ঢাকা, শুক্রবার, ৩০ অগ্রহায়ণ ১৪২৫, ১৪ ডিসেম্বর ২০১৮
Risingbd
সর্বশেষ:

ন্যায়বিচার প্রাপ্তি সার্বজনীন মৌলিক অধিকার : প্রধান বিচারপতি

মেহেদী হাসান ডালিম : রাইজিংবিডি ডট কম
 
     
প্রকাশ: ২০১৮-০৯-২৬ ২:৩০:৪৫ পিএম     ||     আপডেট: ২০১৮-১০-০৪ ১০:২৮:২৯ পিএম

নিজস্ব প্রতিবেদক : প্রধান বিচারপতি সৈয়দ মাহমুদ হোসেন বলেছেন, ন্যায়বিচার প্রাপ্তি ও আইনের আশ্রয় লাভের অধিকার সার্বজনীন মৌলিক অধিকার।

আইনের শাসন প্রতিষ্ঠায় ও মানবাধিকার সংরক্ষণে সরকারি আইনগত সহায়তা প্রদানের ভূমিকা অপরিসীম। বাংলাদেশের প্রেক্ষাপটে আইনগত সহায়তা ব্যাতিরেকে আইনের দৃষ্টিতে সমতা কখনোই সম্ভব নয় বলেও মন্তব্য করেন তিনি।

বুধবার সুপ্রিম কোর্টে লিগ্যাল এইড ও আইন সাংবাদিকতা শীর্ষক কর্মশালায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে এসব কথা বলেন প্রধান বিচারপতি। সুপ্রিম কোর্ট লিগ্যাল এইড কমিটি ও মানুষের জন্য ফাউন্ডেশন যৌথভাবে এ কর্মশালার আয়োজন করে।

প্রধান বিচারপতি বলেন, সাংবাদিকতা একটি মহান এবং গুরুত্বপূর্ণ কাজ। সমাজের অসংগতি দূরিকরনে এবং সুন্দর সমাজ বিনির্মাণে গণমাধ্যমের ভূমিকা আলোর মতো স্পষ্ট। মানুষের তথ্য জানার অধিকারের প্রশ্নে সাংবাদিকরা প্রতিনিয়ত অতন্দ্র প্রহরীর ভূমিকা পালন করছে বলে মন্তব্য করেন প্রধান বিচারপতি।

প্রধান বিচারপতি আরো বলেন, লিগ্যাল এইড বিষয়ক আইন-কানুন স্কুলের সিলেবাসে অন্তর্ভুক্ত করা উচিৎ। যাতে শিক্ষার্থীরা এ বিষয়ে বিস্তৃত জ্ঞাণ লাভ করতে পারে। অসহায় ও সুবিধা বঞ্চিত মানুষের আইনগত অধিকার প্রতিষ্ঠায় সাংবাদিকসহ সবাইকে এগিয়ে আসার আহ্বান জানান তিনি।

সৈয়দ মাহমুদ হোসেন বলেন, আইন আদালত, আইন শৃঙ্খলা, মানবাধিকার এবং আইনি সেবাসংক্রান্ত তথ্য আইন সাংবাদিকতার মাধ্যমে উঠে আসে। সাংবাদিকরা সাধারণ জনগণ ও বিচারপ্রার্থী জনগণের আশা-আকাঙ্ক্ষা, প্রাপ্তি-অপ্রাপ্তি এবং লক্ষ্য ও উদ্দেশ্য নিয়ে সংবাদ প্রকাশ করে সংশ্লিষ্ট সকলকে সচেতন করার গুরুদায়িত্ব পালন করে আসছে।

তিনি আরো বলেন, দীর্ঘদিন ধরে বিনা বিচারে আটক রয়েছে বা অর্থাভাবে আইনজীবী নিয়োগ দিতে পারছে না এমন বিষয়গুলি সাংবাদিকরা অনুসন্ধানি সাংবাদিকতার মাধ্যমে সংশ্লিষ্ট প্রতিষ্ঠান কাছে তুলে ধরতে পারেন। গণমাধ্যমের ঐকান্তিক প্রচেষ্টায় সরকারি আইন সেবা কার্যক্রম আরো গতিশীল হবে বলেই আমি আশাবাদী।

প্রধান বিচারপতি বলেন, আমাদের সকলের নিজ নিজ অবস্থান থেকে সহযোগিতা এবং দায়িত্ব সঠিকভাবে পালন করার মাধ্যমেই মানুষের ন্যায়বিচার প্রাপ্তির অধিকার নিশ্চিত হতে পারে।

এতে আরো বক্তব্য রাখেন অ্যাটর্নি জেনারেল মাহবুবে আলম, সুপ্রিম কোর্ট বারের সভাপতি জয়নুল আবেদীন, বার কাউন্সিলের ভাইস চেয়ারম্যান ইউসুফ হোসেন হুমায়ুন, সুপ্রিম কোর্টের রেজিস্ট্রার জেনারেল ড. জাকির হোসেন, ল’ রিপোর্টার্স ফোরামের সভাপতি সাঈদ আহেমেদ খান প্রমুখ। কর্মশালায় সভাপতিত্ব করেন সুপ্রিম কোর্ট লিগ্যাল এইড কমিটির চেয়ারম্যান বিচারপতি এম ইনায়েতুর রহিম।




রাইজিংবিডি/ঢাকা/২৬ সেপ্টেম্বর ২০১৮/মেহেদী/ইভা

Walton Laptop
 
     
Marcel
Walton AC