ঢাকা, মঙ্গলবার, ৬ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৬, ২১ মে ২০১৯
Risingbd
সর্বশেষ:

সংসদে রাষ্ট্রপতির ভাষণে গুরুত্ব পাবে যে বিষয়গুলো

আসাদ আল মাহমুদ : রাইজিংবিডি ডট কম
     
প্রকাশ: ২০১৯-০১-২১ ৬:০৩:২০ পিএম     ||     আপডেট: ২০১৯-০১-২২ ৮:১২:০৮ এএম

সচিবালয় প্রতিবেদক : একাদশ জাতীয় সংসদের প্রথম অধিবেশনে রাষ্ট্রপতির ভাষণে দেশের সার্বিক পরিস্থিতি, সামষ্টিক অর্থনীতির চিত্র, সুশাসন প্রতিষ্ঠায় সরকারের গৃহীত কার্যক্রম, রূপকল্প ২০২১ এবং ২০৪১ বাস্তবায়নে গৃহীত কর্মসূচি প্রভৃতি বিষয় গুরুত্ব পাবে।

আগামী ৩০ জানুয়ারি শুরু হবে একাদশ জাতীয় সংসদের প্রথম অধিবেশন। এতে ভাষণ দেবেন রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদ।

সোমবার সচিবালয়ে সাংবাদিকদের এসব তথ্য জানান মন্ত্রিপরিষদ সচিব মোহাম্মদ শফিউল আলম।

তিনি বলেন, রাষ্ট্রপতির ভাষণে দেশের আর্থ-সামাজিক উন্নয়নে গৃহীত পদক্ষেপ ও সাফল্য, কৃষির উন্নয়ন ও খাদ্য নিরাপত্তায় সাফল্য, দেশ ও বিদেশে কর্মসংস্থান, সামাজিক নিরাপত্তা বেষ্টনি ইত্যাদি বিষয় থাকবে।

এছাড়া, স্থানীয় সরকার ব্যবস্থা ও গ্রামীণ অর্থনীতির উন্নয়ন, শিক্ষা ও স্বাস্থ্যসেবার উন্নয়ন, যোগাযোগ ব্যবস্থার উন্নয়ন, ডিজিটাল বাংলাদেশ বিনির্মাণে প্রযুক্তির উন্নয়নে বিভিন্ন কর্মসূচি বাস্তবায়ন, তথ্য ও গণমাধ্যমের উন্নয়ন, আইনশৃঙ্খলা ও জননিরাপত্তার উন্নয়ন এবং আইন প্রণয়ন ও জনপ্রশাসনের উন্নয়নে গৃহীত কার্যক্রমও থাকবে তার ভাষণে।

বৈদেশিক প্রতিটি ক্ষেত্রে অর্জিত সাফল্য, প্রশাসনের নীতি ও কৌশল, উন্নয়ন কৌশল এবং অগ্রযাত্রায় নির্দেশনার বিষয়গুলো রাষ্ট্রপতির বক্তব্যে স্থান পাবে বলে উল্লেখ করেন মন্ত্রিপরিষদ সচিব।

শফিউল আলম বলেন, আইনগত বাধ্যবাধকতার জন্য বছরের শুরুতে বা যেকোনো সরকার গঠনের শুরুতে প্রথম যে সংসদ অধিবেশন হয় সেখানে রাষ্ট্রপতি ভাষণ দেন। প্রতিবারের মতো এবারও মন্ত্রিপরিষদ বিভাগ একটি এনালাইসিস ঠিক করেছে। চূড়ান্ত অনুমোদনের পর রাষ্ট্রপতি সংসদে ভাষণ দেবেন। ভাষণটি তৈরিতে আমরা আমাদের সহকর্মী সচিবদের কাছ থেকে যে তথ্য পেয়েছি তার আলোকে আমরা একটি সংকলন তৈরি করেছি। রাষ্ট্রপতির মূল ভাষণ ৭৫ হাজার শব্দের। এ ভাষণ পুরোটা সংসদে দাঁড়িয়ে পড়া অনেক কঠিন। তাই এর মধ্যে থেকে একটি সংক্ষিপ্ত ভাষণ তৈরি করা হয়। সেই ভাষণ ৬ হাজার শব্দের মধ্যে সীমাবদ্ধ থাকে।



রাইজিংবিডি/ঢাকা/২১ জানুয়ারি ২০১৯/আসাদ/রফিক

Walton Laptop
     
Walton AC
Marcel Fridge