীগই এখন আমার পরিবার হয়ে গেছে। এখানে আমি বাবা-মার আদর ও ভাই বোনের ভালোবাসা পেয়েছি।

আওয়ামী লীগ সভাপতি বলেন, একজন রাজনীতিবিদের চিন্তা-ভাবনা থাকবে কীভাবে আমরা মানুষের ভাগ্য পরিবর্তন করতে পারি। নিজের ভাগ্য নয়, জনগণের ভাগ্য পরিবর্তনেই আমাদের কাজ করতে হবে।

 



শেখ হাসিনা বলেন, পদ্মাসেতু নিয়ে চ্যালেঞ্জ করেছিলাম। তারা আমাকে দুর্নীতিবাজ করার ষড়যন্ত্র করেছিল। আজ আমরা নিজেদের অর্থয়নে পদ্মাসেতু নির্মাণ করতে পারছি। দেশের উন্নয়নের কথা জনগণের মধ্যে তুলে ধরতে দলীয় নেতা-কর্মীদের প্রতি আহ্বান জানান প্রধানমন্ত্রী।

মুক্তিযুদ্ধে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের নানা অবদানের কথা তুলে ধরে শেখ হাসিনা বলেন, বঙ্গবন্ধুর প্রতিটি পদচারণা মানুষকে উদ্বুদ্ধ করেছে। তিনি ঝুঁকি নিয়ে আমাদের স্বাধীনতার পথ দেখিয়েছেন। ৭ই মার্চের ভাষণে তিনি যুদ্ধের প্রস্তুতির নির্দেশনা দিয়েছিলেন। আজকে সেই ভাষণ পৃথিবীর শ্রেষ্ঠ ভাষণ হিসেবে স্বীকৃতি পেয়েছে।

তিনি বলেন, যুদ্ধ শেষে জাতির পিতার অনুরোধে মিত্রবাহিনী ফেরত নিয়েছিল ভারত। যা পৃথিবীর আর কোনো দেশে এমন মিত্রবাহিনী ফেরত নেওয়ার ঘটনা ঘটেনি।

এর আগে বেলা ১১টায় আওয়ামী লীগ সভাপতি শেখ হাসিনার সভাপতিত্বে বিশেষ বর্ধিত সভা শুরু হয়। এতে আওয়ামী লীগের কার্যনির্বাহী কমিটি, প্রেসিডিয়াম সদস্য, উপদেষ্টা পরিষদের সদস্য, সংসদ সদস্য, বিভিন্ন অঙ্গ ও সহযোগী সংগঠনের সভাপতি-সাধারণ সম্পাদক ছাড়াও জেলা, উপজেলা ও ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি, সাধারণ সম্পাদক ও দপ্তর সম্পাদকগণ যোগদান করেন।

এ ছাড়া দল সমর্থিত জেলা ও উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান, সিটি করপোরেশন ও পৌরসভার মেয়র, উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান, সহযোগী সংগঠনের সভাপতি সাধারণ সম্পাদকসহ বিভিন্ন পর্যায়ের চার হাজারের বেশি প্রতিনিধি অংশ নেন।



রাইজিংবিডি/ঢাকা/২৩ জুন ২০১৮/ইভা/এনএ

Walton Laptop
 
     
Walton